ইন ‘মুনলাইট’ ব্ল্যাক বয়েজ লুকস ব্লু
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

Moonlight Poster

পিতৃহীন একটি শিশু। মা মাদকসেবী। স্কুলে বুলিদের লাঞ্ছনার ভয়ে ছেলেটি অস্থির। এমনকি কৈশোরেও তাদের হাত থেকে রেহাই পায় না। তাদেরই একজনকে পিটানোর ফলে এলোমেলো হয়ে যায় তার জীবন। টারেল আলভিন ম্যাক্‌ক্রেনির অপ্রকাশিত নাটক ‘ইন মুনলাইট ব্ল্যাক বয়েজ লুকস ব্লু’ অবলম্বনে এমনই গল্প নিয়ে পরিচালক ব্যারি জেনকিন্স নির্মাণ করেছেন ‘মুনলাইট’।

তিনটি খণ্ডে নির্মিত ছবিতে কেন্দ্রীয় চরিত্র শাইরনের জীবনের তিনটি সময় – শৈশব, কৈশোর ও যৌবনের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। প্রথমেই দেখা যায় ছোট শাইরনকে বুলিদের দল তাড়া করে। শাইরন একটি ‘ডোপ হোল’ এ আশ্রয় নেয়। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে হুয়ান। ধীরে ধীরে হুয়ানের সাথে ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠে শাইরনের। হুয়ানের সাথে কথোপকথনের এক পর্যায়ে সে তাকে বলে ‘চাঁদের আলোয় কৃষ্ণাঙ্গদের নীলাভ দেখায়’। কথাটির অর্থ সে তখন না বুঝলেও কথাটি তার মনে গেঁথে যায়। যা ছবির শেষ দৃশ্যে প্রতীয়মান হয়।

ali, moanne and naomi

ছবির প্রধান চরিত্র শাইরনের তিন সময়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন আলেক্স হিবার্ট (লিটল), অ্যাস্টন স্যান্ডারস (শাইরন) ও ট্রেভান্তে রোডস (ব্ল্যাক)। তিনজনের একই চরিত্রে অভিনয়ে সামঞ্জস্যতা ছিল। তিনটি চরিত্রই স্বল্পভাষী ও চেহারায় সবসময় অজানা এক ভয় লক্ষ্য করা যায়। প্রধান চরিত্রের উপর বেশি ফোকাস থাকা স্বত্ত্বেও পার্শ্ব চরিত্রগুলোর অভিনয়ও দারুণ ছিল। প্রথম খণ্ডে হুয়ান চরিত্রে মাহারশালা আলীর শাইরনের সাথে তার গভীর হৃদ্যতা দেখা যায়। প্রথম খণ্ডে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অসাধারণ অভিনয় করেন। অন্যদিকে শাইরনের মা মাদকসেবী পলা চরিত্রে নাওমি হ্যারিসও অভিনয় করেছেন দুর্দান্ত। স্বামীহীন এক নারীর সংগ্রামের মূর্তি সে।  সব সময় তার রাগান্বিত সুরে কথা বলা স্বত্ত্বেও শাইরনের জন্য তার ভালোবাসা প্রকাশ পায় ড্রাগ ট্রিটমেন্ট সেন্টারে মা-ছেলের কথোপকথনে।

পরিচালক ব্যারি জেনকিন্সের একজন মানুষের শৈশব, কৈশোর, ও যুবক বয়সের চিত্র তুলে ধরেছেন। তার পরিচালনা নিখুঁত হলেও গল্প বলা ধরন ছিল মন্তরগতির এবং কিছু বিষয় কোন তিনি পরিষ্কার করেন নি। হুয়ান ও টেরেসার চরিত্র প্রথমে গুরুত্ব বহন করলেও হঠাৎ করেই তাদের অনুপস্থিতির বিষয়টি পরিষ্কার নয়। আবার বুলির প্রতিবাদের কারণে স্কুল থেকে বের করে দেওয়া এবং অন্য কোথায় স্কুল সম্পন্ন না করাটাও ঠিক স্পষ্ট নয়।

In Moonlight black boys looks blue

তবে চিত্রগ্রাহক জেমস ল্যাক্সটনের ক্যামেরার কাজ গল্প ও চরিত্রগুলোকে সুন্দরভাবে চিত্রায়িত করেছে। শাইরনের জীবনের তিনটি পর্যায়কে তিনি আলাদা আলাদা রূপ দিয়েছেন এবং শাইরনের অসহায় ভাব ও পরাজয়ের চিত্র ফুটিয়ে তুলেছেন। শাইরনের হুয়ানের সাথে সাঁতার শেখা, বুলিদের আঘাতের ফলে রক্তাক্ত তার ক্ষোভের প্রকাশ, শেষ দৃশ্যে সমুদ্র তীরে চাঁদের আলোয় তার শৈশবের নিজেকে আবিস্কার করার দৃশ্য ধারণ ছিল অনবদ্য।

সর্বোপরি গল্পে অসম্পূর্ণতা থাকলেও পরিচালনা, অভিনয় ও ক্যামেরার কাজ দিয়ে তা পূরণ করা হয়েছে। একটু মন্থর গতির হলেও একজন আফ্রো-আমেরিকানের জীবন সংগ্রাম সুন্দর ও সাবলীল ভাবে চিত্রায়িত হয়েছে ছবিতে।

Moonlight (2016)
Moonlight poster Rating: 8.1/10 (31,092 votes)
Director: Barry Jenkins
Writer: Barry Jenkins (screenplay), Tarell Alvin McCraney (story by)
Stars: Mahershala Ali, Shariff Earp, Duan Sanderson, Alex R. Hibbert
Runtime: 111 min
Rated: R
Genre: Drama
Released: 18 Nov 2016
Plot: A timeless story of human self-discovery and connection, Moonlight chronicles the life of a young black man from childhood to adulthood as he struggles to find his place in the world while growing up in a rough neighborhood of Miami.

এই পোস্টটিতে ৩ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Arif Billah says:

    আপনার রিভিউতে আপনি ছবির ছোটখাটো বিষয়গুলো উল্লেখ করেছেন। কিন্তু ছবির মূল বিষয়টাই আপনি এড়িয়ে গেছেন। চাদের আলোয় ‘কৃষ্ণাঙ্গ শিশুকে নীল দেখা যায়’ এর অর্থ কি তাও স্পষ্ট করলেন না।

  2. মাহবুবুল হক ওয়াকিম says:

    এটাই মূল গল্প। ফলে স্পয়লার হয়ে যেত। মূলত বর্ণবাদ নিরসনের উদ্দেশ্যে এই উক্তি।

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন