A Few Good Men (1992) – যেখানে প্রতি সেকেন্ড উত্তেজনাতে ভরপুর
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

কোড রেড কি?

কোড রেড একটি মিলিটারি শব্দ। মূলত এটি মিলিটারি ভাষাতে একটি অলিখিত আইন ও বলা যায়। যখন কোন সৈনিক তার দায়িত্ব পালনে ব্যার্থ হন ( যেমন, ঠিকমত প্যারেডে না আসা, দৌড়ে সবার পিছনে থাকা, চেইন অফ কমান্ড মেনে না চলা )তখন উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাকে কোড রেড দিয়ে থাকে। কোড রেড এক প্রকার শাস্তি বলা যায়, যেখানে কোড রেড প্রাপ্ত ব্যক্তিকে তার টিমমেট দ্বারাই হেয় প্রতিপন্ন করা হয়। হতে পারে সেটা তার জামা কাপড় খুলে বেদম প্রহর, হতে পারে হাতে গরম ছ্যাক দেওয়া, হতে পারে খাবার খেতে না দেওয়া এমনি কি মানষিক অশান্তিতে রাখা। এই ছোট দুইটি শব্দকে ঘিরেই আবর্তিত হয়েছে টম ক্রজ, জ্যাক নিকেলসন এবং ডেমি মোরে অভিনীত কোর্ট রুম ড্রামা মুভি “A Few Good Men (1992).”
116
মুভিতে দেখা যায় Lance Corporal Harold Dawson এবং Private Louden Downey কে কোর্ট মার্শালের আওয়াত এনে বিচার করা হচ্ছে। তাদের উপর আরোপ করা হয়েছে তাদেরই টিমমেট Marine Private William Santiago এর উপর হত্যা মামলা। আসামী পক্ষের উকিল হিসাবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে Lieutenant Daniel Kaffee কে। অনেক জিজ্ঞাসাবাদের পর তিনি আসামীদের মুখ থেকে বের করতে সক্ষম হন যে হ্যা তাদেরকে কোড রেডের অর্ডার দেওয় হয়েছিল। কিন্তু তার কোন সাক্ষী প্রমান নেই, তাহলে কি করে এই দুইজনকে নির্দোষ প্রমান করবে Lieutenant Daniel Kaffee ? জানতে চাইলে দেখে ফেলুন টান টান উত্তেজনাপূর্ণ এই কোর্ট রুম ড্রামা সিনেমাটি। কথা দিলাম এক সেকেন্ডে ও অন্যদিকে মনোযোগ দিতে পারবে না।

Lieutenant Daniel Kaffee চরিত্রে অভিনয় করছেন টম ক্রজ। একজন কম বয়সী ল-ইয়ারের চরিত্রকে তিনি খুব নিখুঁতভাবে পর্দায় দৃশ্যমান করছেন। ল – ইয়ার মানে খুব গম্ভীর, প্রখর বুদ্ধিসপন্ন যেখানে ভাবা হয় সেখানে Lieutenant Daniel Kaffee একজন বেসবল প্রেমী, চঞ্চল সদা হাস্যজ্জ্বল এক চরিত্র, যেখানে রাগ, ভালোবাসা সাথে কোমলতা মিশে একাকার হয়েছে।
a-few-good-men-kevin-bacon-tom-cruise
Lance Corporal Harold Dawson চরিত্রে অভিনয়কারী Wolfgang Bodison এর কথা আলাদা করে বলতে হয়। সিনেমার অন্যসব গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র থেকে একদম আলাদা হলেও এই ব্যক্তি বিশেষ নজর কাড়বে। পাথরের মত অটল এক মানুষ, যার কাছে চেইন অফ কমান্ড ও নিজের দেশের জন্য লড়াই করে যাওয়াই হল মূলমন্ত্র। টম ক্রজ ও তার মাধ্যে আলাপচারিতাতে বার বার স্যার বলার দৃশ্যটি দর্শকদের বেশ হাসির যোগান দিবে।

Colonel Nathan R. Jessup এর চরিত্রে জ্যাক নিকেলসন এক কথায় অসাধারণ। একজন বদমেজাজী ও একরোখা চরিত্রকে তিনি এতো সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন যে, “You can’t handle the truth” কথাটি অনেকদিন পর্যন্ত আপনার মনে থাকবে। সিনেমার বেস্ট পার্ট বলা যায় এই অংশটি। যেখানে মনে হয়ছে সত্য ও দায়িত্বের কাছে মাঝে মাঝে আবেগ হার মেনে গেলেও মনুষ্যত্ব বলে কিছু জিনিস থেকে যায়।

মাঝে মাঝে ডেমি মোরের রূপের ঝলকানি বিমোহিত করবে। সাপোর্টিং রোল হিসাবে বেশ ভাল লেগেছে তাকে।

সিনেমার স্ক্রীনপ্লের কথা আলাদাভাবে বলা উচিত, সিনেমার শুরুরে অস্ত্র দিয়ে প্যারেড করার দৃশ্য চোখের লেগেছিল। কি সুন্দর মনে হচ্ছে আমি লাইভ শো দেখতে পাচ্ছি। এছারা বৃষ্টির দৃশ্য কিংবা কিউবাতে বেস ক্যাম্পে কর্ম চঞ্চলতা বেশ ভালোভাবে ফুটিয়েছেন পরিচালক Rob Reiner।

দেরী না করে দেখে ফেলুন এই দারুণ কোর্ট রুম ড্রামা সিনেমাটি। রেটিংঃ ৮/১০

এই পোস্টটিতে ৩ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Rk Nahid says:

    মাঝে মাঝেই দেখি, প্রতি বারই নতুন লাগে,,, দারুন মুভি

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন