DEXTER – সেলুলয়েড দুনিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় সিরিয়াল কিলার
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

ভূমিকা – বহুদিন আগে এক কিশোর খুন করার পর পুলিশকে স্বীকারক্তি দেয় -‘আমি ডেক্সটারকে নিজের মধ্যে অনুভব করি’ । এখানে ডেক্সটার টিভি সিরিজের সিরিয়াল কিলার ডেক্সটার মরগানের কথা বলা হচ্ছে । এটা এমন এক টিভি সিরিজ যা দুর্বল মনের কোন মানুষের জন্য নয় । এমনকি টিভি সিরিজটি টিভিতে প্রচারিত না করার জন্য আন্দোলন পর্যন্ত হয়েছিল । তবে কোন কিছুই এই টিভি সিরিজটিকে দমিয়ে রাখতে পারিনি । যার মুল কারণ সিরিয়াল কিলারের প্রতি সকলের ভীতি থাকলেও তাদের জীবন, কর্মকাণ্ড ও মনস্তত্ত্ব নিয়ে মানুষের আগ্রহ অসীম । ফলে যেখানে বাস্তব জগতে জ্যাক দ্যা রিপারের মত সিরিয়াল কিলারদের প্রতি মানুসের এত আগ্রহ সেখানে ডেক্সটারের মত সেললুয়েড জগতের সিরিয়াল কিলারদের প্রতি আগ্রহ থাকাটা বলাই বাহুল্য । ফলে এই টিভি সিরিজটি সাফল্যের সাথে ৮টা সিজন শেষ করেছে ।

ডিক্সটার টিভি সিরিজ পরিচিতি – আমেরিকান স্যাটেলাইট নেটওয়ার্ক ‘শো-টাইম’ মাধ্যমে ‘ডেক্সটার’ টিভি সিরিজটির পথ চলা । আমেরিকান বিখ্যাত ক্রাইম নভেলিস্ট জেফ লিন্ডসের ২০০৪ সালে প্রকাশিত ‘ডার্কলি ড্রিমিং ডেক্সটার’ উপন্যাস অবলম্বনে পরিমার্জিত রূপে সিরিজটির প্রথম সিজনটি প্রচারিত হয় । পরবর্তী সাতটা সিজন ডেক্সটার চরিত্রের পূর্ণতা মাত্র । যা চিত্রনাট্যকার আমেরিকান টিভি রাইটার জেমস ম্যানোস জুনিয়রের অসাধারণ প্রতিভার ফসল । ডেক্সটার একটা ক্রাইম থ্রিলার জনরার টিভি সিরিজ । ডেক্সটার মায়ামী পুলিশ বাহিনীতে কর্মরত একজন ফরেনসিক ও ব্লাড স্প্যাটার । এই সমাজে যারা ক্রিমিনাল হওয়া সত্ত্বেও আইনের হাত থেকে বেচে যায় বা আইনের আওতায় আসে না সেসব ক্রিমিনালদের নিখূঁত প্ল্যানিং-এর সাথে মেরে, শৈল্পিকতার (!) সাথে কেটে টুকরো টুকরো করে দরিয়াতে বিসর্জনের এক অতি সাধারণ কাহিনী । তবে অসাধারণ রিয়েলিস্টিক প্লটের কারণে অতি সাধারণ হয়ে অসাধারণে পরিণত হওয়া টিভি সিরিজ এটি । প্রতিটা পর্ব ছোট ছোট প্লট ধরে এগিয়ে এক বড় প্লটে পরিণত হওয়ার কাহিনী । নিখূঁত বিশ্লেষণ , ছোট থেকে ছোট বিষয়ে বিস্তারিত আলোকপাতের মাধ্যমে ডেক্সটার চরিত্রের প্রতি সহানুভূতি ও তার কাজে দর্শকদের সমর্থন নিয়ে আনার এক অসাধারণ কাজ জেমস ম্যানোস জুনিয়র সাফল্যের সাথে করেছেন । সর্বপরি অতি সুদর্শন পুরুষ মাইকেল সি. হল -এর অসাধারণ অভিনয় সিরিজটির প্রতি মনযোগ ধরে রাখার জন্য যথেষ্ট ।

অরিজিন অফ ডেক্সটার – মায়ামী শহরটি আমেরিকার জাদুর শহর । সকল ধর্ম, বর্ণ ও জাতির লোকের বসবাসের জায়গা হওয়ায় এখানকার ক্রাইম রেট অন্যান্য শহর থেকে অনেক বেশি । মাত্র ২০ ভাগ ক্রাইমের কোন কূল কিনারা পাওয়া যায় । বাকিগুলো হারিয়ে চোখের আড়ালে ফাইল বন্দি হয়ে পড়ে থাকে । মাদক ব্যবসা, চুরি, জালিয়াতি, খুন, ধর্ষণ ইত্যাদি অপরাধ এখানে খুব স্বাভাবিক। এমন শহরই ডেক্সটারের মত বহু সিরিয়াল কিলারদের বসবাসের জন্য আদর্শ স্থান । ডেক্সটার মায়ামী মেট্রো পুলিশ ডিপার্টমেন্টের একজন ফরেনসিক ও ব্লাড স্প্যাটার । ব্লাড স্প্যাটারের কাজ হচ্ছে ক্রাইম সিনের রক্তপাতের প্যার্টান এনালাইসিস করে কিভাবে ঘটনা ঘটেছে , সে মূহূর্তে খুনির মানসিক অবস্থা কেমন ছিল ইত্যাদি বের করে তদন্ত কাজে সাহায্য করা । যা তাকে কর্মক্ষেত্রে জনপ্রিয় করে তুললেও সে বেশ চুপচাপ ও আত্মকেন্দ্রিক । তার আপন বলতে ছিল শুধু ডেব্রা মরগান নামের একটি বোন। সেও একই ডিপার্টমেন্টের একজন পুলিশ অফিসার হিসেবে কর্মরত ।

ডেক্সটারের মত সিরিয়াল কিলারদের সাথে অন্য সিরিয়াল কিলার পার্থক্য হলো সে একটি বিশেষ কোড ফলো করে । সে কোডের নাম ‘হ্যারী’স কোড’ । হ্যারী তার পালক পিতার নাম । যিনি পেশায় একজন চৌকশ খ্যাতনামা পুলিশ অফিসার ছিলেন । হ্যারী ডেক্সটারকে এক ক্রাইম সিনে খুঁজে পান । যেখানে ডেক্সটারের মাকে কিছু ক্রিমিনাল একটি কন্টেইনারের ভিতর টুকরো টুকরো রেখে যায় । ডেক্সটার ২টা দিন মায়ের রক্তের উপর বসে থাকে । পরবর্তী জীবনে ডেক্সটারের কিলার সত্ত্বার ক্ষেত্রে এই ঘটনাটি প্রধান ভূমিকা পালন করে । হ্যারী নিজের ছেলের মতই ডেক্সটারকে লালন পালন করতে গিয়ে ডেক্সটারের ভিতর এক ভয়ংকর নিষ্ঠুর কিলার সত্ত্বা আবিস্কার করেন । সে অল্প বয়সেই এলাকার কুকুরদের হত্যার মত নিষ্ঠুর কাজ করতে গিয়ে হ্যারীর হাতে ধরা খায় । হ্যারী দিব্যচক্ষে দেখতে পারছিলেন আগে হোক পরে হোক ডেক্সটারের হাতে মানুষ খুন হবে । অনেক চেষ্টা করেও হ্যারী তাকে পরিবর্তন করতে না পেরে তাকে ট্রেনিং দিতে শুরু করেন । এইভাবে অনেক বছরের সাধনায় ডেক্সটার এক ভয়ঙ্কর কিলারে পরিনত হয় । তবে হ্যারী তার ভিতর কিছু নীতি বাক্য তথা ‘হ্যারী’স কোড’ ঢুকিয়ে দেয় । হত্যা যেহেতু সে করবেই সেহেতু তাকে এমন কাউকে হত্যা করতে হবে যে – সমাজের জন্য বোঝা, যার এই সমাজে থাকার কোনো অধিকার নেই, যারা আইনের হাত থেকে বের হয়ে যাচ্ছে, যারা আইনের আওতায় আসছে না তাদের হত্যা করা যাবে । তবে সকল ট্রেনিং এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে একটি আর সেটি হচ্ছে ধরা না পড়া । যাতে সে ইলেক্ট্রিক চেয়ার এড়াতে পারে । তাই তার খুনগুলো হয় নিখুঁত ও শৈল্পিক (!) ।
.

অর্জন ও জনপ্রিয়তা – ডেক্সটার চরিত্রে অসাধারণ পারফর্মেন্স দেখানোর জন মাইকেল সি. হল টানা পাঁচবার প্রাইমটাইম এমি অ্যাওয়ার্ড এ সেরা টিভি অভিনেতা হিসেবে মনোনীত হন এবং ২০১০ সালে গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ড জিতে নেন । ডেক্সটার টিভি সিরিজটি ২০০৮-২০১১ সাল পর্যন্ত টানা চারবার প্রাইম টাইম এমি এওয়ার্ডে সেরা টিভি সিরিজের ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন পায় । ডেক্সটার সিরিজটি খ্যাতি এতটাই ছড়িয়ে পড়েছিল যে, সিরিজটির নানা রকম আইপ্যাডে ও আইফোনে গেমস বের হয়েছিল । এমনকি মার্ভেল কমিকস ২০১৩ সালে ‘ডেক্সটার লিমিটেড সিরিজ’ প্রকাশ করে !!
.

Miranda Barbour

সিরিজটির সমালোচনা – টিভি সিরিজটি মানসিকভাবে দুর্বল মানুষদের প্রতি খারাপ প্রভাব ফেলে । বিশ্বের অনেক জায়গায় অনেক অপরাধ ডেক্সটার থেকে অনুপ্রাণিত হয়েছিল । যেখানে পিতাকে কুপিয়ে হত্যা , ভাইকে শ্বাস রুদ্ধ করে হত্যা ও এক ব্রিটিশ তরুণের দুই তরুণী হত্যা অন্যতম (Mark Twitchll, Miranda Barbour ও Andrew Conley নাম উল্লেখযোগ্য ) । এই অবস্থায় প্যারেন্টস প্রটেকশন কাউন্সির নামক সংগঠন সামাজিক যোগাযোগ , মাধ্যমে ব্যাপক আন্দোলন করে যাতে সিরিজকে টিভিতে না দেখানো হয় । যদিও খুব একটা লাভ হয়নি । ব্যাপক দর্শক প্রিয়তার কারণে এই সিরিজটি বন্ধ করার সম্ভব হয়নি ।

প্রিয় ডাইলগ-
We all make rules for ourselves. It’s these rules that help define who we are. So when we break those rules we risk losing ourselves and becoming something unknown” – Season 7 Finale
I love Halloween. The one time of year when everyone wears a mask… not just me. People think it’s fun to pretend you’re a monster. Me, I spend my life pretending I’m not. Brother, friend, boyfriend – All part of my costume collection. Some people might call me a fraud. Let’s see if it will fit. I prefer to think of myself as a master of disguise.
“They make it look so easy, connecting with another human being, it’s like no one told them it’s the hardest thing in the world.” -Dexter
“Surprise motherfucker” – Sgt. Doakes
“I’m a very neat monster.”
“Monsters don’t get to live happily ever after.
“Dating is hard… especially for a serial killer”
“People fake a lot of human interactions, but I feel like I fake them all, and I fake them very well.”

উপসংহার – দয়া করে ভয় পাবেন না । এই টিভি সিরিজটি নির্দ্বিধায় দেখে ফেলেন । আশা করি সিরিয়াল কিলার হবেন না । নাকি হবেন ? চান্স নিয়ে দেখবেন নাকি ? এমনিতেই বাংলাদেশে ওর্য়াল্ড ক্লাস সিরিয়াল কিলারের বড্ড অভাব । 📷😉

কৃতজ্ঞতাঃ বিভিন্ন ব্লগ ও নেট জগত । 

Dexter (2006–2013)
Dexter poster Rating: 8.9/10 (425,947 votes)
Director: N/A
Writer: James Manos Jr.
Stars: Michael C. Hall, Jennifer Carpenter, David Zayas, James Remar
Runtime: 55 min
Rated: TV-MA
Genre: Crime, Drama, Mystery
Released: 01 Oct 2006
Plot: A Miami police forensics expert moonlights as a serial killer of criminals whom he believes have escaped justice.

এই পোস্টটিতে ১৮ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Najmul Hasan says:

    That was my favorite show. Waiting for next season.

  2. Parag Das says:

    Dexter fan here. It’s Dexter Morgan. Not Martin. Thanks.

  3. আমার দেখা অন্যতম সেরা সিরিজ

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন