‘মুসাফির’ নিয়ে ফ্লপ পরিচালক আশিকুর রহমানের মিথ্যাচার!!!
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

11823014_10207787772756832_4378713368830404009_o‘বিনা কর্তনে ছবি পাশ’ হলে কি সিনেমা হলে দর্শক বাড়ে? নাকি প্রশংসা জোটে নির্মাতার কপালে? প্রয়োজন মনে করলে সেন্সর বোর্ড ভালো ছবি থেকেও দৃশ্য কর্তন করতে পারে। আবার অতি নিম্নমানের ছবিকেও বিনা কর্তনে ছেড়ে দিতে পারে।
এই সহজ সত্যটি সম্ভবত চলচ্চিত্র নির্মাতাদের বোধগম্য হচ্ছে না। আর তাই নিজেদের ছবিকে ‘বিনা কর্তনে পাশ’ বলে ফাঁকা আওয়াজ দিচ্ছেন তারা। অনেক নির্মাতাই মনে করছেন, সেন্সর বোর্ড কাঁচি চালানো মানে নির্মাতার কৃতিত্ব ক্ষুন্ন হওয়া। এজন্যই কর্তনসাপেক্ষে ছবির সেন্সর সার্টিফিকেট পাওয়ার পর ‘বিনা কর্তনে পাশ’ বলে খবর রটাচ্ছেন।
গত ২৭ জানুয়ারি সেন্সর সার্টিফিকেট পায় আশিকুর রহমান পরিচালিত ‘মুসাফির’। ছবিতে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ। ছবিটির সেন্সর সার্টিফিকেট পাওয়ার পর গণমাধ্যমে ‘বিনা কর্তনে পাশ’ হয়েছে বলে বিবৃতি দিয়েছেন পরিচালক আশিকুর রহমান। কিন্তু সেন্সর বোর্ডে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে ভিন্ন তথ্য।
‘মুসাফির’ ছবিতে আইনসংক্রান্ত কিছু সংলাপ কর্তন করেছে সেন্সর বোর্ড। দৈর্ঘ্যে যা ১ মিনিট ৩৫ সেকেন্ড। এই সংলাপ কর্তনসাপেক্ষেই ‘মুসাফির’ সেন্সর সার্টিফিকেট পেয়েছে। ফলে পরিচালকের ‘বিনা কর্তনে পাশে’র দাবি আর ধোপে টেকে না।
এই জাতীয় মনস্তাত্বিক সমস্যায় আরো অনেক নির্মাতাই এখন আক্রান্ত। সেন্সর বোর্ড কাঁচি চালালেও সে ঘটনা চেপে যান নির্মাতারা অজানা কারণে।
একটা সময় ছিল যখন ছবির সেন্সর সার্টিফিকেট হাতে পাওয়ার পর নির্মাতারা প্রশংসাসূচক চিঠি পেয়েছেন বলে দাবি করতেন। পরে দেখা যায়, সেন্সর বোর্ড এজাতীয় কোনো পত্র কোনো ছবিকেই প্রদান করে না। জানাজানি হওয়ার পর নির্মাতাদের ফাঁকা আওয়াজ দেয়া বন্ধ হয়।

এই পোস্টটিতে ১১ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. জনাব শওকত, এটা মিথ্যাচার কিভাবে হয়!! আর পরিচালক এর দক্ষতাই প্রমান করে যে ছবিতে কোন কাচি পড়েনি!! পরিচালক যদি অজ্ঞতাবশত কিংবা ইচ্ছে করেও এমন দাবী করেন, সে প্রশ্ন তোলার কোন যুক্তিগত ভিত্তি আমি দেখতে পাচ্ছিনা, গঠনমুলক সমালোচনা করুন

  2. পরিচালক আশিকুর রাহমান ফেসবুকে দর্শকদদের সাথে খারাপ ব্যবহার আর অপমান করে-সে তো এমন মিথ্যাচার করবেই!!

  3. ভাইজান এটা দিয়ে মিথ্যাচার করা হয়নি এটা দিয়ে just বুজানো হয়েছে যে ছবিতে খারাপ কিছু নেই।এমন কিছু নেই যা আমাদের সমাজে খারাপ প্রভাব ফেলবে। এই পেজ এর এডমিনদের আমি অনেক বুদ্ধিমান মনে করতাম এবং ভাবতাম বাংলা ফ্লিম জন্য ভালো চান।কিন্তু আসলে তাহা নই।
    ফ্লপ পরিচালক মানে কি? কিস্তিমাত হিট মুভি। gangster returns হিট না করার কারন যখন রিলিজ হয়েছে তখন ফেসবুক বাংলাদেশে বন্ধ ছিলো তাই প্রচার ভালোভাবে করতে পারে নাই আর ছবি নায়ক ভালো ছিলো নাহ।ছবি পরিচালক কে তখন খারাপ বলতে পারবেন যখন মুভিটিতে মেকিং খারাপ ছিলো। কিন্তু এটা মেকিং অনেক ভালো ছিলো। তাই এডমিন হলে যে post মারতে হবে এই চিন্তা বাদ দিন।ধন্যবাদ
    Ashiqur Rahman ভাই always বস।

  4. ভাই শওকত,এতোদিন থেকে ভাবতাম যে এই পেজটায় যারা লিখালিখি করে তাদের মূভি মেকিং এন্ড Concept নিয়ে ভাল আইডিয়া আছে।বাট আপনি কি লিখেছেন মনে হয় না একবার পড়েও দেখেন নাই। সেন্সর বোর্ড দু-একটা লাইন কাটবে এটাই স্বাভাবিক,এটা বলিউড, হলিউড সবখানেই স্বাভাবিক ব্যাপার।আর এজন্য আপনি একজন যোগ্য পরিচালককের নামে এরকম বলতে পারেন না।আশিকুর রহমান ভাইয়ের কোয়ালিফিকেশন সম্পর্কে আপনার ধারনা নাই মনে হয়।আমার মনে হয় না আশিকুর রহমান ভাইয়ের মত ভাল পরিচালক বাংলাদেশে একবারেই নগন্য।আর এসব ক্রিয়েটিভ পার্সনদের ইন্সপায়ার না করে উলটা মিত্থ্যা সমলচনা করতেই ব্যাস্ত। আর “মুসাফির” ছবির কথা আর কি বলবো? আমার মনে হয় না এরকম ছবি বাংলাদেশের ইতিহাসে হয়েছে,এক এক টা একশন সিন শুট করতে যে কি পরিমান খাটুনি গেছে তা একমাত্র মুসাফির টিম ই জানে।সো বায়োস্কোপ টিমকে অনুরোধ করবো যে,এরকম ভুয়া পোস্ট দিয়ে নিজেদের প্রচারনা থেকে বিরত থাকুন।

  5. ashiqur rahman er joto na movie banai tar cheye vaab e besi…kaj kom khota besi type er lok…or movie sob guli e boring

  6. আকর্ষণীয় ডিজাইনের চশমা ও সানগ্লাস ঘরে বসে পেতে চাইলে ক্লিক করুন ড্রিমারস অনলাইন শপ

    ফেসবুক পেজ থেকে বেছে নিন পছন্দের চশমা বা সানগ্লাস আর অর্ডার করুন ফেসবুক থেকেই। সরাসরি পৌঁছে যাবে আপনার ঠিকানায়। পন্য হাতে পেয়ে মুল্য পরিশোধ করুন।
    পেজটিতে লাইক দিয়ে একটিভ থাকুন এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ ।

    ভিসিট করুন https://www.facebook.com/dreamersdreambd

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন