ফাকা কবর আর কয়েকটি লাশের বাস যাত্রা
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

খুব সুন্দর একটা বাড়ী। এক লোক শোফায় বসে আছে। এক মেয়ে চেয়ারে বসে আছে মাথা টেবিলে রেখে, আরেক মহিলা শোফায় শুয়ে আছে কিন্তু কারো সাথে কারোর সম্পর্ক নেই। এরা সবাই মৃত। সকালে কবরস্থানের কর্মীরা কবর ফাকা দেখে । সেখানে লাশ ছিলো না। লাশ গুলোকে সুন্দর করে সাজিয়ে ও নতুন জামা কাপড় পড়িয়ে কারা এখানে রেখে দিলো ?

খাটের পাশের ছোট টেবিলে এক্স ডিটেকটিভ পলের ছবি। পল কে ডাকা হলো কিন্তু পল কিছু বলতে পারে না। কি করে এলো এই ছবি ? ডিটেকটিভ থাকার সময় পলের অনেক শত্রু ছিল তাদের কাজ হতে পারে বলে সন্দেহ করে পল। ডিটেকটিভ সান্দ্রা ইনভেষ্টিগেট করছে।

পলের সস্ত্রীর কবরে কারা যেন অনেক গোলাপ ফুল রেখে যায়। পলের উপর হামলা হয় কিন্তু প্রানে মারে না। এদিকে আরেক বাড়িতেও লাশ পাওয়া গেছে ।  কবর ফাঁকা  । সেখানে আবার পলের ছেলের আকা একটি ছবি দেখা যায়। কি করে এলো এই ছবি ? আর কারাই লাশ নিয়ে তামাশা করছে। ডিটেকটিভ সান্দ্রা ও পলের ছেলের  উপর হামলাকারী কেন আত্ব্বহত্যা করলো। গব্রেয়ার জীবিত না মৃত কেউ জানেনা। কিন্তু গব্রেয়ার টা কে…..।।

জানতে হলে দেখুন সিজন এক।

সিজন ২ ঃ   একটি মেয়ে হাটতে হাটতে মেইন রোডে আসলো। দেখলো বাস দাঁড়ানো। স্বাভাবিকই বাসের প্রত্যাশ্যাই ছিলো মনে মনে । কিন্তু বাসে উঠার পর থমকে দাঁড়ালো। একি দেখলো।  একটা বাসের মধ্যে পনেরো জন যাত্রী। বরফে জমে আছে । পুরো শরীর বরফে জমাট বাধা। সবাই যেন কিভাবে তাকিয়ে আছে।

একটি ফুল সিটের  নিচে পড়া ছিলো । কিন্তু যেখানে বাস ছিলো সেখনে তেমন শীত ছিলনা। তুষার পাতের কথাই আসে না।  বাসের ভিতরে বা বাইরে কোন বরফের চিহ্ন নেই। কিন্তু এরা কি করে বরফে জমাট বেধে মারা গেলো ?? পনের জনের লাশ নিয়ে যাওয়া হলো পোষ্টমডেম করাতে। এদের মধ্যে ছয় জনের নামে মিসিং  রিপোর্ট ছিলো। অনেকের নাম বিগত তিন বছরে কেউ শুনেনি। ছয় মাস আগে মিসেস কেমার সন্তান জন্ম দেয় অথচ তারা হাসবেন্ড জানেনা কেন ?? পুলিশ জানতে পারে মিসেস কিমার পাঁচ বছরের  জন্য একটি ফ্লাট ভাড়া নিয়েছিলো কিন্তু তার প্রতিবেশীরা কখনোও তাকে বা কাউকে আসতে দেখেনি।

কিন্তু সেই বাসা একদম পরিপাটি কেউ থাকে মনে হচ্ছিলো না। মিসেস কেমার স্মৃতি হারিয়ে ফেলেছে কিন্ত কেন হসপিটালের একটি বাচ্চাকে নিয়ে পালালো উনি ?? সিসি কেমারায় সেই বাসটাকে দেখা যায়নি বা কেনো ? কারা সেই মৃত পনেরো জন। রহস্য উদঘাটনে নেমেছে ডিটেকটিভ সান্দ্রা।

দুই সিজনে দুই রকম গল্প বা কাহিনী। সিজন একটা বেশি ভালো লেগেছে। তবে সিজন দুই এর গল্পটাও ভালোছিলো। ফ্রান্সের সিরিজ ভালোই হয় বেশিরভাগ সময়ে। এইবারও তাই।

Les Témoins ( 2014…..), Country : France
Season 2 episode 14

Error: No API key provided.

এই পোস্টটিতে ৪ টি মন্তব্য করা হয়েছে

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন