ডেপ দ্যা পাইরেটস

depp

যখন যে চিরিত্র সেই চরিত্রে সাবলীল অভিনয়, চরিত্রের একেবারে ভিতরে নিয়ে গিয়ে নিজেকে উপস্থাপন। দর্শক ভক্ত সবার কাছে নিজের পাশাপাশি চরিত্রকেও সমান খ্যাতির শীর্ষে নিয়ে যাওয়া। আর কে হতে পারেন এমন? বল্ছি আমাদের সবার প্রিয় হলিউডের খ্যাতিমান অভিনেতা জনি ডেপের কথা।

আসল নাম জন ক্রিস্টোফার ডেপ, জন্ম আমেরিকার কেনটাকিতে ১৯৬৩ সালের ৯ই জুন। অভিনয়ের পাশাপাশি স্ক্রিন লেখক, পরিচালক, প্রযোজক ও সুরকার।

depp1

১২ বছর বয়সে মায়ের দেয়া একটি গীটার বাজিয়ে সঙ্গীত জীবনে প্রবেশ। তখন থেকেই সুর তুলে চলেছিলেন বিভিন্ন ব্যান্ড গ্রুপে। তার যখন ১৫ বছর বয়স তখন তার মা-বাবার ছাড়াছাড়ি হয়ে যায় আর তার পড়াশোনায় বাঁধা আসে। স্কুল ছেড়ে দেবার পরও সুর থেমে থাকেনি। এরপর ডেপ আবারো চেয়েছিলেন হাই স্কুলে ফিরে যেতে কিন্তু তার প্রধান শিক্ষক বলেছিলেন নিজের স্ব্প্নকে বাস্তবায়িত করে সফল সুরকার হয়ে উঠতে। ডেপ তখন নিজেদের এক ব্যান্ড গরে তোলেন। তবে রেকর্ড সংখ্যক গান হবার আগেই ব্যান্ড এর সদস্যরা একে একে ব্যান্ড ছেড়ে দেন।

২৪ বছর বয়সে জনি ডেপ বিয়ে করেন এক মেক আপ আর্টিস্ট কে। তার সেই প্রথম স্ত্রী তাকে পরিচয় করিয়ে দেন অভিনেতা নিকোলাস কেইজ এর সাথে। নিকোলাস কেইজ ই জনিকে উদ্ভুদ্ধ করেন অভিনয়কে ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে। তথাপি জনি ডেপের পর্দায় আগমন ঘটে ১৯৮০ সালে একটি টেলিভিশন সিরিজের মাধ্যমে। 21 Jump Street নামক ঐ সিরিজের মাধ্যমে ডেপ কিশোর অভিনেতা হিসেবে খ্যাতি অর্জন করলেও তিনি নিজে এতে খুশি ছিলেন না। তাই চলচ্চিত্রে নানারকম চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে অভিনয়কেই আসল পথ হিসেবে বেছে নেন।

জনি ডেপের প্রথম প্রধান চরিত্রে কাজ ছিল ১৯৮৪ সালের ক্ল্যাসিক হরর মুভি A nightmare on Elme Street তে। ডেপ লক্ষ্য করলেন তার ক্যারিয়ার নির্ভর করছে শুধুমাত্র বক্স অফিস হিতের কথা চিন্তা করেই। আর এ ব্যপার নিয়ে ডেপ মোটেও খুশি ছিলেন না। তখন থেকে ডেপ চরিত্র নির্বাচন শুরু করলেন সেইসব যেসকল শুধুমাত্র তাকে আকৃষ্ট করত। বরং তা নয় যা তাকে বক্স অফিস হিট করতে পারবে।

depp2

তারপর ২০০৩ সালের Pirates of The Carribean সিরিজের প্রথম পর্বটি জনি ডেপের জন্য সব্চেয়ে সাফল্য এনে দেয়। সেই সাথে পাইরেট ক্যাপ্টেন জ্যাক স্প্যারো চরিত্রটি দারুন প্রশংসা কুড়িয়ে নেয়। এর পর একে একে পাইরেট্স অব দ্যা ক্যারিবিয়ানের সিকু্যয়ালগুলোও সমান সাফল্য এনে দেয়। এছাড়াও জনি বক্স অফিস সাফল্যকৃত ছবি Sleepy Hallow (১৯৯৯), Finding Neverland (২০০৪), Charlie and the chocolate Factory (২০০৫), Allice in Wonderland (২০১০), The Tourist (২০১০), Rango (২০১১) এবং সম্প্রতি Dark Shadows (২০১২)।

জনি ডেপ Sin City এর পরবর্তী ছবিতে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। এছাড়া ২০১৩ সালের মে মাসে মুক্তি পাবে Lone Ranger ছবিটি।

২০০৪ সালে জনি ডেপ গড়ে তোলেন নিজস্ব প্রোডাকশন কোম্পানি Infinitum Nihil। এই প্রোডাকশন থেকে মুক্তি পায় ২০১১ সালে The Rum Diary, ২০১১ সালে Hugo ২০১২ সালে Dark shadows।

জনি ডেপ তার ক্যারিয়ারে অর্জন করেন অনেক এ্যাওয়ার্ড। ২০০৪ সালে পান স্ক্রীন এ্যাক্টর গিল্ড এ্যাওয়ার্ড আর গোল্ডেন গ্লোব এ্যাওয়ার্ড। ২০০৮ সালে অর্জন করেন এমটিভি মুভি এ্যাওয়ার্ড। ২০১২ সালে ডেপ গিনিজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে তালিকাভুক্ত হোন সর্বোচ্চ আয়ের অভিনেতা হিসেবে।

#san_bio_bb

(Visited 37 time, 1 visit today)

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন