Grave of the Fireflies-একটি নির্মল ভালোবাসার গল্প
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

মুভির পটভূমি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কাল। জাপানের এই অ্যানিমেশন মুভিটি যুদ্ধবিরোধী মুভি, যেখানে দেখানো হয়েছে এক জোড়া ভাই- বোনের যুদ্ধের সময় বিভিন্ন প্রতিকুলার মধ্য দিয়ে যাওয়ার গল্প। দুই ভাই-বোনের মাধ্যমে পরিচালক যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে জাপানের সাধারণ মানুষের দুঃখ, দূদর্শা তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।

 

grave_of_the_fireflies_glow_bugs_by_orinknight-d575d8p

গল্পসংক্ষেপঃ

কাহিনী শুরু হয় মৃত্যুর সাথে লড়াই করতে থাকা এক কিশোর(সেইতা) এর ফেলে আসা যুদ্ধচলাকালীন ভয়াবহ দিন গুলোর বর্ণনার মাধ্যমে। জাপানে দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের শেষের সময় একের পর এক বিমান হামলা হচ্ছিলো।
বিমান হামলায় ধ্বংস হয়ে যায় দুই ভাই-বোন সেইতা আর সেতসুকোর বাড়িঘর সাথে গোটা শহর। তাদের বাবা নৌবাহিনীতে যুদ্ধে আছেন এনং মা বিমান হামলায় গুরুত্বর আহত হয়ে মারা যান।

তারপর শুরু হয় দুজনের দুর্বিষহ দিনগুলো। নিজেদের জীবন বাচাতে আশ্রয় নেন দূর সম্পর্কের আত্মীয় এর বাসায়। কিন্তু সেখানে অবহেলায় আর অনাদরের কারনে টিকে থাকতে পারেনি এবং শেষ আশ্রয় টুকু বিদায় জানাতে হয়। অনাহারে, কস্টে তখন আশ্রয় নেয় পরিত্যক্ত একটি বম্‌ শেল্টারে।
সময়ের সাথে সাথে তাদের দিনগুলো কঠিন থেকে কঠিনতর হতে থাকে।
যারা মুভিটি এখনো দেখেননি তাড়াতাড়ি দেখে ফেলুন, আপনার সময় নষ্ট হবেনা গ্যারান্টি দিচ্ছি।

Seita-and-Setsuko-grave-of-the-fireflies-34733347-1024-768

 

কিছু কথা বলার লোভ সামলাতে পারছিনা। হাজার কস্টের মাঝেও রাতে ঘুটঘুটে অন্ধকারে সেইতা আর সেতসুকো অনেক গুলো জোনাক পোকা ধরে এনে শেল্টারে আলোর ব্যাবস্তা করা অথবা সেইতা তার ছোট বোনটির মুখে খাবার দেয়ার অপ্রাণ চেষ্টা আপনাকে আবেগপ্রবণ করবে। এতো করুণ সময়ের মাঝেও ছিল ভাই-বোন এর নির্মল ভালোবাসা।
আপনার নিজের অজান্তেই চোখের পানি ঝড়বে,যখন জোনাকি পোকা গুলো মারা যাওয়ার পর সেতসুকো কবর দেয়ার সময় প্রশ্ন করে ” জোনাকি পোকারা কেনো এতো অল্পবয়সে মারা যায়? আর মা কেনো মারা গেলো ” হৃদয় বিদারক একটি দৃশ্য।

grave-of-the-fireflies

যারা মনে করেন অ্যানিমেশন শুধু বাচ্চাদের জন্য তাদের এই মুভিটা দেখা উচিত। অ্যানিমেশন মুভির মাধ্যমে এতো সুন্দর করে গল্প বলার জন্য পরিচালক বাহবা পেতেই পারেন।
স্টুডিও জিবলীর সম্পর্কে যাদের ধারণা আছে তারা জানেন যে এই স্টুডিও কত ভালো অ্যানিমেশন মুভি উপহার দিয়েছেন। জিবলীর স্টুডিও এর সেরা কাজ বলবো আমি এই মুভিটিকে। আরেকটি ছোট তথ্য হল মুভিটির পরিচালক “ইসাও তাকাহাতা” ছিলেন যুদ্ধে সেই বম্‌ ব্লাস্টে সারভাইব করা এক মাত্র এনিমেটর। বুঝতেই পারছেন পরিচালকের নিজস্ব অনুভূতিও কাজ করেছে এই টোটাল প্রজেক্টে।

Grave of the Fireflies (1988)
Grave of the Fireflies poster Rating: 8.5/10 (109520 votes)
Director: Isao Takahata
Writer: Akiyuki Nosaka (novel), Isao Takahata
Stars: Tsutomu Tatsumi, Ayano Shiraishi, Yoshiko Shinohara, Akemi Yamaguchi
Runtime: 89 min
Rated: UNRATED
Genre: Animation, Drama, War
Released: 16 Apr 1988
Plot: A tragic film covering a young boy and his little sister's struggle to survive in Japan during World War II.

এই পোস্টটিতে ১১ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Zubayer Alam says:

    movie ta dheika khuboi khapar lagsay…….. 🙁 specially choto maytar jonno….. whole thing give me real feeling they never let me to feel that its just animation specially that little girl…… 🙁

  2. Very heart-touching… I couldn’t hold my tears while watching this movie…

  3. Md Ashraf Ul says:

    One of the best anime I’ve ever seen….
    If there are any anime lover, and you guys loved this one, I would love to suggest some more, like, “spirited away” “my neighbour totoro”
    And yup special advice try to watch the studio ghibli’a one….

  4. movie ta dekhe onk ksto lagce re vai……

  5. কি যে কাদছিলাম মুভি টা দেখে।।:'(

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন