মুভি রিভিউ | নবাব
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

দক্ষিনী ছবির ফর্মুলায় আরেকটি গতানুগতিক ভারতীয় বাংলা ছবি 

— রমিজ, ২৮-০৬-১৭

ইদানীং আমাদের দুই বাংলার বানিজ্যিক ছবিতে দক্ষিন ভারতের ছবির প্রভাব খুব বেশী দেখা যাচ্ছে। ৮০ কিংবা ৯০ দশকে যেমন মুম্বাইয়ের ছবির প্রভাব ছিলো। শাকিব খান অভিনীত যৌথ প্রযোজনার ছবি নবাবও দক্ষিন ভারতের একশন থ্রিলারের ফর্মুলায় সস্তা ভারতীয় বাংলা ছবি। যা আমাদের দেশী নিম্ন মানের বানিজ্যিক ছবির চেয়ে ভাল; তবে এইটুকু কোন মতেই যথেষ্ট নয়।

নবাব শাকিব খান

নবাব ছবির একটি দৃশ্যে শাকিব খান

গল্প ও চিত্রনাট্য  

নবাবে সবচেয়ে বড় সমস্যা এর জগাখিচুড়ি গল্প। দক্ষিন ভারতের ছবিকে অনুসরন করতে গিয়ে নানা টুইষ্ট আর টার্ন আনার চেষ্টা ছিলো গল্পে। কিন্তু গল্প ভাল না হলে জোর করে চাপিয়ে দেয়া টুইষ্ট এন্ড টার্ন এর কি বা মূল্য আছে ?

তবে গল্পহীন এই ছবিতে ক্লাইম্যাক্সটা গতানুগতিক হলেও ভাল ছিলো। এর জন্য চিত্রনাট্যটিকে গল্পের মতো অর্থহীন বলা চলে না। মোটামুটি ইঞ্জয়েবল ক্লাইমেক্সের কারনে চিত্রনাট্য কিছুটা মার্ক্স দাবী করে। অর্থাৎ চিত্রনাট্য মোটামুটি চলনসই ছিলো।

মেকিং স্টাইল 

”মিডিওক্রিটি এট ইটস্‌ বেষ্ট” বলে একটা কথা আছে। নবাব এর মেকিং স্টাইল ও সেরকমই। একেবারে বস্তাপঁচা না; তবে খুব ভাল বলাও যায় না। তারপরও বাংলা বানিজ্যিক ছবির বিবেচনায় অবশ্যই ভাল।

স্টার পারফরমেন্স্‌ 

শাকিব খানকে দেখতে বেশ সুদর্শন লেগেছে। স্লিম, হিট এন্ড ফিট; একেবারেই বলিউডের নায়কদের মতো। অভিনয়েও সে বেশ সাবলীল এবং উপভোগ্য। তবে তার হাঁটার বা দাঁড়ানোর স্টাইল অনেকটাই ফেইক বা আর্টিফিশিয়াল লেগেছে। এ বিষয়ে বিস্তারিত বলেছি আমি আমার ভিডিও রিভিউ এ … নিচের লিঙ্কে গিয়ে দেখে নিতে পারেন =>>

অন্যদের মধ্যে প্রায় সবাই চরিত্রানুযায়ী ঠিক ঠাক। তবে মূখ্য মন্ত্রী চরিত্রে অপারিজিতা অঢ্য খুব উপভোগ্য ছিলেন।

 

অন্যান্য দিক 

একশন যতটুকু আছে মোটামুটি উপভোগ্য। ডায়লগ চলনসই। মিউজিক অর্থাৎ গান তেমন উপভোগ্য না।

 

সবমিলিয়ে, নবাব গতানুগতিক বানিজ্যিক ভারতীয় বাংলা ছবি; যা দক্ষিণ ভারতের একশন থ্রিলারের ফর্মুলায় নির্মিত। নির্মানের দিক থেকে ছবিটি বস্তাপঁচা বাংলা ছবির চেয়ে ভাল। শাকিব খান এবং অপারিজিতা অঢ্য বেশ উপভোগ্যও। তবে ছবির গল্প বেশ একগেঁয়ে । এই একই ফর্মুলায় ইদানীং প্রায় সব ভারতীয় বাংলা বানিজ্যিক ছবি গুলো বানানো হচ্ছে। একটু পর পর এমন টুইষ্ট যা দর্শকদের দেখতে দেখতে মুখস্ত হয়ে গেছে। আর সবচেয়ে বড় কথা গল্প স্ট্রং না হলে কোন টুইষ্টই ইন্টারেষ্টিং লাগে না। তারপরও মোটামুটি উপভোগ্য  ক্লাইমেক্স এবং শাকিব খান ও অপারাজিতা অঢ্যর উপভোগ্য পারফর্মেন্স এর কারনে আমি নবাবকে মোটামুটি ছবি হিসেবে বিবেচনা করছি।

 

আমার রেটিং ঃ ২.৫/৫* অর্থাৎ ৫০% মার্ক্স্‌ বা গ্রেড B

 

ঈদের দুই ছবি নবাব এবং বস টু এর সংক্ষিপ্ত রিভিও ভিডিওতে দেখুন নিচের লিঙ্কে গিয়ে

এই পোস্টটিতে ৩ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. সিনেমা নামের বোদা এগুলা

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন