FULL METAL JACKET {দেখুন গভীরভাবে, ভিতরটাকে}

মুভি রিভিউ-[Full Metal Jacket]

imdb রেটিং-৮.৪

আমার রেটিং-৮.২

রটেন টম্যাটো রেটিং- ৯৭% ফ্রেশ

পরিচালনাঃ Stanley Kubrick

লেখকঃ Gustav Hasford (বই), Stanley Kubrick(স্ক্রিনপ্লে)

দৈর্ঘ্যঃ ১ ঘণ্টা ৫৬ মিনিট।

অভিনয়ঃ Matthew Modine, R. Lee Ermey and Vincent D’Onofrio

*** যুদ্ধের মুভি বললেই আমাদের সামনে ভেসে উঠে action এ ভরপুর টানটান উত্তেজনাপূর্ণ কিছু দৃশ্য। কিন্তু Full Metal Jacket আপনার এই অভিজ্ঞতাকে বদলে দিবে। Full metal jacket কথাটি আসলে আসলে ব্যবহার করা হয় রাইফেল-ম্যানদের গুলি বুঝাতে। এই মুভিতে যতটা না যুদ্ধের কথা বলা হয়েছে, তারচে বেশি দেখান হয়েছে সৈনিকদের জীবন কাহিনী। সাথে রয়েছে কৌতুকে ভরা dialouge। পরিচালনায় মুনশিয়ানা  দেখিয়েছেন পরিচালক (Stanley Kubrick)। এছাড়াও Matthew Modni, R.Lee Ermey, Vincent D’onofrio দের অভিনয় এবং camera work ছিল প্রশংসা করার মত। Full Metal Jacket কে আসলে কোনও একটি বই না বলে কতগুলি  খণ্ড খণ্ড বই হিসেবে কল্পনা করা যায়। এর মধ্যে কোনও কোনও অংশ দেখে আপনি হয়ত নিজেই তাদের জীবন কল্পনা করতে পারবেন। আপাতদৃষ্টিতে মুভিটা অনেকটা shapeless বলে মনে হতে পারে। কিন্তু একজন মানুষ যখন চিন্তা করে তখন সবসময় গুছিয়ে চিন্তা করে না। তাই এই ব্যাপারে আমি পরিচালককে ধন্যবাদই দিব।

 

 

*** এই মুভিটির প্লট তৈরি হয়েছে ভিয়েতনাম যুদ্ধকে কেন্দ্র করে। Full Metal Jacket এর প্রধান শক্তি সম্ভবত এর সেট। এত ভাল সেট খুব একটা চোখে পড়ে না। শেষের দিকে এসে একটা সেট কে এতভাবে তুলে ধরা হয়েছে যে আপনার নিজেরও ধারনা হয়ে যাবে sniper কোথায় আছে অথবা ভিয়েতনামের ওই এলাকা কেমন। তবে একটা কথা ঠিক যে মুভি যেভাবে শুরু হয়েছিল সেভাবে শেষ করা হয়নি (তাই imdb থেকে আমার রেটিং কম)। প্রথম দৃশ্য থেকেই  R.Lee Ermey, Vincent D’onofrio দারুণ অভিনয় করে যা সম্ভবত তাদের অভাবেই পরে আর ধরে রাখা যায়নি। তবে এই মুভির কাহিনী নিয়ে কিছু বলার নাই কারন এতগুলি কাহিনী তুলে ধরা সম্ভব না। যারা war based মুভি পছন্দ করেন তারা একবার মুভিটা try করে দেখতে পারেন।

 

*** এক কথায় এই মুভিকে এক অনবদ্য সৃষ্টি হিসেবে মেনে নিতে আমি রাজি আছি। অনেকের এই মুভি দেখে অনেক কিছু খাপছাড়া বলে মনে হতে পারে। কিন্তু একটা মুভিকে গ্রেট বলার জন্য কি কি উপাদান দরকার? চোখ বন্ধ করে মনে মনে একবার চিন্তা করুন, এরপর চোখ খুলে মুভিটি দেখে চিন্তা করুন কোথায় এর ঘাটতি? কথাও খুঁজে পাবেন না বলেই আমার বিশ্বাস। পরিচালনার ক্ষেত্রে বলতে পারি শুধু স্ট্যানলি কুবরিকের নাম। তার কাজ নিয়ে মনে যদি বিন্দুমাত্র সন্দেহ কারো মনে থেকে থাকে তবে আমার তার প্রতি অনুরোধ, আগে তার মুভি গুলি সম্পর্কে যথেষ্ট পরিমাণে লেখাপড়া করুন। এরপর তার মুভিগুলি দেখুন। আপনি নিজে অবাক হয়ে যাবেন এই কারনে যে, একজন মানুষ কি করে তার সামান্য এক মুভির মধ্যে এত প্রতীকী ভাবে,এত স্বাভাবিক আর সুন্দর ভাবে এত চরম সত্য কথা তুলে ধরতে পারে। আমি আমার এই ছোট্ট মুভি দেখার জীবনে তার মত এত প্রতিভাধর পরিচালক যেমন দেখিনি, তেমনি এত সাবলীল ভাবে প্রতীকী ভাবে অপ্রিয় সত্য ঘটনা প্রকাশ করতেও দেখিনি। সত্যি অবিশ্বাস্য, কি করে এই লোক এমনটি করতে পারত? তো সেই স্ট্যানলি কুবরিক যখন এই মুভির পরিচালক তখন কিছুটা নিশ্চয়ই আন্দাজ করতে পেরেছেন যে পরিচালনার দিক দিয়ে এই মুভির অবস্থান কতটা উঁচুতে।

 

*** আগেও একবার বলেছি, এবার আবার বলছি, পুরো মুভি জুড়ে সেট ছিল অসাধারণ। এই ধরনের ডেকোরেশন আমি অন্য কোন মুভিতে পেয়েছি বলে মনে পড়ে না। সেই সাথে অনবদ্য ছিল ক্যামেরার কাজ। এত নিখুঁত আর এত বিশ্লেষণ করে ক্যামেরার কাজ দেখানো হয়েছে যে আপনি পুরোটা দৃশ্য সম্পর্কে ধারনা পাবেন। কার অবস্থান কোথায়, তা থাকবে আপনার নখদর্পণে। সেই সাথে দেখবেন কিছু অসাধারণ এঙ্গেল থেকে নেয়া শট। অনেক সময় বিশেষ এঙ্গেল থেকে শট না নেবার কারনে দৃশ্য বোধগম্যতা হারায়। কিন্তু আমারা এই রকম দৃশ্য দেখতে দেখতে এতটাই অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছি যে এগুলো এখন আর আমাদের চোখে ধরা পড়ে না। সে ক্ষেত্রে এই মুভি দেখতে হবে আপনাকে তাহলে বুঝবেন এতদিন দেখা মুভি গুলোতে কোথায় যেন একটা ঘাটতি থেকেই গিয়েছিল।

 

 

*** এই মুভির শুধু না কুবরিকের সব মুভির বৈশিষ্ট্যই হল তার মধ্যে অনেক দিন মুখে রাখার মত কিছু সংলাপ আপনি পাবেনই। এই মুভি অনেক সিরিয়াস হলেও এতেও আপনি মনে রাখার মত এবং একই সাথে হাসির অনেক সংলাপ পাবেন। কমেডি আর ডার্ক কমেডির জগতকে কুবরিক অনেক উপহার দিয়ে গিয়েছেন। তার মধ্যে এই মুভিও একটি। খেয়াল করে শুনলে অনেক কিছুতেই আপনি বেশ মজা পাবেন। সেই সাথে এই মুভির অর্জনের ভাণ্ডারে রয়েছে অসাধারণ সিনেমাটোগ্রাফি। আপনি নিজেও এর প্রশংসা করবেন বলেই আমার বিশ্বাস।

 

*** এই মুভির সবচেয়ে দুর্বল দিক বলে আমার মনে হয় ২ টি জিনিসকে, প্রথমেই আছে কাহিনীর অ-ধারাবাহিকতা। কাহিনী পুরো সময় জুড়ে আমার কাছে ধারাবাহিক বলে মনে হয় নি। আর এর সাথে রয়েছে স্ক্রিনপ্লে। বলতে দ্বিধা নেই এই মুভির স্ক্রিনপ্লে দেখে মনে হয়েছে এর চেয়ে ভালো কাজ আমি কুবরিকের মুভিতেই আরও অনেকবার দেখেছি। এই ২ টা জিনিসকে আমার আনাড়ি দৃষ্টিতে দৃষ্টিকটু ঠেকেছে। আর এটা আমার সম্পূর্ণ নিজস্ব মতামত। অন্য সবার সাথে এর মিল নাও থাকতে পারে।

*** এতক্ষণ অনেক কথা বলে গেলাম। এই মুভি কিন্তু অস্কারের নমিনেশন সহ বেশ কিছু পুরস্কারও পেয়েছে। তো কথা না বাড়িয়ে দেখে ফেলুন এই মুভিটি।

ডাউনলোড লিঙ্কঃ  http://thepiratebay.se/torrent/6675425

>ENJOY<

(Visited 173 time, 1 visit today)

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন