অল্প কথায় “পোড়ামন ২”
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

 

একেবারে গৎবাঁধা গল্প। তবে চকচকে বোতলে পুরান মদ। SiamPujja জুটি ভালো ছিলো। সিয়াম সিনেমার হিরো হিসেবে দেখতে দারুণ, কিন্তু অভিনয় দেখে মনে হলো কমার্শিয়াল সিনেমার টোন ঠিকমত ধরতে পারেনি, ভালো গ্রুমিং করিয়ে আনা দরকার ছিলো। পূজা আবার উল্টো। পুরোদস্তুর নায়িকা। শুধু তার ক্যানক্যানে ভয়েসটা বারবার কানে লেগেছে, একটা আবৃত্তির কোর্স করালে ঠিক হয়ে যাবে আশা করি। সিনেমায় সবচেয়ে ভালো লেগেছে Sayed Babu, দূর্দান্ত! সাথে সুজন-পরীর ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয় করা বাচ্চা দুইটাও দারুণ পারফর্ম করেছে, স্পেশালি ছেলেটা। মুভির কিছু জায়গায় সংলাপ কথোপকথন একেবারে সাবলীল ছিলো, ফিল্মিক না, আমরা ঘরে বাইরে যেভাবে কথা বলি তেমন, ভাল্লেগেছে এটা। ওভারঅল চিত্রনাট্য মোটামুটি। দর্শক যতবার মুভি দেখতে দেখতে একঘেঁয়ে হয়ে যায়, পরিচালক ততবারই স্ক্রীনে দূর্দান্ত সিনেমাটোগ্রাফি ঢুকিয়ে দিয়েছে। এই বুদ্ধিমত্তা ভালো লেগেছে, তবে শক্ত গল্প আর চিত্রনাট্য পেলে দারুণ মুভি হতে পারতো এটা। মুভির ডিটেইলিং অনেক ভালো লেগেছে, পরিচালক Raihan Rafi অনেক সূক্ষ্ম সূক্ষ্ম বিষয়েও নজর রেখেছেন। সেলাই মেশিনের পাশে সুতার গুটির ঝুড়ি থেকে শুরু করে পুরো সেট ডিজাইন। পূজার কস্টিউম ডিজাইন যে করেছে তাকে ধন্যবাদ, দারুণ ছিলো। পূজার মেকাপ আর্টিস্টকে ধিক্কার, কিছু জায়গায় খুব খারাপ ছিলো। মুভিতে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক চমৎকার। গানগুলোও সুন্দর, তবে সালমান শাহকে উৎসর্গ করা গানটা ভারতীয় শিল্পীদের দিয়ে করানো ঠিক হয়নি। একমাত্র যে কারণে পুরো মুভি মনোযোগ দিয়ে দেখেছি, সেটা হলো লোকেশন। বাংলাদেশের অদ্ভুত সুন্দর এক এলাকায় পুরো মুভির শুটিং হয়েছে।

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন