True Detective…… a true masterpiece !!

মাত্র আট পর্বে তৈরি করা হয়েছে এই মাস্টারপিস !! ম্যাথিউ ম্যাককোনাহেই থাকলে আমি যে কোনো কিছু চুপচাপ দেখতে বসে যাই সেই অনেক বছর আগে থেকেই। এ বছর থেকে সে তার যোগ্যতা অনুযায়ী স্ক্রিপ্ট পেয়েছে দেখে আমার আনন্দ আর ধরে না। ও থাকলে  আর কিছু লাগে না আমার। সেটা ইন্টারভিউ হোক, সিনেমা হোক, সিরিয়াল হোক। তাই এটাও দেখতে বসে গেলাম। প্রথম দুই পর্ব দেখেই বুঝে ফেললাম, এটার মধ্যে একটা সম্ভাবনা আছে এপিক হয়ে ওঠার।

 

1798466_10202541630055159_545583679_n

দুটো টাইমলাইন দিয়ে শুরু হয় এটার কাহিনী। একটাতে ২০১২ সালে, যেখানে বসে ওরা অতীতের একটা কেইস নিয়ে কথা বলে। এখানেই বুঝবেন কিভাবে ক্যারাক্টারগুলোর টোন সেট করে দেয়া হয়েছে। আর দ্বিতীয় টাইমলাইনটা ফলো করে সেই কেসের সময়টাকে……… 

 

খুন করার পর অদ্ভুত ভঙ্গিতে ফেলে যাওয়া একটা নারীর লাশ দিয়ে শুরু হয় সেই টাইমলাইনের কাহিনী। আমেরিকার লুইজিয়ানা প্রদেশে কর্মরত দুজন স্টেট পুলিশ ডিটেক্টিভ, Rust আর Marty এলো তদন্ত করতে। একদম শুরুর প্রথম দশ মিনিটের মধ্যেই ম্যাককোনাহেই এর চরিত্র Rust এর প্রতি মুগ্ধ হয়ে যাবেন, কোনো সন্দেহ নেই। তদন্তের প্রতি তার অবজেক্টিভিটি দেখার পর সাহিত্য জগতের প্রত্যেকটা গোয়েন্দা চরিত্রের এক্সপ্রেশন নিয়ে দ্বিতীয়বার চিন্তা করতে বসবে যে কেউ। কিন্তু রাস্ট এর মত পাবেনা আর কাউকেই। রাস্ট-এর প্রত্যেকটা ডায়লগই quote করার মত। মনযোগ দিয়ে না দেখলে খেই হারিয়ে ফেলতে পারে অনেক দর্শক। এতো গভীরতা, এতো সহজবোধ্যতা জীবন আর মানুষকে ঘিরে। তাকে নিয়ে ইন্টারনেটে আলোচনার ঝড় বয়ে গেছে, অনেকেই গভীর মনযোগ দিয়ে করেছে ওর ক্যারাক্টার স্টাডি।

 

তৃতীয় আর চতুর্থ পর্ব দেখা শেষ হতেই অনুধাবন করলাম, TRUE DETECTIVE is TRULY BRILLIANT. তখনই এটাকে The Wire আর Breaking Bad এর মত সিরিয়ালের সাথে তুলনা করতে আমার কোনো আপত্তি ছিলো না। ডায়লগ আর দর্শনের দিক থেকে তৃতীয় পর্বটা ছাড়িয়ে গিয়েছিলো প্রথম দুই পর্বকে। তবে কাহিনী অত্যন্ত intense আর action packed হয়ে উঠলো চতুর্থ এপিসোডের মধ্যেই। অবশ্য এমনটাই হবার কথা। আট পর্বের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে যে সিরিজ, সেটা চতুর্থ পর্বে এসে দর্শকদের মাথার চুল ছিঁড়বে বৈ কি। যারা এই সিরিজের মধ্যে দর্শন ছাড়া আরো একটু বেশি ডিটেকটিভ ওয়ার্ক খুঁজছিলেন, তাদের জন্য একটা ধামাকা ছিলো চতুর্থ পর্বটা। 

প্রথম দুই পর্বের সিনেমাটোগ্রাফী নিয়ে আমার একটু আপত্তি ছিলো। ওরা লুইজিয়ানার সাউদার্ন ওয়ার্ম টোন ব্যবহার না করে নর্দার্ন ব্লীক ব্যবহার করেছিলো। এটা এমন কোনো সমস্যা না, বৃষ্টি আর শীতে এমন আবহাওয়া দেখা যেতেই পারে, কিন্তু তারপরেও ওভারঅল টোন কিন্তু ওয়ার্মেই ফেরত এসেছে তৃতীয় পর্ব থেকে।


Episode 5 দেখার পর থরথর করে কেঁপেছি। এটা আমার জন্য আর থ্রিলার থাকেনি, পুরো মাত্রার হররে রুপান্তরিত হয়ে গিয়েছিলো। আমি কেঁপে কেঁপে উঠেছি দেখতে গিয়ে। ফিলোসফি তো দেখিয়েছে, as usual. কিন্তু এবারের dialectics ছিলো দেখার মত।

 

 

টাইম আর স্পেস নিয়ে যখন কথা বলছিলো, তখন whovian (a very unfortunate case if you don’t know that fans of Doctor Who are called Whovian) দের অবশ্যই wibbly-wobbly-timey-wimey এর কথা মনে পড়বে, আমারো মনে হয়েছে। তবে যেটা বেশি মনে পড়েছে এবার, সেটা হচ্ছে কোরিয়ান মুভি Memories of Murder. যারা দেখেছেন, তারা বুঝবেন কেন! অসাধারণ কিছু ডায়লগ ছিলো এই এপিসোডেও, প্রত্যেকবারের মতই। কিছু কিছু জায়গায় মাথার তার ছিঁড়ে দিয়েছিলো। চিন্তা করার শক্তি হারিয়ে ফেলেছিলাম এই এপিসোড দেখার পর। সূতোগুলো আস্তে আস্তে কাছে আসছিলো, গিঁট পাকাচ্ছিলো এখানে। বুঝতে পারছিলাম, খুব শিগগীরই গিঁটের মধ্যে কিছু একটা আটকা পড়তে যাচ্ছে।

 

ষষ্ঠ আর সপ্তম এপিসোড দেখলেই বুঝবেন, এরা ঘোষণা দিচ্ছে দ্যা আল্টিমেট ক্লাইম্যাক্স এর। কিছু কিছু দৃশ্যে গায়ের লোমগুলো কাঁটার মত শক্ত হয়ে গিয়েছিলো। ব্ল্যাক ম্যাজিক, স্যাটানিজম, টেল অফ থ্রি ব্রাদার্স অনেক কিছুর রেফারেন্স মাথার মধ্যে মেঘের মত ভাসছিলো, একেকবার একেক রুপ নিচ্ছিলো।

 

 

আমার বারবারই মনে হচ্ছিলো, লুইজিয়ানার ব্যাপারে ভালোভাবে জানা না থাকলে অনেক কিছুই ঠিকমতো হৃদয়ঙ্গম করা যাবেনা। যেমন, মার্দি গ্রা অনুষ্ঠানে আসলে কী হয়, মুখোশের সাথে মার্দিগ্রা-র সম্পর্ক কী, এসব ডিটেইলস। আমি গত বছর মার্দি গ্রা তে গিয়েছিলাম বলে ঠিকঠাক ধরতে পেরেছি বলে মনে হলো। তবে এটাও তো ঠিক, অনেক রেফারেন্স আমার মাথার ওপরে দিয়ে গেছে, কিন্তু উত্তেজনা টা ঠিকঠাকই ছিলো।

True Detective, Season Finale……. Now, you are in Carcossa, the devil's layer

এই প্রথমবারের মত HBO এর অনলাইন একাউন্ট HBOGO ক্র্যাশ করলো। আরেক তুমুল জনপ্রিয় HBO show গেম অফ থ্রোনসেও যেটা হয়নি, সেটাই হলো ট্রু ডিটেকটিভ এর সীজন ফিনালে এর ক্ষেত্রে। কত মানুষ যে সে রাতে ঢুকতে পারেনি, আর ইচ্ছেমত গালাগালি করেছে HBO কে…… তিন ঘণ্টা ধরে আমিও শুধু তাকিয়ে ছিলাম এই স্ক্রীনের দিকে।

Untitled

 

যাই হোক, সীজন ফিনালে দেখার আগে গ্যারাণ্টি দিয়ে বলতে পারছিলাম না; এখন বলতে পারি, ট্রু ডিটেক্টিভ ছাড়িয়ে গেছে ব্রেকিং ব্যাডকে, এটাই এখন আমার বেস্ট লাইভ একশন ড্রামা লিস্টের এক নাম্বারে। Consummate, শব্দটার অর্থ নতুন করে আবিষ্কার করা যায় এরকম একটা সীজন ফিনালে দেখলে। কী ছিলো না এই সমাপ্তিতে? পাওয়ার বেদনা, না পাওয়ার হতাশা, কল্পনা আর বাস্তবতার পার্থক্য, সম্পর্কের দ্বান্দ্বিকতা, সবকিছুর মিশেল দিয়ে সমাপ্তি টানলো আমাদের দুই ডিটেকটিভ।

মার্চের ১০ তারিখ সীজন ফিনালে হলো, কিন্তু এখনই বলে দেয়া যায়, ২০১৪ সালে এর চেয়ে ভালো কোনো সিরিজ আসলে আমি অত্যন্ত অবাক হবো। আরো বলে দেয়া যায়, এমি এওয়ার্ডে বেশ অনেকগুলো পুরষ্কার এর সর্বোচ্চ দাবিদার হবে ট্রু ডিটেকটিভ।

 

true-detective-form-and-void

 

পরের সীজন এর কাহিনী লেখা আরম্ভ করেছেন প্রথম সিজনের Creator and Writer, Nick Pizzolato. নেক্সট সীজনে থাকবে না এই চরিত্রগুলো। নতুন চরিত্র, নতুন প্লট নিয়ে আসবে ট্রু ডিটেকটিভ। যারা যারা বলছেন, রাস্ট না থাকলে পরের সীজন দেখবেন না, তাদেরকে বলি – প্রোগ্রামটা কিছুটা রঙ হারাবে, সন্দেহ নেই। কিন্তু নির্মাতাদের অপর ভরসা রাখুন। যারা এই জিনিস বানিয়েছে, নিশ্চয়ই তাদের ঘিলুতে কিছু তো আছে !!

 

শেষ করছি শেষ এপিসোডের কিছু সংলাপ দিয়ে।

Hart: You used to make up stories watching the stars. Now, make stories.
Rust: There is only one story, Light and Dark.
Hart: (watching the sky) It seems to me that the dark has a lot more territory.
Rust: You are looking at it wrong. In the beginning there was only darkness. If you ask me, light is winning.

(Visited 280 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ১৯ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. সামিয়া রুপন্তি says:

    আমি জমায়ে রাখসি এটা দেখব বলে!!! রিভিউর শুরুটা পড়েছি, ভাল লাগসে, বাকিটা শেষ করে পড়ব!! 😉

    • ফরহাদ হোসেন মাসুম says:

      অন্তত এটুকু ট্রাস্ট রাখতে পারেন আমার ওপর যে, আমার রিভিউতে কোনো স্পয়লার থাকে না। পুরোটাই পড়তে পারেন।

  2. উরিব্বাস ! যেভাবে প্রশংসা করলেন ভাই ! এপিসোড ওয়ান দেখেছি, ভালো লেগেছিল । দেখব আজকে থেকে আবার নতুন করে, পুরোটা । 

     

     

    • ফরহাদ হোসেন মাসুম says:

      Do it, man. মাত্র আট পর্বের মধ্যে কী যে দ্যাখাইলো !!

    • হুউউ, আজকে আর সময় পেলাম না ! নেক্সট-এ দেখার টাইম পেলেই এটা দেখব 😀 

       

      ম্যাককোনাহেই আমারো অত্যন্ত পছন্দের অভিনেতা, লাইমলাইটে আসবার আগেরতেই । কথা বলার সটাইল দিয়ে সর্বপ্রথম নজর কাড়ছিল 😛 

    • ফরহাদ হোসেন মাসুম says:

      আমারো…… ওকে আমার তখন থেকে পছন্দ যখন আমি তাকে ম্যাককোনাফি ডাকতাম।

  3. সারাদিন বাইরে ছিলাম লাস্ট এপিসৌড এখনও দেখা হয়নি। তার আগেই পোস্ট পড়ে রাতের খাবার কোলে নিয়ে দেখতে বসে যাবো। খেতে খেতে কিছু দেখতে পারিনা বিরক্ত লাগে কিন্তু উপায় নাই :/ । চমৎকার পোস্ট ! (y)

    • ফরহাদ হোসেন মাসুম says:

      ওয়াও, তুমি তো তাহলে আপডেটেড। আমি তো মনে করেছিলাম, তুমি শুরুই করোনি !

  4. নির্ঝর রুথ says:

    আপনার হ্যানিবাল নিয়ে লেখা রিভিউটা ছিল ঐ সিরিজ দেখার ক্ষেত্রে একটা বড় অনুপ্রেরণা। এবার এই সিরিজটাও দেখিয়ে ছাড়বেন মনে হচ্ছে 😛

    পিসিতে নামানো আছে। শুধু দরকার ছিল ছোট্ট একটা push (অল ইউ নিড ইজ আ লিটল পুশ… 😀 )। আজকেই দেখতে বসবো।

    গ্রুপে ট্রু ডিটেকটিভ নিয়ে পোস্ট দিতে দিতে মাথা খারাপ করে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

    • ফরহাদ হোসেন মাসুম says:

      আপনি মারাইতেসেন কেন, রুথলেস?

      Thanks. It's nice to know that I can be persuasive. দেইখ্যা জানাইবি, ক্যামন লাগলো !!

  5. ডার্টি হ্যারি ডার্টি হ্যারি says:

    ব্রেকিং ব্যাড দেখার পর ভেবেছিলাম আর কোন সিরিয়াল দেখবনা। তবে এটা দেখব শুধু মাত্র ম্যাথিউ ম্যাককোনাহেই এর জন্য। 

  6. শাহরিয়ার লিমু শাহরিয়ার লিমু says:

    এ সিরিজের সমস্যা হলো, এটা এতই ব্রিলিয়ান্ট যে শুধু ডায়লগের ডেপথ বুঝতে আরেকটা সেকেন্ডারি ব্রেইনের প্রয়োজন হয়। 😀

    পুরাই মাক্ষি সিরিজ, একটু ডার্ক তয় মাক্ষি। ৪ আর ৮ নাম্বার এপিসোড তো পুরাই অস্থির করে দিয়েছে। এই পোস্টটাও অস্থির। 😀 সিজন ফিনালে দেখে তব্দা খেয়ে বসে ছিলাম অনেক্ষন। সেকেন্ড সিজনের জন্য মুখ হা করে বসে রইলাম।

  7. ফরহাদ হোসেন মাসুম says:

    that makes us two of the several millions.

  8. পথের পাঁচালি পথের পাঁচালি says:

    সুন্দর লেখা। অনেকদিন পর লেখা দেখে ভাল লাগল। 🙂

  9. মিজানুর রহমান মিজানুর রহমান says:

    list a rakhlam

  10. মাইকেল ফ্রান্সিস করলিয়নে says:

    ইয়ে মানে, আমি তোঁ মুভির ভিড়ে সিরিয়াল দেখা সময়ই পাই না। আমার কি হবে?

  11. আপনার রিভিউ পড়ে দেখার আগ্রহ হল। যেহেতু সিজন ওয়ান মাত্র শেষ হল আর মাত্র ৮ টা এপিসোড, আশাকরি সাইবার ক্যাফে থেকে নামাতে পারব 🙂

  12. অবশেষে ডাউনলোড করেই ফেললাম 😀

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন