২টি ভিনদেশী প্রতিশোধের গল্প


মনে আছে, কয়েকদিন আগে প্রতিশোধমমূলক কাহিনীর উপর ভিত্তি করে নির্মিত তিনটি সাউথ ইন্ডিয়ান মুভির কথা লিখেছিলাম? চলুন, আজ সেই একই বিষয়ের উপর তৈরি অন্য ভাষার দুটো মুভি নিয়ে আজ আলোচনা করা যাক। এই দুটির মুভির একটি জাপানিজ ও অন্যটি কোরিয়ান ভাষার মুভি। তবে দুটো মুভির মধ্যে একটা দারুণ মিল আছে কিন্তু। এই দুটি মুভিতেই একজন করে মায়ের গল্প বলা হয়েছে।
তাহলে শুরু করা যাক।

1. Montage (2013)
কোরিয়ান ভাষার এই মুভির গল্পের শুরুতে আমি বুঝতে পারিনি, গল্পের শেষটা এমন হয়ে দাঁড়াবে। গল্পের শুরুটা হয়, একজন মায়ের সন্তান হারানোর বেদনা ও আর্তনাদের মধ্যদিয়ে। তিনি ১৫ বছর আগে, তার সন্তানকে হারালেও এখন পর্যন্ত পুলিশ সেই মামলার কোন কূলকিনারা করতে পারেনি। ফলে মামলা চলাকালীন সময় পার হয়ে যায় ও কোর্ট মামলাটিকে বন্ধ করে দেয়। কিন্তু হাজার হোক,মায়ের মন তো। এতো সহজে মেয়ের খুনিকে কী করে ছেড়ে দিবেন তিনি? তাই পুলিশের সাহায্য ছাড়াই বেরিয়ে পড়লেন নিজেই খুনীকে খুঁজে বের করতে। আর ঠিক তক্ষুনি, পনেরো বছর পর, খুনি একই পথ অনুসরণ করে অন্য একটি শিশুকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। তাহলে কী খুনি ফিরে এসেছে? এবার কী সন্তানহারা মা পারবেন তার কন্যা হত্যার বিচার করতে? পুলিশ কী এবার সফল হবে সেই পনেরো বছর আগের খুনিকে গ্রেফতার করতে? এই প্রশ্নগুলোর উত্তর পাবেন মুভিতে।

আমার নিজের কাছে মুভিটি বেশ ভালো লেগেছে। প্রথম ১৫ মিনিট তেমন উত্তেজনা অনুভব না করলেও পরের বাকিটা সময় সেই টানটান উত্তেজনাতে কেটেছে। থ্রিলার প্রেমীদের অবশ্যই দেখা উচিৎ। মুভিটার বাংলা সাবও রয়েছে।

2. Confessions (2010)
এই মুভিটা জাপানিজ। মুভির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কেমন যেন একটা ঘোর কাজ করেছে আমার মগজে। এতো ধীরগতিতে মুভিটা শুরু হয়েছিলো যে কখনো ভাবতেও পারিনি, এতোটা চমকপ্রদ কাহিনী পাবো। মুভির প্রথম দৃশ্য দেখানো হয়, একটি স্কুলের একটি ক্লাসরুম। একদল কিশোর কিশোরী সেই ক্লাসে হৈচৈ, হাসি- তামাশাতে মেতে আছে। তাদের প্রত্যেকের হাতে একটি করে লিকুইড দুধের প্যাকেট। তারপর দেখানো হয়, তাদের শ্রেণী শিক্ষিকা। সেদিন শুধু তাদের গ্রীষ্মের ছুটির আগের শেষ ক্লাসই ছিলো না, তাদের শিক্ষিকার স্কুলের শেষদিন ছিলো। যদিওবা এতে তাদের মনে কষ্টের ছিটেফোঁটাও লক্ষ্য করা গেলো না। তাদের মনে যাই থাকুক না কেন, তাদের শিক্ষিকা শেষবারের মতন তাদের একটা গল্প বলতে চাইলেন। তার জীবনের গল্প। আর তার জীবনের সেই গল্পে শুধু তার কন্যাকে হারানোর শোকইই বেরিয়ে আসলো না পাশাপাশি বেরিয়ে এলো একটি নির্মম সত্য কাহিনী। আর এই কাহিনী এই ক্লাসের তিনজন ছাত্র- ছাত্রীর জীবনকে পুরোপুরিভাবে পাল্টে দিলো। ভালোভাবে নাকি খারাপভাবে সেটা দেখে জেনে নেবার ভার আপনাদের উপর সমর্পণ করলাম।

অসাধারণ মুভি! আমাদের প্রত্যেকের ভেতরে আলাদা একটা সত্তা আছে। আমরা যা বাইরের দুনিয়া থেকে লুকিয়ে রাখতে চাই।কিন্তু কিছু কিছু মানুষের সেই সত্তাটি এতোটাই নিষ্ঠুর ও পাশবিক যে তা যখন উন্মুক্ত হয়, তা অন্য মানুষের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আর এমন কিছু মানুষের আত্মস্বীকারোক্তি জানতে পারবেন আপনি এই মুভিতে। এটার বাংলা সাবও খুব শীঘ্রই পেয়ে যাবেন।

আশা করি, মুভিগুলো ভালো লাগবে। ডাউনলোড লিংক চেয়ে লাভ নেই।আমি মুভি নামানোর সাথে সাথে দেখিনা। তাই ডাউনলোড লিংকও রাখি না। ধন্যবাদ 😊

(Visited 925 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ৫ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Pankaj Bose says:

    তুহিনের প্রত্যাবর্তন কনফেশন টা নামাইও

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন