Knife in the Water (1962) – পানিতে ছুরি রহস্য
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0
রোমান পোলানস্কির প্রথম নির্মিত সিনেমা “Knife in the Water” । মূলত এর আগে বেশ কিছু শর্ট ফিল্ম করে হাত ও সিনেমার কলাকৌশন রপ্ত করেন তিনি। কথায় বলে সকালের সূর্য দেখে বলে দেওয়া যায় দিনটি কেমন যাবে। Knife in the Water নির্মানের মাধ্যমে পোলানস্কি ও ইঙ্গিত প্রদান করেন, বিশ্ব সিনেমা জগতে তিনি একজন ধ্রুবতারা হিসাবে প্রজ্বলিত হবেন অদূর ভবিষ্যতে। প্রথম সিনেমাতেই বাজিমাত করেন পোলানস্কি। Knife in the Water অস্কারে সেরা ভীনদেশি চলচ্চিত্র হিসাবে নোমিনেশন পায়। কি ছিল এমন যে একজন ২৯ বছর বয়সী তরুণ পরিচালকের প্রথম সিনেমা চলে গেলো অস্কারের জন্য? হয়তো কিছু ছিল, না হলে মাত্র ৯৪ মিনিট দৈর্ঘ্যের চিত্রকল্প নিয়ে এতো বাড়াবাড়ি কেন হয়েছিল?
মুভিঃ Knife in the Water
সালঃ ১৯৬২
রংঃ সাদাকালো
দেশঃ পোলান্ড
ভাষাঃ পোলিশ
অভিনয়ঃ Leon Niemczyk, Jolanta Umecka, Zygmunt Malanowicz
পরিচালকঃ রোমান পোলানস্কি
কাহিনী ও চিত্রনাট্যের দিকে তাকালে দেখতে পাই মাত্র তিনজন অভিনেতা নিয়ে নির্মিত সিনেমাতে নেই কোন আহামরি ক্যামেরার কাজসাজি, নেই তেমন কোন সুপারস্টার। এক দম্পত্তির অবকাশ কাটানোর সময়ে ঘটে যাওয়া সময়কে শুধু মাত্র সেলুলয়েডের পর্দায় রুপান্তর করেছেন। এই সময়ের মাঝেই তিনি দেখিয়েছেন সত্য মিথ্যার পার্থক্য ও ভালোবাসার স্থান। নদীতে অবকাশ কাটানোর জন্য এক দম্পত্তি তাদের গাড়িতে করে যাত্রা শুরু করে তাদের প্রমোতরীর উদ্দেশ্যে। পথিমধ্যে একজন হুট করে তাদের গাড়ির সামনে এসে পরে। লিফট দিয়ে তাকেও নিয়ে যায় তাদের প্রমোদতরীর স্থানে। কিন্তু আগুন্তক তো নদীভ্রমন করেনি কোনদিন। সে পানির রূপ ও দেখে নি। তাকে আমন্ত্রন করে দম্পতি, ২৪ ঘন্টা তাদের সাথে পানিতে থাকার জন্য। রাজি হয়ে উঠে পরে প্রমোদতরীতে আগুন্তক। সাথে তার একটি ছোট ছুরি। যা হঠাৎ করে পড়ে যায় পানিতে ধস্তাধস্তির সময়। লাফ দেয় আগুন্তক পানিতে, কিন্তু সে তো সাঁতার পারে না, তাহলে এখন কি হবে?
Knife4
ড্রামা ঘরনার সিনেমার শেষের অংশের থ্রিলারটুকু আপনাকে বেশ আটকে রাখবে। সিনেমার এন্ডিং আপনাকে ভাবাবে, প্রকৃতির কাছে আমরা সবাই কম বেশি ধরাবাধা। প্রকৃতির নিয়মে নারী পুরুষ কাছে আসবেই, তারা অচেনা হলেও শরীরে রক্তের বেগ তাদের একসুতায় বেধে রাখবে। সেই স্রোতের কাছে হার মেনে যায় সব ভালোবাসা, বিশ্বাস কিংবা প্রতিশ্রুতি। সিনেমার প্রথম দিক বেশ বোরিং তবে শেষ দেখার পর আপনি একটু হলেও চিন্তিত হবেন। আর এখানেই পোলানস্কির সার্থকতা। চাইলে দেখে নিতে পারেন এই ড্রামা সিনেমাটি, হয়তো একটা ভালোলাগা কাজ ও করতে পারে 🙂
ডাউনলোড লিঙ্কঃ ক্লিক করুণ

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন