২০১৮ সালে বলিউডে পছন্দের আলোচিত ও প্রশংসিত সিনেমা

২০১৮ সালে বলিউডে পছন্দের আলোচিত ও প্রশংসিত সিনেমাঃ-

২০১৮ সালে বড় বড় সুপারস্টারদের মুভি ব্যর্থ হলেও, এই বছর তুলনামূলক ভাবে কন্টেন্টনির্ভর ভালো কাজের পরিমাণ ও কদর অনেকগুণে বেড়েছে। অনেকগুলো সিনেমা তুমুল দর্শকপ্রিয়তার পাশাপাশি সমালোচকদের ও মন জয় করে নিয়েছে। তন্মধ্যে আমার পছন্দের বলিউড সিনেমাগুলো নিয়ে আপনাদের মাঝে হাজির হওয়ার চেষ্টা করেছি মাত্র।

🎬“Tumbbad”
গল্প বেড়ে উঠেছে উনিশ শতকের সময়ে জমিদার প্রথা সময়কালীন অভিশপ্ত গুপ্তধনকে ঘিরে৷ ভিনায়াক রাওয়ের সেই ছোটবেলা থেকে গুপ্তধনের প্রতি প্রবল লোভ চলে আসে। আসবে নাই বা কেন!! এ তো ১০০/২০০ মোহর নয়। হাজার হাজার সোনার মোহরের ব্যাপার। তাই লোকচক্ষুর আড়ালে চলতে থাকে ভিনায়াকের গুপ্তধন আত্মসাধের পায়তারা অনুযায়ী কর্মসাধন চলতে থাকে।

দূর্দান্ত সেট ডিজাইন, অভূতপূর্ব ক্যামেরার কাজ, চমৎকার কালার গ্রেডিংয়ের কাজ দেখে আপনি মুগ্ধ হয়ে যাবেন।

শব্দগ্রহণের কাজ ও অনবদ্য। সেই সাথে দারুণ সব সংলাপ। কস্টিউম ডিজাইন ও দারুণ।

অভিনয়শিল্পীদের সাবলীল কাজ যেন গল্পটিতে নিয়ে এসেছে প্রাণের সঞ্চার। পিচ্চি শিশুশিল্পী ছেলেটাও ফাটিয়ে দিয়েছে। আর সোহাম শাহের অভিনয় মনে দাগ কেটে যাবে।

এটাকে রুটিনমাফিক হরর ভেবে এড়িয়ে না গিয়ে, নিজেই পরখ করে দেখুন। নিশ্চিত থাকুক আপনি দারুণ একটি হরর সিনেমা দেখতে যাচ্ছেন।

🎬“Mukkabaaz”
একজন কুস্তিগিরকে ঘিরে আনুরাগ কাশ্যমের আরো একটি অসাধারণ নির্মাণ। দূর্দান্ত সব অভিনয় আর ডায়ালগে আপনিও গল্পটির মোহে মোহিত হয়ে উঠবেন।

🎬“Badhaai Ho”
ট্রেইলার দেখার পর থেকে এই মুভিটা ঘিরে তুমুল আগ্রহ বেড়ে যায়। কারণ গল্পটার সাথে আমি নিজেও পরিচিত। আমার আপন চাচার সাথে একই ঘটনা ঘটেছিলো। যাই হোক, প্রতিনিয়ত এটার জন্য দিন গুণতে গুণতে অবশেষে এইচডি প্রিন্ট পাওয়ায়, দেরী না করে দেখতে বসে গেলাম।

বিশ্বাস করুন একটা সামান্য মুহূর্তের জন্য ও আপনার মনে হবে না, আপনি কোন সিনেমা দেখছেন। একেবারে জীবন্ত প্রত্যেকটি চরিত্র।

নাকুল বিবাহযোগ্য চাকুরীজীবি ছেলে। তার মধ্যবিত্ত পরিবারে তার দাদী, বাবা, মা, ছোট ভাই নিয়ে গড়ে উঠেছে। কিন্তু হঠাৎ নাকুল জানতে পারে তার মা গর্ভবতী। এতে সমাজের লোক আর বন্ধুদের ক্ষেপানোর চিন্তায় বিরক্ত হয়ে উঠে নাকুল। এমনকি নাকুলের দাদী তার বিরক্তি রীতিমতো ঝাড়া শুরু করে নাকুলের বাবা-মায়ের উপর। সমাজের লোকেরাও জানা-জানির পর কিছুতেই ছাড় দিতে চায় না কথা দিয়ে খোঁটা মারা থেকে।

ভীষণ মজার এক সিনেমা। সিরিয়াসলি আপনার মনেই হবে না আপনি সিনেমা দেখছেন। যারা মালায়ালাম রিয়েলিস্টিক গল্পনির্ভর মুভি দেখতে ভালোবাসেন, তারা সত্যি প্রেমে পড়ে যাবেন এই মুভির প্রতি।

সত্যি জীবনটা খুব বড় নয়। পরিবারের সাথে কাটানো সময়টুকু সারাজীবনের সুখময় অনুপ্রেরণার চালিকাশক্তি হয়ে থাকে। সম্ভব হলে মুভিটা পরিবার নিয়ে দেখুন। যেটা আমরা ইদানীং দেখার সুযোগ পাই না কিংবা পরিস্থিতি সেভাবে গড়ে উঠে না।

গল্পটি আপনাকে হাসাবে এমনকি কাঁদাবেও। প্রত্যেকটি চরিত্র আপনি নিজের পরিবারে কিংবা আশেপাশে ঠিক ই উপলব্ধি করতে পারবেন। যাকিনা আপনাকে আরো বেশি সংযুক্ত করবে আলোচিত গল্পটির সাথে।

🎬“Andhadhun”
একজন অন্ধ পিয়ানো আর্টিস্ট আকাশকে ঘিরে গল্পটি আগাতে থাকে। হঠাৎ তার পরিচয় হয় সোফির সাথে। পরিচয় একটা সময় প্রণয়ে পরিণত হয়। মনে হচ্ছিলো রোমান্টিক কমেডি ধাঁচের কিছু দেখছি, কিন্তু গল্পের মোড় ঘুরতে থাকে সিমি চরিত্রের আগমনে। এরপর সিনেমার প্রতিটি মুহূর্ত হয়ে উঠে অদ্ভুতুড়ে অকল্পনীয় রহস্যে ঘেরা সমারোহে।

সিনেমার ক্লাইম্যাক্স দেখে একেবারে ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে যাবেন। ১০০% নিশ্চিত ভাবে বলা যায়, আপনি এমনটা ভুলেও চিন্তা করতে পারবেন না। রীতিমতো আপনি হা হয়ে যাবেন আসলেই কি ঘটছিলো এতক্ষণ তা ভেবে😷

টাবু আর আয়ুশমান খুরানা একে-অন্যকে পাল্লা দিয়ে অভিনয় করে যাচ্ছিলো। কখনো টাবুর অভিনয়ে মুগ্ধ হবেন আবার কখনো আয়ুশমানের সাবলীল কাজে। দুজনেই অসাধারণ কাজ করছে।

ভারতীয় সিনেমা হিসেবে এটা অবশ্যই একেবারে ভিন্ন ধাঁচের দূর্দান্ত লেভেলের কাজ। যার প্রতিটি সেকেন্ড আপনাকে অবাক করে দিবে, আসলেই এটার পরিণতি কি হতে যাচ্ছে?? আর পরিণতি………………..

সময় নিয়ে এই কাজটি অবশ্যই দেখুন। আর ভুলেও একটি মুহূর্ত ও যদি মিস করে যান, হয়তো বা বড়সড় মাপের রহস্য আপনার দৃষ্টির অগোচরে চলে যেতেও পারে। তাহলে তৈরি হয়ে যান, বছরের অন্যতম সেরা ধামাকায় আপনিও শামিল হতে।

🎬“Mulk”
মুসলমান মানেই টেরোরিস্ট এই ধ্যান ধারণা আজো অনেকেই বের হতে পারেন নি!!! এমন এক ইস্যু নিয়ে কোর্টড্রামা নির্ভর অসাধারণ এক সিনেমা মুল্ক। আইএমডিবি বিচার করে এড়িয়ে গেলে, সত্যি আপনি অনেক বড় ভুল করবেন।

🎬“October”
হোটেলে কাজ করা কিছু কর্মীকে ঘিরে গল্পটি এগিয়ে যেতে থাকে। হঠাৎ দানিশের কলিগ শিউলির আকস্মিকভাবে দূর্ঘটনা মেয়েটি কোমায় চলে যায়। কিন্তু শিউলির প্রতি দানিশের না বলা কথাকে ঘিরে দানিশ শিউলির প্রতি প্রবল অনুরাগ বাড়তে থাকে। হাসপাতাল ঘিরে অপেক্ষার সে পালা চলতে থাকে জীবনের নতুন জয়গান খোঁজার অপার পথচলায়।

🎬“Padman”
সবচেয়ে কম খরচের প্যাড নিয়ে ভারতীয় এক লোকের বিশ্বজুড়ে সুখ্যাতি পেয়েছিলো। তার ই জীবনী অবলম্বনে নির্মিত সিনেমাটি আপনাকে জীবনের নানান ঘাত-প্রতিঘাতে সিদ্ধান্তে অনঢ় থেকে ন্যায়ের সাথে চলার শিক্ষামূলক সচেতনতা দিয়ে যাবে।

🎬“102 Not Out”
বাবার বয়স ১০০ বছর পেরিয়ে গেছে। অথচ তার ছেলে ৭০ বছর বয়সেই ভেঙে পড়ে মেনে নিয়েছে বৃদ্ধতাকে। তাই বাবা তার ছেলেকে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠানোর জের ধরে জীবন চলার পথে প্রাণবন্ত হতে শেখানোর এক অমায়িক যাত্রায় নেমে পড়ে।

🎬“Raazi”
ছেলে হলেই সম্ভবত বাবার নাম স্ব-গর্বে উঁচু করে দেশ রক্ষার কাজে। কিন্তু মেয়েরা কি সুযোগ পেলে কি তা পারে না?? যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে রচিত গল্পটি বেড়ে উঠেছে এমন ই এক মুসলিম নারীকে ঘিরে। যার বন্ধুর পথচলার সঙ্গী ছিলো দেশপ্রেম।

🎬“Karwaan”
গল্পটি আমাদের আধুনিক সমাজের কিছু চরিত্রকে ঘিরে নির্মিত। যারা আমাদের বাস্তবিক প্রতিচ্ছবি তাদের চরিত্রের আলোকে পরিপূর্ণ রূপে ফুটিয়ে তুলেছে।

আভিনাশ পরিচয়ে বেঙ্গালোরে কর্মরত একজন স্ফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার। যদিও সে দেখতে ভীষণ ভদ্র গোবেচারা স্বভাবের, তবুও তার কাজের অস্পষ্টতা ঠিকই জানান দিচ্ছে। হয়তো সে পরিস্থিতির সাথে নিজেকে মানিয়ে নিয়েছে, কিন্তু তার ভেতরের খুঁজে বেড়াচ্ছে নিজেকে। আকষ্মিকভাবে এক দূর্ঘটনায় আভিনাশের বাবার মৃত্যুতে সে অনেকটা চমকে যায়। তবুও বাবা হারানোর হাহাকার তাকে অতটা স্পর্শ করতে পারে না, কেননা তাদের মধ্যকার সম্পর্কটা ঠুনকো হয়ে গেছে। দায়িত্ব পালনের দরুণ লাশ গ্রহণ করতে গেলে জানতে পারে, তার বাবার লাশ কোচিতে চলে গেছে৷ এমতাবস্থায় বন্ধু শওকত নিয়ে আভিনাশের যাত্রা শুরু হয় বাবার লাশকে ফেরত পাওয়ার মধ্য দিয়ে। শওকতের অদ্ভুতুড়ে নানান হাস্যকর কান্ডের মধ্য দিয়ে রোমাঞ্চকর যাত্রাটি আরো পেচিয়ে যেতে থাকে।

হিলারিয়াস সংলাপ আর ঘটার পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে ঘটা রোমাঞ্চকর ঘটনাটির মধ্য দিয়ে ড্রামা ধাঁচের গল্পটিতে বিন্দুমাত্র ক্লান্তি মনোভাব আসার জো নেই।

ইরফান খান তার চরিত্রে অনবদ্য। তার কমিক চরিত্রটি সিনেমার মূল প্রাণ বলা যায়। দুলকার সালমানের কাজ ও যথেষ্ট পরিচ্ছন্ন। তাকে এমন ইমেজে আগেও মালায়ালাম সিনেমা দেখা গেলেও এবারের দুলকার অনেকটা পরীক্ষিত। চরিত্রানুযায়ী তার সুনিপুণ অভিনয়ের ছাপটা ফুটে উঠেছে। মিথিলার কাজ ও ভালো, যদিও এটি তার কম্ফোর্ট জোনের ই একটি চরিত্র।

এছাড়াও বিশেষ চরিত্রে আমালা আক্কিনেনি এবং কৃতি খারবান্দার কাজ অসম্ভব ভালো ছিল। যাকিনা সিনেমায় অনেক বড় ইম্পেক্টফুল ও বটে।

গল্প বিন্যাসে মধ্যে বিন্দুমাত্র বাড়তি সংযোজন অথবা টেনে বড় করার ক্লিশে ভাব দেখা যায়নি।

তাহলে আর দেরী কেন!!! রিফ্রেশ মাইন্ডে সময় বের পড়ে বসে পড়ুন এডভেঞ্চারের অভিজ্ঞতার সতেজতার হাতছানির মধ্য দিয়ে দূর্দান্ত এক সিনেমা দেখার স্বাদ।

🎬“Manto”
এমন এক দুর্বার লেখকের জীবনী অবলম্বনে সিনেমাটি নির্মিত হয়েছে; যার লিখার ধার ই যেন হাতিয়ার হয়ে উঠেছে সকল প্রতিকূলতার কাছে।

🎬“Manmarziyaan”
ত্রিভুজ প্রেমের গল্প অনেক দেখেছি। কিন্তু যেখানে আনুরাগ কাশ্যাপের মতো পরিচালকের নির্মাণ থাকে, সেথায় তো ভিন্নতা সাধারণ গল্পেও চলে আসে। ঠিক এমন ই স্বাদ পাবেন এই সিনেমাটি। চমৎকার সব সংলাপ আর পরিচালকের সুকৌশলী গল্পের আবহ পরিবেশনের ভঙ্গিতে আপনিও মোহিত হয়ে পড়বেন।

🎬“Bhavesh Joshi Superhero”
রূপকথার সুপারহিরো তো আর বাস্তবে আমাদের জন্য রূখে দাঁড়ায় না। তাই আমাদের মধ্যে কারোর ই রূখে দাঁড়াতে হয় অন্যায়ের বিরুদ্ধে অপ্রতিরোধ্য হাতিয়ার রূপে। চমৎকার এক সিনেমা। দেখে ফেলুন।

🎬“Raid”
হাস্যকর হলেও সত্যি অনেকে বলেছিলো কেবল এক রেইডকে ঘিরে পুরো সিনেমা শেষ!! এটা কি কোন সিনেমা হলো নাকি?? এক রুমে পুরো রুম সিনেমা বানিয়ে অস্কার নিয়ে আসতে পারলে এক রেইডকে ঘিরে কি ভালো সিনেমা হয় না??

ভীষণ দারুণ এক সিনেমা। নিশ্চিত থাকুন আপনি সিনেমাটি দেখে হতাশ হবেন না।

🎬“Pari”
ব্ল্যাক ম্যাজিক ঘিরে প্রাচীন কুসংস্কারের আদলে ফিকশনাল রূপ হরর সিনেমাটি। বলিউডে সাধারণ এই টাইপ খুব একটা দেখিনি। ভিন্ন টাইপ কিছু দেখানোর চেষ্টা ছিলো। সত্যি বলতে আসলেই সিনেমাটি ভালো হয়েছে৷ দেখে নিন, আপনার ও খুব ভালো লাগবে।

🎬“Beyond the Clouds”
সুখ নামক পাখিটির হাতছানি পেতে মরিয়া আমরা সকলে। কেউ কষ্ট করে অর্জন করিতে চায়, আবার অনেকে কষ্ট ছাড়াই শর্টকাট উপায় অবলম্বনে সুখের শিখরে পৌঁছাতে চায়। বস্তি এলাকায় বেড়ে উঠা ভাই-বোনকে ঘিরে গল্পটি বেড়ে উঠেছে। বড় বোনের কারণে প্রায়শ নানান ঝামেলা থেকে বেঁচে যায় ভাই। কিন্তু একদিন ভাইয়ের দোষের কারণে পুলিশ তার বোনকে জেলে নিয়ে যায়।

সনামধন্য পরিচালক মাজিদ মাজিদির সিনেমাটি সত্যি বলতে আমার মতো আপনাদের ও ভীষণ ভালো লাগবে।

🎬“Love Per Square Foot”
নেটফ্লিক্স আয়োজিত চমৎকার রোমান্টিক কমেডি মুভি। দেখতে পারেন আপনার সময়টা ভালোই যাবে।

🎬“Sonu Ke Titu Ki Sweety”
বন্ধুত্ব আর মেয়ের মধ্যে নাকি সবসময় মেয়েরা জিতে?? কথাটি কি আসলেই সত্যি?? যাই হোক তার ফলাফল। এই সিনেমাটি আমাদের সকল বন্ধুদের জন্য চমৎকার এক ট্রিট বলা যায়।

🎬“Stree”
হরর কমেডি নির্ভর দারুণ এক মুভি। আপনি যেমন ভীষণ মজা পাবেন ঠিক তেমন ই হররের স্বাদ পাবেন।

🎬“Blackmail”
বউ পরকীয়া করে। তাই বউয়ের প্রেমিকের সাথে চলে ব্ল্যাকমেইলের খেলা। দারুণ এক ব্ল্যাক-কমেডি মুভি। খুব মজা পেয়েছি এটা দেখে।

এছাড়াও Pataakha, Padmavaat, Sanju, Parmanu: The Story of Pokhran, Missing মুভিগুলো আমার ভালো লেগেছিলো। প্রত্যাশা করছি ২০১৯ সালেও খুব ভালো কন্টেন্টনির্ভর বলিউড সিনেমা পাবো।

(Visited 705 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ৬ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Tumbbad মুভিটা কোথায় দেখতে পাওয়া যাবে একটু বলতে পারবেন?
    আমি USA তে থাকি, আমাদের এখানকার Amazon Prime/Netflix কোথাওই পাচ্ছিনা.
    ধন্যবাদ.

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন