প্রসঙ্গ: বাংলাদেশি চলচিত্রে মেধা সঙ্কট
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

অগ্নি ২ তে চান্স পাওয়ায় আমাদের অনেকেরই অক্রোশের কারন কলকাতার অখ্যাত হিরো ওম৷ প্রতিদিন ফ্লপ হিরো, ৩য় শ্রেনীর হিরো আরো কতকি বলেই না সম্ভোধন করি তাকে৷
.
কিন্তু একটা ব্যাপার সম্ভবত আমাদের সকলের চোখ এড়িয়ে যাচ্ছে৷ এখনও পর্যন্ত অনলাইনে উন্মুক্ত হওয়া আগ্নি২ এর গান গুলোতে এই ফ্লপ হিরোই যে পারফামেন্স দেখিয়েছে সেটা ঢালিউডের অনেক শীর্ষ নায়কের পক্ষেও অসাধ্য ব্যাপার৷ বিশেষ করে ‘একখান চুম্মু’ গানটায় যে অসাধারন নাচটা নাচলো সেটা শাকিব খান বলুন, আরেফিন শুভ বলুন আর বাপ্পী চৌধুরী বলুন কারো পক্ষেই সম্ভব না৷
.
আমি ওমের পক্ষ নিচ্ছি না৷ ওমের জায়গায় কোন বাংলাদেশী হিরোকে দেখলে আমিই সবচেয়ে বেশি খুশি হতাম৷ আমি শুধু আমাদের চলচিত্রে মেধা শূন্যতাটাকে তুলে ধরতে চাচ্ছি৷ কলকাতায় ভাত পায় না এমন হিরো যগ্যতার দিক দিয়ে আমাদের শীর্ষ নায়কদের চেয়ে এগিয়ে!!! অতএব বুঝুন এবার আমরা কতটা পিছিয়ে!
.
অনেককেই দেখি যৌথ প্রযোজনার সব সিনেমায় কলকাতার নায়কদের দেখে, “দেশে কি নায়কের অভাব পড়ছে?” এ টাইপ কমেন্ট করে৷
_আমি বলব অবশ্যই অভাব আছে৷ মেধাবী নায়কদের প্রবল সংকটা এখানে৷
যৌথ প্রযোজনার সিনেমায় দেশী নায়ক আশা করার আগে সবার ভাবা উচিত৷ ওদের এখানে আমাদের তুলনায় অপেক্ষাকৃত বেশী মেধাবী থাকতে তারা কেন আমাদের চান্স দেবে?
তাছাড়া ওরা যে টাইপ বানিজ্যিক সিনেমা বানায় সেগুলো টেনে নেওয়ার ক্ষেত্রে নায়কদের ভূমিকাই মূখ্য৷ নায়িকার কাজ শুধু গ্ল্যামার দেখানো৷(অগ্নি ২ এর ব্যাপার আলাদা৷)…… তাই নায়িকা যদি সুন্দরী হয় তাহলে ডান্স ও অভিনয়ে একটু কাঁচা হলেও ছাঁড় দিয়ে দেওয়া যায়৷ কিন্তু এক্ষেত্রে নায়কদের দায়িত্ব নায়িকাদের তুলনায় অনেক বেশি৷ নায়কের পারফারমেন্স দুর্বল হলে ফিল্ম ফ্লপ হওয়া সুনিশ্চিত৷ যেখানে ওদের দেব, জিৎ, অঙ্কুশ সোহমরা সব ঠিকঠাক করেও ফিল্মকে ফ্লপের হাত থেকে বাঁচাতে পারছে না৷ সেখানে তারা কেন নড়বড়ে ডান্স আর অভিনয় করা এদেশী হিরোদের চান্স দিয়ে জেনে বুঝে ফিল্ম ফ্লপ করাবে??? একটা সিনেমা প্রযোজনা তো আর চাট্টিখানি কথা নয়….. কোটি টাকার ব্যাপার স্যাপার৷
.

এই পোস্টটিতে ৬ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. পরিচালক রা যদি একটা সুন্দর ছেলে ধরে তারে কালই নায়ক বানায় দেয় তাহলে আপনি কিভাবে তার কাছ থেকে এমন পারফরমেন্স আসা করবেন ।

  2. আমার মনে হয়, নাট্যশালা থেকে অভিনেতা আনা উচিৎ। মোটামুটি সুন্দর এবং ভালো Physique থাকলেইই হবে, সেটাকে কাজে লাগিয়ে ভাল চলচিত্র তৈরি সম্ভব হবে।

    • বিনিজ্যিক ছবির হিরোদের মধ্যে হিরোইক লুক না থাকলে কোন লাভ নাই৷ বাংলাদেশী চলচিত্রে এটারই অভাব৷ সব মেয়েলি হিরো৷

    • তাদেরকে Dashing & Handsome হতে হবে, যদি তারা Action Genre film করে। তবে সব সময় এটা ভালো হয় না। সাধারণ Looks য়েও অসাধারণ Show দেয়া সম্ভব। আর এর প্রমান চঞ্চল চৌধুরীর অভিনীত ‘মনপুরা’।

  3. নায়কের ছেলে নায়ক হবে,এই চিন্তা ধারা বাদ দিলেই বহু মেধবীরা উঠে আসবে।

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন