অদম্য ইচ্ছার গল্প- নকিং অন হেভেন’স ডোর

                                                 

Knockin’ On Heaven’s Door (1997) (Germany)
Cast: Til SchweigerJan Josef LiefersThierry van WervekeMoritz Bleibtreu
Genre: Action | Crime | Comedy
IMDB Link: http://www.imdb.com/title/tt0119472/
IMDB Rating: 7.7

যখন আপনি জানতে পারবেন যে পৃথিবীতে আপনার সময় ফুরিয়ে এসেছে, আর মাত্র অল্প কদিনের বাসিন্দা আপনি, তখন কি করবেন?
স্বভাবতই আপনার অপূর্ণ ইচ্ছাটা পুরনের চেষ্টা করবেন- সেটাই স্বাভাবিক।
টার্মিনাল ক্যান্সার পেশেন্ট মার্টিন আর রুডিও সেটাই করে “নকিং অন হেভেন্স ডোর” মুভিটিতে।
কিন্তু আর পাঁচজন সাধারন লোকের মত তারা মন-খারাপের ভেলায় ভেসে সেটা করে না… দে ডিসাইড টু গো উইদ আ ব্যাং  🙂

সম্পূর্ণ অপরিচিত মার্টিন আর রুডির পরিচয় হাসপাতালে, মৃত্যুর আগে ডেথবেডে।দুজনেই অল্পবয়স্ক- সাধাসিধা রুডি আর বদমেজাজী চেইন-স্মোকার মার্টিনের বন্ধুত্ব হয় ওভার আ বটল অফ টাকিলা।

সেখান থেকেই মৃত্যুর আগে তাদের সমুদ্র দেখার ইচ্ছাপূরণের আশায় তারা একটি মার্সিডিজ চুরি করে পালায় হাসপাতাল থেকে। দুর্ভাগ্যবশত সেই গাড়িটি আবার এক গ্যাংস্টারের।গাড়িটির খোজেই তাদের পিছু নেয় ওই গ্যাংস্টারের হেঞ্চম্যানদ্বয়- এখানেই কমেডির আবির্ভাব।বেপরোয়াভাবে মার্টিন আর রুডি এরপর ব্যাঙ্ক লুট করে।এদিকে ব্যাঙ্ক-লুটের টাকার সাথেও আরেকটা সারপ্রাইজ পায় তারা… নিজেরা মিলেই একটি লিস্ট বানায় তারা- যা থেকে শেষ ইচ্ছাগুলো পুরন করবে একটি করবে।

এবার শুধু গ্যাংস্টার নয়, ক্লুলেস পুলিশও পেছনে পড়ে তাদের…

অসাধারন শেষ দৃশ্যটি একাই এই সিনেমাটাকে ভালো থেকে মাস্টারপিসে তুলে আনে।আর সেটা জাস্টিফাইও করে কেন কুয়েন্টিন ট্যারান্টিনো এই মুভিটিকে তার দেখা অন্যতম সেরা সিনেমা বলেন।কমেডির সাথে একটা সিরিয়াস থিমকে লাইটলি উপস্থাপন করা হয়েছে,কিন্তু সেটা কখনো মকারিতে পরিবর্তিত হয়না।ইউ উইল বি স্টানড বাই দ্য শিয়ার ব্রিলিয়ান্স অফ ইট !

জার্মান ” ক্লিন্ট ইস্টউড” টিল শোয়েইগার অসাধারন অভিনয় করেছেন মার্টিনের ভুমিকায়।অসম্ভব প্রতিভাবান টিল জার্মানির সর্বকালের সেরা ব্যবসাসফল অভিনেতা ও ডিরেক্টর।যদিও বেশ কিছু হলিউড সিনেমায় ছোট রোলে তিনি অভিনয় করেছেন (Best Known as Sgt. Hugo Stiglitz in Inglourious Basterds ), তাকে ব্যক্তিগতভাবে এভাবে এর আগে দেখিনি।মৃত্যুপথযাত্রী রগচটা মার্টিনের মানসিক অবস্থা কমেডির সাথে সাথে অত্যন্ত মর্মান্তিক ভাবে তুলে ধরেছেন তিনি।

রুডির ভুমিকায় জান জোসেফ লিফারসও অত্যন্ত সাবলীল।মার্টিনের ফয়েল শান্তশিষ্ট রুডি হিসেবে তিনি মনে দাগ কেটে যাবেন।

গ্যাংস্টারের ডানহাত হ্যাঙ্ক হিসেবে থিয়েরি ভ্যান ওয়েরবেক দারুন।তার সাথে ডিমউইট আব্দুলের চরিত্রে আরেক জার্মান সুপারস্টার মরিতজ ব্লিবত্রিউ ( Das Experiment , The Baader Meinhof Complex, Soul Kitchen ) দুর্দান্ত।তার কেরিয়ারের এটা প্রথম দিকের সিনেমা হলেও তার কমিক টাইমিং প্রশংসনীয়।তাদের দুজনের প্রতিটা দৃশ্যই হাসতে বাধ্য করে 😀

স্পেশাল মেনশনঃ মাত্র একটি দৃশ্যে বর্ষীয়ান ইউরোপিয়ান অভিনেতা রুটগার হয়ার ( Batman Begins) জাত চিনিয়ে দিয়েছেন।

“নকিং অন হেভেন’স ডোর” দৃশ্যতই একটি অন্য মাপের সিনেমা।ব্যক্তিগতভাবে সব থেকে অনুপ্রেরনাদায়ক সিনেমাগুলোর একটি হিসেবে মানি মুভিটিকে।

ইউরোপিয়ান সিনেমাগুলো সম্পর্কে একটা কথা আছে সিনেমামহলে- When Drama and Comedy blends well in their movies,It’s too sad to cry.So instead,You SMILE-এই মুভিটিও সেই দলে পড়বে।উপরি পাওনা,মুভির একেবারে শেষে বব ডিলানের সেই বিখ্যাত গানটা মনকে সম্পূর্ণ অন্য একটা জগতে যেন ঠেলে দেয়-একটু মৃদু ভালোলাগা আর একটা চাপা দুঃখের দেশে-এরই নাম তো জীবন 🙂

                                                   

                      720p টরেন্ট ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/1aIgGOR (ইংলিশ-জার্মান ডুয়াল অডিও)

(Visited 96 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ১৩ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. বিহাইন্ড দ্য সিনারি says:

    খুব ভালো লেগেছে

  2. অস্থির লেভেলের মুভি। আমার চরম পছন্দের। লেখার জন্য ধন্যবাদ নিন।

  3. রীতিমত লিয়া says:

    রিভিউ সত্যিই অনেক ভাল লেগেছে। কাহিনীও চমত্‍কার। দেখতে হবে।

    • পান্থ পান্থ says:

      থাঙ্কু 😀
      আর সিনেমাটা কি দেখেছেন ওয়াকার ভাই?
      না দেখলে তাড়াতাড়ি দেখুন,সেরা সিনেমার লিস্টেও চলে আসতে পারে 🙂

  4. হাসান আল মামুন says:

    ইউরোপিয়ান মুভি’র প্রতি আমার সবিশেষ শ্রদ্ধা আছে। আর রিভিউ’র শেষ অনুচ্ছেদ এর সাথে আমিও একমত। অসাধারণ লেখনী। মুভিটা না দেখলেই নয়। অনেক অনেক ধন্যবাদ।।

    • পান্থ পান্থ says:

      ধন্যবাদ আপনার মতামতের জন্য। আর যদি এখনো না দেখে থাকেন তবে দেখে ফেলুন,নাহলে সত্যি বড়সড় মিস করে ফেলবেন মামুন ভাই 🙂

  5. নো এইমস says:

    মুভির কাহিনি সুন্দর… রিভিউও সুন্দর।
    অনেকটা THE BUCKET LIST এর মতো…

    • পান্থ পান্থ says:

      বাকেট লিস্ট আসলে এই সিনেমার রিমেক বলা চলে,তবে সত্যি কথা বলতে এই সিনেমার ধারে কাছেও নেই বাকেট লিস্ট,অন্তত আমি তাই মনে করি।সিনেমাটা দেখলেই বুঝতে পারবেন নো এইমস ভাই 🙂

    • নো এইমস says:

      ডাউনলোডেট… আগামীকাল এইটা দেখবো…

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন