Invictus-শুধুই একটি মুভি নয়, তারচেয়েও বেশী কিছু! আরও একটি মাস্ট সি মুভি…:D

 

Invictus (2009)
Genre: Sports Drama
IMDB Rating- 7.3
RT “Fresh” Rating- 75%

এটি আমার সবচেয়ে প্রিয় মুভিগুলোর মধ্যে একটি। এতে অভিনয় করেছেন মরগান ফ্রীম্যান এবং ম্যাট ডেমন। দুজনই আমার খুব প্রিয় অভিনেতা। ফ্রীম্যান তো সবসময়ই অসাধারণ, ম্যাট ডেমন এর কিছু মুভি যেমন Bourne সিরিজ বা Good Will Hunting দেখার পর থেকে আমি তাঁর ও বিশাল ফ্যান বনে গেছি! আর পরিচালনায় আছেন কিংবদন্তী ওয়েস্টার্ন অভিনেতা ও স্পোর্টস ড্রামা মুভির বস পরিচালক Clint Eastwood! 

এটি ১৯৯৫ সালে সাউথ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত রাগবি বিশকাপে সাউথ আফ্রিকা দলের নেপথ্যের কাহিনি নিয়ে তৈরি হয়েছে। এছারাও এই মুভিটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ পার্ট হচ্ছে, এটিতে নেলসন ম্যান্ডেলা এবং তাঁর কারাবাসের ঠিক পরের সময়টাও উঠে এসেছে। মুভিটিতে দেখা যায়, কীভাবে একজন রাষ্ট্রপ্রধান তাঁর দেশের অস্থির অবস্থাকে স্বাভাবিক করার জন্য খেলাকে ব্যবহার করতে পারেন।

 

 

নেলসন এর আগে সাউথ আফ্রিকায় সবকিছুতেই দাপট ছিলো সাদাদের, কিন্তু নেলসন ভোটে জয়লাভ করার পর থেকেই পরিস্থিতি পরিবর্তন হতে থাকে এবং কালোরা তাঁদের ন্যায্য অধিকার অর্জন করতে শুরু করে। সাউথ আফ্রিকার জাতীয় রাগবি দলটিও এর ব্যতিক্রম নয়, কিন্তু নেলসন এসেই ঘোষণা দেন যে সাদা বা কালো কারো যোগ্যতার মাপকাঠি হতে পারে না…এবং খেলোয়াড়ি দক্ষতাই হবে দল নির্বাচনের একমাত্র মাপকাঠি। এতে সাদা খেলোয়াড়রা তাৎক্ষনিকভাবে শান্ত হলেও অন্তরকলহ কিছুটা থেকেই যায়। শুধু খেলোয়াড় নয়, পুরো দেশের সব মানুষের মধ্যেই রেসিজম (বর্ণবাদী) এবং এর কারনে সৃষ্ট অবিশ্বাস চরমে ওঠে। 

 

নেলসন ঠিক করেন দেশের মানুষকে একাট্টা করতে হলে রাগবি দলটিকে আগে ভালো ফলাফল করাতে হবে। তাই তিনি নিজে দলের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে শরিক হন, দলকে উৎসাহ দিতে সম্ভব সবকিছুই করতে থাকেন। কিন্তু টুর্নামেন্ট এ সাউথ আফ্রিকা দলের চেয়ে শক্তিশালী বেশ কয়েকটি দল আছে, আরও আছে মহাপরাক্রমশালি “অল ব্ল্যাকস” নিউজিল্যান্ড। শক্তির বিচারে পুঁচকে সাউথ আফ্রিকা কি পারবে বড় বড় দলের সাথে পাল্লা দিতে? শুরু হয় এক অসম্ভবের পথে দলটির ছুটে চলা!!

 

 

মুভিতে নেলসনের চরিত্রে মরগান ফ্রিম্যান এর পারফরম্যান্স ছিল অতিমানবীও, মুভিতে তাঁর voice এ আবৃতি করা একটা অসাধারণ কবিতা শুনুন-

 

Out of the night that covers me,
Black as the Pit from pole to pole,
I thank whatever gods may be
For my unconquerable soul.

In the fell clutch of circumstance
I have not winced nor cried aloud.
Under the bludgeonings of chance
My head is bloody, but unbowed.

Beyond this place of wrath and tears
Looms but the Horror of the shade,
And yet the menace of the years
Finds, and shall find, me unafraid.

It matters not how strait the gate,
How charged with punishments the scroll.
I am the master of my fate:
I am the captain of my soul. 

By William Ernest Henley

 

“রোবেন” দ্বীপের কারাগারে নেলসনের ছোট্ট কক্ষটি দেখলে বুকের ভেতর কেমন করে ওঠে, আসলেই একটা মানুষ এত বেশী কষ্ট সহ্য করার পরও কীভাবে এতটা অহিংস হতে পারে? সর্বকালের অন্যতম সেরা একজন নেতাকে আরও ভালোভাবে, আরও কাছ থেকে জানার জন্য এটি একটি Must See মুভি, যারা দেখবেন তাঁরা ঠকবেন না…:D

টরেন্ট ডাউনলোড লিংক- http://kat.ph/invictus-2009-dvdrip-eng-fxg-t4009680.html

অথবা http://kat.ph/invictus-2009-dvdrip-xvid-1337x-x-t4009363.html

(Visited 56 time, 1 visit today)

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন