পূর্ণ দৈর্ঘ্য বাংলা ছায়াছবি পর্যালোচনা ‘মা বড় না বউ বড়’
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

প্রথম বার হলে চলচ্চিত্রটি দেখেই ভাল লেগেছিল। ভেবেছিলাম রিভিউ লিখব। কিন্তু সময়ের অভাবে আর লেখা হয় নি। কিন্তু আজ হঠাৎ বিবাহিত ব্যচেলর ভাইয়ের রিভিউ পড়ে আর নতুন এই ব্লগ দেখে লোভ আর সামলাতে পারলাম না। লিখেই ফেললাম আমার দেখা চমৎকার একটি সিনেমার বস্তাপচা রিভিউ।
পরিচালকঃ শেখ নজরুল ইসলাম
শ্রেষ্ঠাংশেঃ আমিন খানঁ, নিপুন,ডলি জহুর,রাজ্জাক,আলীরাজ,কাজী হায়াত ,নাসরিন সহ আরও অনেকে ।
মুক্তিকালঃ ২০০৯

কাহিনী সংক্ষেপঃ আমিন খান একজন পুলিশ অফিসার। তার স্ত্রী নিপুণ । কিন্তু সে তার স্ত্রীর তুলনায় তার মাকে(ডলি জহুর) গুরুত্ব দেয় বেশি । যার কারণে তার মা এবং শাশুড়ির মধ্যে সবসময় একটি দন্ধ লেগে থাকে। ছবির এক পর্যায়ে নিপুণের ভাই খুনের মামলার আসামী হয়ে পড়েন। তখন আমিন খান তার শ্যলক কে ধরতে আসলে আলী রাজ(নিপুণের বাবা) তাকে বাধা দেন ও পালিয়ে যেতে সাহায্য করেন। বাধা দেয়ার এক পর্যায়ে দস্তাদস্তিতে আলীরাজ আহত হন ।তখন নিপুণ ও তার স্বামীকে আঘাত করে। এই নিয়ে নিপুণ ও আমিন খানের পরিবারের মধ্যে ঝগড়া লেগে যায় ।পরবর্তীতে কাহিনীর এক পর্যায়ে দেখা যায় নিপুণ খুন হন। এবং নিপুণের খুনের দায় এসে পড়ে ডলি জহুরের কাধে।এভাবেই চলচ্চিত্রটি এগোতে থাকে ………………………………
যারা চলচ্চিত্রটি দেখেন নি  বাকিটুকু সিডি কিনে দেখুন ।

আমার ব্যক্তিগত রিভিউঃ গত কয়েক বছরে নির্মিত বাংলা চলচ্চিত্র গুলোর মধ্যে এটি আমার পছন্দের তালিকায় প্রথম দিকে থাকবে
হলে গিয়ে চলচ্চিত্রটি দেখে পরিপূর্ণ তৃপ্তি নিয়ে ফিরে এসেছি।
জীবনে দেখা চলচিত্র এর সংখ্যা খারাপ না
মা আর বৌ কে নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র নাটক কিংবা মেগা সিরিয়াল গুলো দুই রকমের থাকে
১) মা ফেরেশতা এর মত বৌ শয়তানের চেয়েও খারাপ
২) বৌ ফেরেশতা এর মত মা শয়তানের চেয়েও খারাপ
এই চলচ্চিত্রে ভিন্নতা দেখলাম।
সাধারনত চলচ্চিত্রে দেখা যায় যে কোন আইনের লোকের ছেলে খারাপ কাজ করলে তিনি পুলিশের হাতে ছেলে কে তুলে দিতে একটু ও কার্পণ্য বোধ করেন না। কিন্তু এই চলচ্চিত্রে দেখা গেল আমিন খান যখন তার শালাকে হত্যার অভিযোগে গ্রেপ্তার করতে আসেন তিনি তার ছেলে কে দিতে চান নি। এবং এ নিয়ে আমিন খানের সাথে ঝগড়া বেধে যায়। এবং আমার কাছে মনে হয় বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ইহাই বাস্তব। চলচ্চিত্রে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আপনি একটু দেখে অনুমান করবেন যে পরের দৃশ্যে এই রকম ঘটবে কিন্তু এই চলচ্চিত্রে বেশির ভাগ দৃশ্যে ই আপনার অনুমান ভুল হবে। এবং আশা করি এক বারের জন্য ও বোরিং হবেন না(গানের দৃশ্য গুলো বাদে)।
এক কথায় কাহিনী বিবেচনায় খুব ই চমৎকার একটি চলচ্চিত্র।
আর মেকিং এর কথা বললে যারা গতানুগতিক বাংলা সিনেমা দেখে অভ্যস্থ তাদের কাছে খারাপ লাগবে না
গানগুলো কিংবা দৃশ্যায়ন তেমন ভাল হয় নি। বরং ইদানিং কালে বাংলা চলচ্চিত্রের গান মুটামুটি ভাল হচ্ছে সেই তুলনায় খারাপ ই হয়েছে বলা যায়
অভিনয় এর কথা বললে সবাই ভালই করেছেন । খারাপ বলতে গেলে নিপুনের ভাই চরিত্রে যিনি অভিনয় করেছেন তিনি ততোটা ভাল করেন নি । সবচেয়ে ভাল মনে হয়  আমিন খান (উনি আবার আমার খুব প্রিয় নায়ক সেই জন্যই কিনা বুঝতে পারি নি )
সিনেমাটগ্রাফির কথা বললে বাংলা গতানুগতিক চলচ্চিত্রগুলো থেকে ভাল হয় নি তবে খারাপ ও না ।
প্রিন্ট গতানুগতিক
একশন এর কথা বললে এই চলচ্চিত্রটি একশন নির্ভর না। তবে যতটুকু থাকার দরকার ততটুকু ছিল। এবং তার মান এভারেজ ।
আসলে চলচ্চিত্রটির স্তম্ভ হচ্ছে এর কাহিনী। আমার কাছে খুব ভাল লেগেছে । পরিবারের সবাইকে নিয়ে উপভোগ করার মত একটি সামাজিক চলচ্চিত্র।
আমার রেটিং ৭.৫/১০ ।
বিঃ দ্রঃ’মা বড় না বউ বড়’একটি জনপ্রিয় এবং ব্যবসা সফল চলচ্চিত্র।  চলচ্চিত্রটিতে ভুল ধরলে অনেক হাস্যকর ভুল ধরা যাবে।সেই গুলো আর বললাম না। কারণ ভুলগুলো ধরার অনেকেই আছেন।  তবুও গতানুগতিক বাংলা চলচ্চিত্রগুলো থেকে এর ভুলের সংখ্যা আপেক্ষিক ভাবে কম ছিল। চলচ্চিত্রটি সম্ভব হলে দেখে ফেলুন। খারাপ লাগবে না আশা করি।

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন