Confessions (2010) |অকল্পনীয় রোমাঞ্চের ডামাডোল |
Share on Facebook0Share on Google+1Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

‘It’s easy to forget what it means simply to live.I’m going to make sure none of you ever use words like ‘I want to die’ so lightly again.’

চাকরি ছেড়ে দেয়ার আগে টিচার Yuko Moriguchi শেষবারের মত ক্লাস নিচ্ছেন। কিছু কথা বলা ছিল তার; যা আগে কখনই শেয়ার করেন নি। কান্ডজ্ঞানহীন স্টুডেন্টদের অবশ্য সে ব্যাপারে কোন আগ্রহই নেই; নিজেদের হৈ-চৈ এ ব্যস্ত। কিন্তু হঠাৎ Yuko Moriguchi (নামটা ভালভাবে মনে রাখবেন ; পুরো দেড় ঘন্টা এই নামটা প্রচন্ড ভোগাবে) বলে ফেললেন, তার একমাত্র শিশুকন্যা যে সুইমিং পুলে ডুবে মারা গিয়েছিলা- সেটা স্রেফ দুর্ঘটনা নয় একটা পরিকল্পিত হত্যা……..

Screenshot_2016-11-22-01-04-58

আর সেটার জন্য সরাসরি দায়ী এ ক্লাসেরই দুজন ছাত্র। তাদের তিনি সম্বোধন করলেন Student A আর Student B হিসেবে। যেহেতু Juvenile Law of 1947 এর বদৌলতে খুনি কিশোরদের কোন শাস্তিই হবে না; তাই তিনি প্রতিশোধের ভিন্ন পথ বেছে নিয়েছেন। ওই দুই কিশোররের খাবার দুধে এইডস আক্রান্ত রক্তের কিয়াদাংশ মিশিয়ে।

Screenshot_2016-11-22-00-21-02

ব্যাপারটা ভয়ানক। ছবির একদম শুরুর ঘটনা কেবল। দর্শক সহজেই A আর B কে আইডেন্টিফাই করতে পারবে। কিন্তু এতো কেবল মূল কাহিনীর ১০০ ভাগের ১ ভাগ। এ খুনের কার্যকারণ, টিচারের পৈশাচিক প্রতিশোধ, আর চুড়ান্ত ফলাফল এখনও ঘোর অন্ধকারে সেই উত্তর মিলবে ছবির শেষ বিন্দুতে গিয়ে।

বলেছিলাম টিচার Yuko Moriguchi র কথা। একদিকে প্রতিশোধস্পৃহায় দগ্ধ নারী আর অন্যদিকে পেশাগতভাবে একজন শিক্ষক। জীবন ‘ সম্পর্কে তার শিক্ষা (অথবা রিভেঞ্জ) কতটা ভয়ানক হতে পারে — এ ছবি দেখার আগে কেউ চিন্তাই করতে পারবে না। তবুও সিনেমাটা পুরোপুরি রিভেঞ্জ ঘরনায় ফেলা যাবে না; মৃত্যুভীতি নিয়ে বেঁচে থাকার ব্যর্থ চেষ্টা (Student A), আর বেঁচে থেকেও স্বীকৃতি না পাবার কষ্টের সাথে প্রিয়জনকে না পাবার ভয়াবহ টানাপোড়েন  (Student B) দুটোই মানুষকে যুক্তিহীন উন্মাদে শ্রেণীভুক্ত করে। এই ধারণাটা সিনেমায় তুলে ধরার প্রয়াস ছিল বলেই ছবিটা জীবনবোধ সম্পর্কে এক অজানা মতাদর্শের মুখোমুখি দাঁড় করায়।

আরেকটা ব্যাপার- ছবির ক্ষণে ক্ষণে নির্মাতা ইচ্ছাকৃতভাবে ধীরগতি’র দৃশ্য যোগ করছেন, ঝিমিয়ে দিতে নয় ছবিতে নতুন একটা গতি এনে দিতে। দৃশ্যায়ণ আর ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিকটাই কেমন যেন ঠান্ডা নিথর দেহে শিহরণ এনে দেয়ার মত। মূল কাহিনী যেখানে শেষ ভেবে দর্শক যতবার গতানুগতিক কিছু পাবার আশা করবেন, ততবার আশায় গুড়ে বালি’! এ ছবি প্রতি মুহুর্তে চিন্তা উজার করার সুযোগ দেবে আর তার সাথে অকল্পনীয় মোড়; ভাববেন ‘এখানেই শেষ?’ যদিও…. শেষ অব্দি এছবির শেষ’ বলে আসলে কিছু নেই।

Screenshot_2016-11-22-00-19-43

 

হাতে গোনা যেসব ছবি দেখার আগ পর্যন্ত মানসিক প্রস্তুতির প্রয়োজন; Confessions সেই সারির সিনেমা আসলে। এক আধবার নয়, অগণিতবার আপনাকে বিস্ময়ের ঘোরে ফেলবে। প্রশ্ন হল- ” দর্শক কি আদৌ এর জন্য প্রস্তুত?’

সবশেষে, জাপানিজ এই মুভিটা দেখে মনে হচ্ছে; জাপানিজরা উইয়ার্ড’ শব্দটাকে জন্মগতভাবে নিজের করে নিতে জানে। নিজের করে নিতে শিখেছে আসলে। না হলে এমন উদ্ভট চিন্তাভাবনার শৈল্পিক উপস্থাপন কেবল কল্পনাতেই থাকত, সেলুলয়েডে তুলে ধরা সম্ভব হত না।

Movie- Confessions

Directed by- Tetsuya Nakashima

Written by- Tetsuya Nakashima

Release dates-5 June 2010

Running time- 106 minutes

Country- Japan

Torrent Link- http://torrentking.eu/movie-2010/confessions-torrents/

Source- Wikipedia, Imdb

Screenshot_2016-11-22-01-49-36

 


মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন