Our Shining Days (2017)- একটি রিফ্রেশিং চাইনিজ মিউজিক্যাল টিন-কমেডি মুভি

জাপানিজ মিউজিক্যাল টিন-কমেডি “Swing Girl (2004) থেকে তাইওয়ানিজ টিন কমেডি-রোমান্স “Our Times (2015)” যারা পছন্দ করেছেন, তাদের “কাপ অফ টি” হয়ে এসেছে এই চাইনিজ মুভি! উক্ত এ দুইখানি মুভির ব্লেন্ডই বলা যায় অনেকটা- “Our Times” এর মত চশমা পড়া নার্ড  চেহারার নায়িকা , আবার “Swing Girl” এর মত স্টুডেন্টদের (মেয়েদের ভাগ বেশি!) নিয়ে একটা গানের দল গড়ার চেষ্টা- এর মাঝে নব্য সংযোজন প্রাচ্য আর পাশ্চাত্য সংগীতের দ্বন্দ্ব- এই নিয়েই ওয়াং রান পরিচালিত, এ বছরের ২০ জুলাই চীনে মুক্তিপ্রাপ্ত  টিনএজ মুভি “Our Shining  Days”; তবে সব মিলিয়ে বেশ রিফ্রেশিং- যেজন্য এ লেখার অবতারণা!

চেন ঝিং মিউজিক্যাল স্কুলের প্রথম বর্ষের এক বোকাসোকা ছাত্রী- পিয়ানোর চাইনিজ পূর্বপুরুষ বাদ্যযন্ত্র ইয়াংকিন বাজায় আর আরেক বোকা চেহারার পারকেশনিস্ট লি ইউ তার পাশেপাশে থাকে- ট্র্যাডিশনাল মিউজিক সেকশনের ছাত্রছাত্রী বলে তাদের মনে কোন আশা নেই, কারো কাছে দামও নেই। হঠাৎ একদিন ওয়েস্টার্ন ক্লাসিক মিউজিক সেকশনের এক পিয়ানো বাদক ছাত্রকে দেখে চেন ঝিং মানে নায়িকার ভালো লেগে যায়- কিন্তু সেই স্মার্ট ছাত্র তাকে তো  পাত্তাই দেয় না, উল্টো ‘ইয়াংকিন আবার কিসের বাদ্যযন্ত্র ’- সে কথা তুলে অপমানই করে। বোকা নায়িকা তখন সিদ্ধান্ত নেয়- একটা অর্কেস্ট্রা গানের দল খুলে তার সেই ক্রাশকে দেখিয়ে দেবে! কিন্তু লি ইউ ছাড়া কোন ছাত্রছাত্রীই তার গানের দলের ব্যাপারে আগ্রহ দেখায় না, কেটে পড়ে-  শিক্ষকের কাছে বারবার অনুরোধ নিয়ে গেলে তিনি নায়িকাকে ঠেলা দিয়েই বের করে দেন! তখন উপায়ন্তর না দেখে সে গেম-ম্যাগনা পাগল-ঘরকুনো কয়েকজন মেয়েকে গেম কিট কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে মিউজিক প্র্যাকটিসের জন্য ঘর  থেকে টেনে বার করে। এরই মধ্যে আবার স্কুলের চাইনিজ মিউজিক সেকশনে স্টুডেন্ট ভর্তি বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়, কথায় কথায় ঐতিহ্যবাহী আর পাশ্চাত্য ঘরানার সংগীতপড়ুয়া ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে যুদ্ধ লেগে যায়- আর এভাবেই এগিয়ে যায় মিউজিক্যাল কমেডি মুভিটির কাহিনী।

প্রেডিক্টেবল প্লট, বোকা নায়িকার বারবার লুতুপুতু প্রেম নিবেদন, ম্যাগনা কমিকসে আসক্ত কিছু উদ্ভট সাজগুজে বালিকা-  তার মাঝেও মুভিটি প্রাণবন্ত হয়েছে- কমেডি আর অদ্ভুত তারুণ্যের বিশ্বস্ত প্রাণশক্তির গুণে! সাথে সিনেমাটোগ্রাফিও বেশ  ভালো, চোখে প্রায়ই আরাম দেয়;  ২ ডি এনিমেশনের কিছু সুন্দর কাজও দেখা  যায় , বাদ্যযন্ত্র বাজানো আর পারিপার্শ্বিক সব দৃশ্যায়ন-চিত্রায়নও বেশ বিশ্বাসযোগ্য হয়েছে।

আর অভিনয়ের কথা বলতে-  পার্শ্ব সব চরিত্রের ভালো সাপোর্ট তো ছিলই, সাথেএই নায়িকাপ্রধান সিনেমায় নায়িকা শু লুলু (কী নাম! ভালোই 🙂 ) তার কমেডি চরিত্রে ফাটাফাটি অভিনয়ই করেছেন-যেজন্য সিনেমায় হাস্যরস আর বিশ্বস্ততা-দুইই এসেছে!

পুরো সিনেমায় নার্ড চেহারায় থাকলেও  এন্ডিং ক্রেডিটের ইনসেটে  একটা  মিউজিক ভিডিও গোছের ভিডিওতে বড়বেলার কাহিনীমত দেখা যায়- সেখানে নায়িকাকে শিশির ভাবীর মতই সুন্দরী মনে হয়! 😮  :p তারপর নেটে সার্চ দিয়ে দেখলাম- উনি মাহিয়া মাহি আপার চেয়ে  বছর চারেকের ছোট, আর চাইনিজ সামাজিক মাধ্যম উইবোতে তার  ৯ মিলিয়ন+ ফলোয়ার! অবশ্য সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভেসে  আসা ছবিগুলোর চেয়ে এই মুভিতে দেখা গেটআপে অনেক বেশি কিউট মনে হয়েছে!  এ মুভির জন্য সেরা নবাগত অভিনেত্রীর পুরস্কারও পেয়েছেন,  ভবিষ্যতে তিনি এমন আরও কমেডি করলে ভালোই হবে 🙂

সব মিলিয়ে মুভিতে প্রদত্ত রেটিং- ৭/১০  [IMDb তে লেখা রিভিউ- http://www.imdb.com/title/tt7013194/reviews-1 ]

মুভি দেখা শেষেই মনে এসেছিল- আমাদের দেশে খুব সম্ভবত এমন টিনএজ  কমেডি  গোছের কোন মুভি অদ্যবধি তৈরি হয় নি, যদি না “হ্যালো-হ্যালো, ডাইনোসর,  হাউ আর ইউ স্যার”- দেখিয়ে সাড়াজাগানো কোন ডাইনোসর মুভিকে    টিনএজ শিশুতোষ কমেডির আওতায় ফেলা হয়! :p যাই হোক, দিন বদলের  হাওয়ায় নানা জনরার নানা চলচ্চিত্র নিশ্চয় তৈরি হবে, ততদিনে বোরিং লাগা কোন দিনের কোন এক অবসরে কমিক রিলিফ নিতে ইনোসেন্ট-টিনএজ-মিউজিক্যাল ঘরানার এই  চৈনিক চলচ্চিত্রটি দেখা না হয় হয়েই গেল! – সমাপ্ত! 🙂         

পাদটীকা- ট্রেইলার- https://www.youtube.com/watch?v=Qqv9w-F0bgU

নায়িকার কণ্ঠে গান ও মিউজিক ভিডিও- https://www.youtube.com/watch?v=3eboUZeh4rw

মিউজিক ভিডিও ২- https://www.youtube.com/watch?v=ub3-uv3nN4k

মুভি ডাউনলোড লিংক-https://goo.gl/EP67if

 

(Visited 419 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ২ টি মন্তব্য করা হয়েছে

    • রিফাত স্বর্ণা says:

      চাইনিজ না, একটু কোরিয়ান বুঝি- এই চাইনিজ মুভিতে ইংরেজি সাব ছিল, তাই বুঝতে সমস্যা হয় নি 🙂

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন