Kong Skull Island : “কং” নামক গরিলা রাজা ফিরে এলো নতুন রূপে, নতুন গল্পে
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

“King Kong” মুভিটা এখনো দেখেননি এমন লোক খুঁজে পাওয়া এই যুগে কঠিন। এখন আপনি হয়তো ভাবছেন, আমি এই কথাটি কেন বলেছি। দাঁড়ান বলছি। কারণ কিং কং নামক মুভিটি শুধু প্রথম ১৯৩৩ সালেই মুক্তিপ্রাপ্ত হয়েছে এমন কিন্তু নয়, এটি পরেও ১৯৯৭ ও ২০০৫ সালে আরো দুইবার পুনরায় নির্মিত হয়। ১৯৩৩ সালের মুক্তিপাওয়া কিং কং মুভিটি রোটেন টমেটোস এর রেটিং অনুযায়ী সর্বকালের অন্যতম ভীতিকর মুভি।আর যারা এই তিনটি মুভির মাঝে একটি হলেও দেখেছেন তারা তো কিং কং নামক সেই দানবীয় আকৃতির গরিলার( বানর প্রজাতির প্রাণী) গল্প তো জানেনই, যে কিনা একটি নিতান্ত সাধারণ মেয়ের প্রেমে পরেছিলো।তারপর কত লড়াই, কত রক্তারক্তি মানবকুলের সাথে তার। অবশ্য শেষে নিজের আস্তানা, নিজের সাম্রাজ্য ফিরে গিয়েছিলো কিং কং। সেই কিং কং কে নয়ে নতুন একটি মুভির কথাই আজ আমি লিখবো।

যাইহোক, আমার এসব বলার পিছনে কারণ শুধুই ইতিহাসে কিং কং নামক এই অদ্ভুত চরিত্রের সাথে আপনাদের আরো একটিবার পরিচিত করে আনা। এবার আমি নতুন মুভির কাছে ফিরে যাচ্ছি।

“Kong Skull Island ” আমার নিজের দেখা এই বছরের অন্যতম এডভেঞ্চার- ফ্যান্টাসি র সংমিশ্রণে নির্মিত মুভি। মুভির গল্পে শুধু যে মিলিটারি অস্ত্রবলের অস্থির প্রয়োগ ছিলো তাই ই নয় সাথে ছিলো কয়েকজন মানুষের বেঁচে থাকার প্রচণ্ড ইচ্ছাশক্তি, কিছু আবেগ অনুভূতি, কিছু নিষ্ঠুরতার গল্প, কয়েকটি বেশ টান টান কর হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের দৃশ্য ও কং নামক সেই বিশেষ দ্বীপের বিশেষ রাজার মনোরঞ্জন করার মতন উপস্থাপন। ছবি শেষে, আগেরটার মতন আরো একবার কং এর প্রতি আপনার ভালবাসা বিকশিত হবে এইটুকু হলফ করে বলতে পারি।

এবার মুভির গল্পের দিকে একটু নজর দেওয়া যাক। মুভির গল্প গড়ে উঠেছে ১৯৭৬ সালের সময়টির একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে।ইউ.এস মিলিটারি থেকে একটি বিশেষ দল একটি দ্বীপে একটি বিশেষ রকমের মিশন নিয়ে যাত্রা শুরু করে।সেই বিশেষ দলে শুধু একদল মিলিটারি সদস্য ছিলো তা কিন্তু নয় সাথে তাদের একদল সায়েন্টিস্ট, ফটোগ্রাফার, স্পেশাল এজেন্ট এসব নানা রকম পদের লোকজন ও ছিলো। তাদের উদ্দেশ্য ছিলো সেই দ্বীপটির উপর একটি বিশেষ জরুরী গবেষণামূলক মিশন চালানো। কিন্তু তারা জানতো না, এই দ্বীপটি ছিলো কং নামক একজন বিশাল আকৃতির দৈত্য সদৃশ গরিলার রাজ্য এবং আরো একদল উপজাতি সেখানে পরম নিশ্চিন্তে বসবাস করে সেই গরিলার কঠোর পাহারায় ও সুরক্ষায়। কারণ সেই দ্বীপে ভিলেন কিন্তু কং নয় বরং এর থেকে আরো ভয়ংকর কিছু। কিন্তু কি কিংবা কে সেটি? আর সেটির প্রভাব এই ইউ.এস মিলিটারি ও তাদের বাকি লোকদের উপর কিভাবে পরবে? তা জানতে হলে আপনাকে মুভিটি দেখে আসতে হবে।

মুভিটি আজ ঈদের রাতে আমি দেখলাম আর আসলেই দেখে ভালো রকমের বিনোদনই পেয়েছি। যারা একটু মারামারি,লড়াই, এডভেঞ্চার ও ফ্যান্টাসি ভালবাসেন তাদের জন্য অবশ্যই দেখার মতন মুভি। আমার তো চমৎকার লেগেছে। মুভিটি কিন্তু এই বছরে ব্যবসাসফল মুভির মধ্যে সাত নাম্বারেও আছে। তাহলে বুঝে নিন মুভিটি কেন দেখতে বলছি। ধন্যবাদ 😊।

Movie: Kong Skull Island
Release Date: 10 March, 2017
Genre: Action, Adventures,Fantasy
Running Time:118 minutes
Imdb Rating:6.9/10
Rotten Tomatoes Rating:76%

( বি.দ্র: লিংক চাহিয়া লজ্জা দিবেন না। নতুন মুভি সব খানেই পাওয়া যাচ্ছে। একটু খুঁজে নামিয়ে নিন।)

এই পোস্টটিতে ১টি মন্তব্য করা হয়েছে

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন