হিরোইন (একটা গাঞ্জা পোস্ট)

*** ইদানীং জানি আমার কি হইছে… কোন মুভি নিয়া লিখতে বসলে তা স্যাটায়ার হয়ে যায়। বড় কষ্টে আছি মমিন, বড় কষ্টে আছি।  :crying:

 

মুভির নাম হইল হিরোইন। যে ব্যাটা এই নাম ঠিক করছে তার পা ধইরা সালাম করার ইচ্ছা আছে। নিজে কামাই করলে আর ধইন্নাপাতার দাম কম হইলে কয়েক টন তার ঠিকানায় পাঠাইয়া দিতাম এইটা শিওর। আমি হিন্দি তো দূরে থাক অন্য কোন ভাষার মুভিতে এত সার্থক নামকরন দেখছি কিনা মনে পরতেছে না। তবে নাম আরও একটু ভালো হইত গাঞ্জা দিলে। সারা মুভি ভইরা মহিলা পুরুষ আর হিজড়ারা(ও, হ্যাঁ, এখন নায়িকা বা এমন কারো সাথে হিজড়া থাকা বাঞ্চনীয় হইয়া গেসে। না হইলে যেন মুভিই হইব না!! যাক হিজড়ারা অন্তত নতুন কোন করমসংস্থানের সন্ধান পাইতেছে) যেমনে কইরা সিগারেট টাইন্যা গেলো তাতে এর চেয়ে ভালা কিছু মনে আইতেছে না। এইডা কি ইন্ডিয়ার ফ্যাশন হইয়া গেল নাকি? মনে হয় সারা ছবিতে হাতে গুইন্না ২/৪ টা সিন পাওয়া যাইব না যেইখানে লোকজন সিগারেট টানে নাই। সিগারেটে কইরা গাঞ্জা খায় জানতাম হিরোইন খায় কিনা এখনও শিওর না।

এরপর আসি কাহিনীতে। আহামরি কিছু না। এই কাহিনী দেখতে দেখতে পইচ্চা যাইতাছি। এই ইন্ডাস্ট্রি সম্পর্কে মানুষজনরে খারাপ ভাবাইয়া পরিচালক আর কাহিনীকারেরা কি মজাডা পাইতাছে বুঝলাম না। এমন একটা পরিস্থিতি এখন দাড়াইছে যে কেউ আর এই মিডিয়ারে ভালা কইত না। হারাডা দিন মনে হয় এরা খালি আংডা-আংডি করে। হের লগে হের শত্রুতা, হের লগে হের কাইজ্জা। পুরষ্কার পাওয়া লইয়া কুরুক্ষেত্র লাগাইয়া দেওয়া, খালি মনে হয় এডি কইরাই বেরায়। এগুলি আসলে বাস্তব জীবনে হয় বইলা মনে হয় না। অন্তত এত মাত্রায় তো না। হুদা হুদি মানুষরে খাওানের লাইগা এইরকম ডার্ক সাইড লইয়া একটার পর একটা ছবি বানাইয়া যাইতাছে।

 

পুরা মুভিতে সবচেয়ে যে জিনিসটা খারাপ লাগসে তা হইল কাস্টিং। এমন বাজে কাস্টিং, ৯৮%(১০০% কইতে খারাপ লাগে) লোক অভিনয় করতে গিয়া গুবলেট কইরা ফালাইছে।

এরপর বলি অভিনয়। কারিনারে আমার কোন কালেই কোন জাতের অভিনেত্রী বইলা মনে হয় নাই। সে যদি ২/১ তা এক্সপ্রেশন  ঠিক কইরা দেয় তাইলেই বহুত কিছু। এই মুভির কয়েকটা জায়গায় ভালাই অভিনয় করছে। অর্জুন রামপাল অনেক মাইয়াদের পছন্দ। তয় সেইটা স্টিল  ফটোতে। এমনে হেয় জীবনেও ভালা অভিনয় করে নাই। তাইতো এত ভালা শরীর আর চেহারা লইয়াও আইজ পর্যন্ত সাইড নায়কই রইয়া গেল। আমি অনেক আশা করছিলাম রন্দীপ হুদারে লইয়া। ভাবছিলাম বলিউডে ভালা এক অভিনেতা আইছে। কিন্তু হারামজাদা এই মুভিতে আমারে খেতা ধরাইয়া কইছে ব্যাটা ঘুম দে। তয় পেস বলে ক্যাপ পইড়া খেললেও ক্রিকেটে ব্যাটিং ভালাই করে বুঝা গেল।

 

মুভিতে কিছু বাংলা কইছে। হেই বাংলা হুইন্না ইচ্ছা করছে পাসপোর্ট অফিসে যাইগা। ইন্ডিয়ায় গিয়া অগো মাইরা থুইয়া আহি।

 

এত কিচ্ছু বলার পরে পরিচালনা কেমন হইছে তা আর আলাদা কইরা বলার কোন মানে নাই। একবারে খারাপ না যদিও। চলে টাইপ। আর বাকীটা আপনেরা দেইখা লইয়েন।

 

এত কিছু কইলাম এইবার একটু ছবির কাহিনী কই। কারিনা হইল গাঞ্জা থুক্কু, হিরোইন। হেয় নিজের জনপ্রিয়তা বাড়ানের লাইগা একবার এইডা করে তো আবার হেইডা করে, একবার এরে ধরে তো আরেকবার তারে ধরে। নিজেই জানে না কহন কারে পছন্দ করে। ক্যারিয়ারের খারাপ সময় প্রেমিক খুঁজে, আবার ভালা সময় বিয়া করতে চায় না। এমনকি ফিলিম হিট করানের লাইগা নিজেই নিজের স্কেন্ডাল ছড়ায়। এত কিছু কেমতে করে? আর শেষমেশ লাভটা কি হইল তা জানার জন্য মুভি দেখেন।

বি. দ্রঃ এই মুভি নাকি আবার ঐশ্বরিয়া রাই এর করার কথা ছিল। হেরে এই মুভি করতে দিলে কি অবস্থা হইত তা চিন্তা করতে গিয়াই আমার কিডনী শুকাইয়া যাইতেছে।  😯

ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://goo.gl/iilmc

(Visited 152 time, 1 visit today)

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন