সীমকরণের খোঁজে আসছে “আয়নাবাজি” -প্রিভিউ

আয়নাবাজি !!! নামেই রহস্য প্রকাশ পাচ্ছে। আয়নাবাজি মানে কি? আক্ষরিক অর্থে যা দাঁড়ায় তা হল “আয়নার খেলা”, মানে লুকচুরি। সবসময় মানুষ আয়নাতে যা দেখে তাই কি হয়? না হয় না, মানুষের ভালো চেহারার পেছনে লুকিয়ে থাকা চেহারা কখনো ফুটে উঠে না আয়নাতে। আর এখানেই রহস্য, আয়নাবাজি নামকরণ পুরোপুরি ভাবার্থে করা। মানুষের ভিতরের খেল দেখানোর নামই হল আয়নাবাজি। কিভাবে বুঝবেন এটা? খুব সোজা , আয়নাবাজি সিনেমার ট্রেইলারেই রয়েছে তার ইংগিত,

ভোর হলে পরেই চরিত্র বদলায়”

এ রূপ মানুষের বাহ্যিক রূপ নয়, এ রূপ মানুষের ভিতরের আত্নার রূপ। কারণ একমাত্র সেই মানুষটি জানে সে কেমন। তার সত্ত্বা কেমন। কারণ

“আমি আয়না, একজনই”

অমিতাভ রেজার আয়নাবাজির কাহিনী বর্ণনা করেছেন এভাবে ‘আয়নাবাজি খুব সরল সহজ গল্প । বাংলার মানুষে সহজ জিবনের জটিল ধাঁধার এক সমীকরন”

চলচ্চিত্রে মূল চরিত্রগুলোতে অভিনয় করছেন চঞ্চল চৌধুরী, মাসুমা রহমান নাবিলা এবং পার্থ বড়ুয়া। সিনেমা প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন,

‘আয়নাবাজি আমার কাছে শুধু একটি সিনেমা নয়, আমার একটি গন্তব্য। যেখানে আমি পৌঁছাতে চেষ্টা করেছি। হয়তো আয়নাবাজির হাত দিয়ে আমি আমার শহরের সেই মানুষটিকে খোঁজার চেষ্টা করেছি, যারা পাপ জমায় শুধুই নিজের অস্ত্বিত্ব খুঁজে পাবার জন্য।’

চঞ্চল চৌধুরী যিনি মনপুরা দিয়েই জয় করেছেন কোটি ভক্তের হৃদয়, তার অভিনয় নিয়ে স্বয়ং পরিচালক বলেছেন,

‘কি অসাধারণ নিষ্ঠা আর সততার সাথে চঞ্চল অভিনয় করে গেছেন তিন মাস, এক মুহূর্তের জন্য আমার মনে হয়নি তার অভিনয়ে কোনো গাফিলতি আছে। ১৫ কেজি ওজন কমানো থেকে শুরু করে তিন মাসের জন্য তিনি আয়নাবাজিতে একনিষ্ঠভাবে নিয়োজিত ছিলেন। সিনেমার জন্য তার যে ভালবাসা তাতে আমরা বিমোহিত।’

সিনেমার সংগীতের দায়িত্বে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রথম সারির সংগীত শিল্পীরা। চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনা করছেন – হাবিব অর্ণব , ফুয়াদ, চিরকুট ! কখনো চিন্তা করছিলেন এদেরকে একই এলবামে পাবেন? আবহ সংগীতের রয়েছেন বাইশে শ্রাবণ খ্যাত ইন্দ্রদীপ! ইতোমধ্যে ছবির ট্রেইলার, অর্ণবের গাওয়া ‘এই শহর আমার’ শিরোনামের গানটি ব্যপক প্রশংসিত হয়েছে। বেষ্ট বাংলা সিনেমার ট্রেইলার হিসাবে খ্যাতি লাভ করেছে আয়নাবাজির ট্রেইলার। গান, অভিনয়, অভিনেতা, পরিচালক, ট্রেইলার সবকিছু মিলিয়ে একটি পরিপূর্ণ প্যাকেজের নাম আয়নাবাজি। যেখানে প্রতিটি সংলাপে লুক্কায়িত রয়েছে রহস্যের ছাপ। রহস্যের কিনারা করার জন্য দর্শক চেয়ে আছি ৩০ সেপ্টেম্বারের দিকে। দেখা যাক উন্মোচিত হয় কি না “আয়নাবাজি” র আয়নার খেল 😉 ততক্ষন অপেক্ষা। এ অপেক্ষা বড় মধুর, এ অপেক্ষা ভালোবাসার অপেক্ষা।

14344861_959758267479820_4409023388915481792_n

চমকের বাকি যেটা ছিলো তা হল এই পোষ্টার। ক্রিয়েটিভ এই পোষ্টারের অর্থ অনেক, ভাঙ্গা আয়নাতে চেহারা আবছা হয়ে গেলেও, মনের খেলার কিন্তু অবসান হয় না, মুখে রহস্যের আলো আঁধারি খেলা সর্বদা বিদ্যমান থাকে বেষ্ট অফ লাক, আয়নাবাজি টিম

ট্রেইলারঃ 

(Visited 1,004 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ২ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. মিস করলাম! দেশে না থাকাটা পোড়াবে আয়নাবাজি! অনলাইন এ তো বাংলা সিনেমা আসবেনা! আইফ্লিস্ক এ রিলিজ দিলেও দেখা যেত!! আফসোস! অমিতাভ রেজা অসময়ে রিলিজ দিয়া দিচ্ছে!! বাংলা সিনেমায় লাগুক এই পরিবর্তনের হাওয়া।

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন