The Railway Man
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

download

পরিচালনা: Jonathan Teplitzky

অভিনয়: Collin Firth, Nicole Kidman

মুক্তি সাল: ২৩শে মে, ২০১৪

download (1)

যুদ্ধের ভয়াবহতা নিয়ে করা অনেক মুভি আমরা দেখেছি। যুদ্ধ পরবর্তী জীবন নিয়েও অনেক মুভি রয়েছে। কিন্তু যুদ্ধে অমানবিক নির্যাতন আর তার পরবর্তী মানসিক যে সমস্যাগুলো অনেকে বয়ে বেড়ান সারা জীবনভর তা নিয়ে করা আমার দেখা এই মুভিটি মনে দাগ কেটেছে। আর তা যদি হয় সত্য ঘটনা অবলম্বনে তাহলে তো কথাই নেই। সত্য ঘটনা নিয়ে অনেক মুভি নির্মিত হয়েছে যা সব সময় জনপ্রিয় হয়েছে। আমার নিজের কাছেও এমন মুভি বেশি ভালো লাগে। তেমনি এক মুভি যা মুক্তি পেয়েছে ২০১৪ সালে আর তার নাম ‘The Railway Man’।

images

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ের এক ব্রিটিশ সৈনিক Eric Lomax কে ঘিরে তৈরী হয়েছে মুভিটি। এরিক তখন সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছিলেন। এমন সময় বন্দী হোন জাপানিজ সেনাদের হাতে। তাকে তখন পাঠানো হয় জাপানিজ শ্রমিক ক্যাম্পে। তার সাথে আরো অনেক ব্রিটিশ সৈনিক ছিলেন। ক্যাম্পে পৌছে এরিক আবিষ্কার করলেন সেখানে আরো ব্রিটিশ সৈনিক ছাড়াও আরো অনেক বন্দী রয়েছেন। যাদেরকে কাজ করানো হচ্ছে থাই-বার্মা রেলওয়ের কাজে। জোরপূর্বক কাজের পাশাপাশি চলত মানবেতর জীবনযাপন। কিন্তু এক সময় এরিকের ওপর নেমে এলো দুর্গতি। তার ওপর চলল অমানসিক নির্যাতন, অপরাধ ছিল কিছু টুকরো-টাকরা যন্ত্রপাতি জোড়া লাগিয়ে একটি রেডিও বানানো। দিনের পর দিন চলতে লাগলো নানা রকম অত্যাচার। এক সময় সেই ক্যাম্পটিতে ব্রিটিশ বাহিনী আক্রমন করলো আর ছাড়া পেলেন এরিক। তারপর পাড় হলো বছরের পর বছর। কিন্তু এরিকের সেই অত্যাচার তার অপ্পর রেখে গেল মানসিক অত্যাচারের ছাপ। এরিককে কুড়ে কুড়ে খেতে লাগলো। এমন অবস্থায় কেমন করে এরিক সুস্থ জীবনে ফিরে যেতে পারবেন? পাশে এসে দাড়ালেন প্রাণপ্রিয় স্ত্রী পেটি আর যুদ্ধের সহযোদ্ধা আর বন্ধু ফিনলে। তখনি জানা গেল সেই ক্যাম্পে এরিকের ওপর অত্যাচারের জন্য যে বেশি দায়ি সেই সৈনিক আজো জীবিত আর বহাল তবিয়তেই আছে। এরিক ছুটে গেলেন সেই স্থানে তার সেই অত্যাচারের প্রতিশোধ নিতে।

images (1)

এরকম এক কাহিনী নিয়ে গড়ে ওঠা ছবিতে অভিনয় করেছেন এরিক চরিত্রে Collin Firth আর পেটির চরিত্রে Nicole Kidman। দুজনের অভিনয় নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। অনেকদিন পর দুইজনের ছবি দেখলাম। আবারো মুগ্ধতা নিয়ে তা দেখা শেষ করলাম। যুদ্ধের সময়ের অত্যচার নিয়ে মানসিক অস্থিরতা নিয়ে জীবন কাটানো সৈনিকের অভিনয় Collin দারুনভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন। একাধারে গম্ভীর মানুষ যিনি সারাক্ষণ ডুবে আছেন নিজের সেই ভয়াবহ স্মৃতি নিয়ে আবার সেই প্রেমিক পুরুষ যিনি প্রথম দেখায় ভালবেসে বিয়ে করেন স্ত্রী পেটিকে। একদিকে ভালবাসার মানুষের চরিত্র আরেক দিকে কঠিন মনের যুদ্ধ সৈনিক। অসাধারণ অভিনয়। Kidman তার অভিনয়ে ফুটিয়ে তুলেছেন সেই স্ত্রীর চরিত্র যেখানে তিনি অবাক হয়ে দেখেছেন স্বামীর কষ্ট আর ব্যাকুল হয়ে আবিষ্কার করেছেন তার কারণ আর পাশে এসে দাড়িয়েছেন সেই কষ্ট থেকে স্বামীকে সুস্থ জীবনে ফিরিয়ে নেয়ার। সাবলীল অভিনয় দক্ষতা আবারো তাকে বড় মাপের অভিনেত্রীর পরিচয় দিয়েছে। Takashi Nagase চরিত্রে যে দুজন তরুণ আর প্রবীণ সৈনিক চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাদেরকেও দিতে হয় অভিনয় দক্ষতার বাহবা। দুজনই তাদের অভিনয়ে ফুটিয়ে তুলেছেন সেই সময় আর বর্তমান সময়ের দৃশ্য আর চরিত্রের কঠোরতা।

1386303942880_1386303942880_r

মুভির দৃশ্যগুলো ছিল দারুন। সেই জাপানীজ ক্যাম্পের রেলওয়ের কাজে নিয়োজিত সকল বন্দী,তাদের জীবনের দুর্দশা ক্যামেরায় উঠে এসেছে দারুনভাবে। আবার বর্তমান সময়ের ইংল্যান্ডের দৃশ্যগুলোও ফুটিয়ে তোলা হয়েছে সুন্দর করে। এরিকের স্বপ্নে যেমন বর্তমান সময় থেকে অতীতে ফিরে যাওয়ার দৃশ্য তা ছিল একেবারে নিখুতভাবে উঠে আসা। সব মিলিয়ে মুভিটি আমার কাছে ভালো লেগেছে খুব।

66325

বাস্তব জীবনের এরিক আর নাগাসি তাদের পরবর্তী জীবনে খুব ভালো বন্ধুতে পরিণত হয়েছিলেন। তাদের বন্ধুত্ব ছিল ২০১১ সালে নাগাসির মৃত্যু পর্যন্ত। এরিক মৃত্যুবরণ করেন ২০১২ সালের অক্টোবরে। মৃত্যুর সময় তার স্ত্রী পেটি তার পাশেই ছিলেন।

বাস্তব জীবনে এরিক ও নাগাসি

বাস্তব জীবনে এরিক ও নাগাসি

এই পোস্টটিতে ১৭ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. এই মুভিটা এখনো দেখা হয়নি। সুন্দর লেখা এবং সেই সাথে ভালো একটি মুভির সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার জন্য ধন্যবাদ।

  2. Simile says:

    মুভি টা দেখা হয়নি কিন্তু সত্য ঘটনার উপর নির্মিত দেখে দেখার আগ্রহ বেড়ে গেলো!! 🙂 আরে আমি বহুদিন পর ব্লগে কমেন্ট করলাম 😛 😛

  3. শাহরিয়ার লিমু শাহরিয়ার লিমু says:

    অনেক দিন পর আপনার লেখা পেলাম। মুভিটা দেখা নেই, দেখবো অবশ্যই। শেয়ারের জন্য ধন্যবাদ।

    ইয়ে, প্লট যদি আরেকটু সংক্ষিপ্ত করে লিখতেন… :/

    • পথের পাঁচালি পথের পাঁচালি says:

      অনেকদিন পরে রিভিউ লিখলাম তো তাই প্লট সংক্ষিপ্ত করার কথা তেমন মনে ছিলনা। তারপরেও অনেক কিছু বাকি আছে। দেখে ফেলো।

  4. ট্রিপল এস ট্রিপল এস says:

    আপনার লেখা রিভিউতে মুভির প্লট টাই আমার বেশি ভাল লাগে। কেমন জানি গল্প পড়ছি মনে হয়…

  5. সুন্দর রিভিউ। বাস্তব ঘটনার উপর নির্মিত মুভিগুলো ভালোই লাগে। শেষ দেখেছি ইনটাচেবলস, দারুণ লেগেছে।

  6. এনামুল রেজা says:

    বাহ। দারুণ গল্পের ছবি তো। দেখে ফেলতে হবে। আপনার রিভিউ ও ভালো লাগলো..

  7. ফরেস্ট গাম্প says:

    গল্পটা দারুন লাগলো, আর লিখেছেন ও বটে।
    লোভ লাগিয়ে দিলেন, লিস্টেড।

    • পথের পাঁচালি পথের পাঁচালি says:

      এটাই তো উদ্দ্যেশ্য 😀 ভালো মুভি কারো বাদ পড়ুক তা চাইনা। দেখে ফেলবেন আর জানাবেন কেমন লাগলো।

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন