Ender’s Game: যার খেলার সাথে জড়িত পুরো মানবজাতির অস্তিত্ব

অনেক বছর আগে পৃথিবীতে আক্রমণ করেছিলো ফরমিক-রা। মানবজাতির অস্তিত্ব নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারতো। কিন্তু মেইজার র‍্যাকহাম এর নেতৃত্বে সে যাত্রায় বেঁচে যায় মানব সভ্যতা। তখন থেকে নতুন কমাণ্ডারের খোঁজ করছে IF (International Fleet). শৈশবের মেধাকে কাজে লাগিয়ে এই যুদ্ধে জিততে চায় তারা। তাই, বাচ্চাদের মগজে মনিটর লাগিয়ে তাদেরকে প্রাথমিকভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয়। এই পর্যবেক্ষণে উতরে গেলে তাদেরকে ট্রেনিং এর জন্য নিয়ে যাওয়া হয় স্পেস স্টেশনে, নইলে স্রেফ ভুলে যাওয়া হয় সাধারণ হিসেবে। আজ এন্ডার-এর মনিটর খুলে নেয়া হচ্ছে।

দুই সন্তানের বেশি নেয়ার অনুমতি যে পৃথিবীতে নেই, সেখানে এন্ডার-এর বাবা-মাকে তৃতীয় সন্তান নেবার আদেশ দেওয়া হয়েছিলো সরকারের পক্ষ থেকে। বড় ভাই পিটার আর বোন ভ্যালেন্টাইন এর মগজেও মনিটর ছিলো। তাদের জীনের মধ্যে নেতৃত্বের বীজ থাকলেও শত্রুকে বোঝার মত আবেগ ছিলো না। তাই, একই জীন এর অন্য কারো কাছ থেকে সেটা পাওয়া যেতে পারে, এজন্যেই পৃথিবীতে এন্ডার এর আগমন। সে এমনিতেই একজন থার্ড, অন্যরা তাকে ভালো চোখে দেখে না। তার ওপর মনিটর খুলে নেয়ার পর সে হয়ে গেলো আরো সাধারণ। তবে না, সাধারণ জীবন উপভোগ করা এন্ডার এর কপালে নেই। তার ডাক পড়লো স্পেস স্টেশনের ব্যাটল স্কুলে, যেখানে শুরু হবে আসল খেলা, Ender’s GAME.

_1380232955

মুভিটা বের হবে বলে গত পরশু বইটা শেষ করলাম। বলতে হবে, ভাগ্য ভালো যে আগেই বইটা পড়ে ফেলেছিলাম। বইয়ের অনেক কাহিনীই মুভিতে অনুপস্থিত। বেশ কিছু ট্রেনিং এর দৃশ্য ছিলো না, যেগুলোর মধ্য দিয়ে এন্ডার এর নেতৃত্ব দেয়ার মেধা শাণিত হয়। যেহেতু গল্পের নামই এন্ডার’স গেইম, তাই গেইম এর দৃশ্যগুলোর ডিটেইলস অনেক বিশদ আকারে ছিলো বইতে। প্রত্যেকটা গেইম এন্ডারকে কিছু না কিছু শিখিয়েছে। অন্যান্য চরিত্রগুলো এন্ডার এর জন্য যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ ছিলো, সেটা বইতে প্রকট, মুভিতে অনুপস্থিত। বিশেষ করে, এন্ডার এর বড় দুই ভাই-বোন যে আসলেই ট্যালেন্টেড (এবং সেই কারণেই যে এন্ডার পৃথিবীতে আসতে পেরেছে), সেটা একদমই দেখায়নি। বইতে পিটার আর ভ্যালেন্টাইন, ইন্টারনেটে ছদ্ম পরিচয়ে (Lock and Demosthenes নাম নিয়ে) লেখা আরম্ভ করে, এবং তাদের মতামত আর রাজনৈতিক প্রস্তাব ছড়িয়ে পড়ে গোটা বিশ্বে। কাহিনীর চিত্রনাট্যে সেগুলো যোগ করা যেতো। আর বইতে Formic দেরকে Bugger বলা হয়েছিলো।

Book Cover

Book Cover

তবে যে কয়টা গেইম (Training simulation) দেখিয়েছে, সেগুলো খুবই ভালো ছিলো। এন্ডার এর চরিত্রে ছিলো Hugo সিনেমাতে নাম চরিত্রে অভিনয় করা শিশু শিল্পী Asa Butterfield. অথবা The Boy in the Striped Pyjamas এর মধ্যেও নিশ্চয়ই তাকে দেখেছেন। ভ্যালেন্টাইনের কাস্টিং-টাও বই পড়তে পড়তে যেমন ভেবেছিলাম, তেমনই হয়েছে, ছোটো ভাইয়ের প্রতি খুবই কেয়ারিং + চেহারায় বুদ্ধির ঝলক।

ender

 

পরিচালক গ্যাভিন হুডের কাছ থেকে আমার তেমন কোনো আশা ছিলো না। তবে সে খুব একটা খারাপ করেনি। বিশেষ করে X MEN: WOLVERINE থেকে তো অনেক অনেক বেশি ভালো লেগেছে। Steve Jablonsky এর মিউজিক ছিলো খুবই ভালো, বিশেষ করে গেইমের দৃশ্যগুলোতে। সত্যি কথা বলতে কী, সিনেমা দেখতে দেখতে মনে হচ্ছিলো, Hans Zimmer এর মিউজিক শুনছি।

 

সিনেমাতে যেটাতে সবচেয়ে বেশি ঘোঁট পাকিয়ে ফেলেছে, সেটা হলো ক্লাইম্যাক্স। সিনেমা আর বইয়ের মধ্যে আমি বইয়ের ক্লাইম্যাক্সটাকেই বেছে নেবো, যেটা কিছুটা ধীর হলেও এন্ডার এর মানসিক অবস্থাকে আরো যুক্তিযুক্তভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারতো। স্পয়লার দিতে চাচ্ছিনা, নইলে সিনেমার ক্লাইম্যাক্স এর একটা ভয়াবহ ভুলের কথা লিখতাম। এনিওয়ে, সব মিলিয়ে, সময় খারাপ কাটবে না। A decent science fiction. এবার বাকী বইগুলো পড়ে ফেলবো ভাবছি। সেকেন্ড পার্ট Speaker for the dead নিয়ে এসেছি বন্ধুর কাছ থেকে, মুভিরও অপেক্ষায় রইলাম।

(Visited 112 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ২৪ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. ভালো লাগছে ব্লগ !!! মুভি দেখি নাই

  2. এই বছর সাই-ফাই জনরার একেবারেই খারাপ অবস্থা। রিভিউ পড়ে মনে হচ্ছে এইটা অত খারাপ হবে না। আর এডাপটেশান গুলোর ক্ষেত্রে বেশিরভাগেরই এমন অবস্থা থাকে। বইয়ের অনেক কিছুই মুভিতে থাকে না। গরম গরম রিভিউরের জন্য ধন্যবাদ ভাইয়া 🙂

    • gr8masum says:

      কেন, গ্র্যাভিটি ভালো ছিলো তো, এইটাও খারাপ না। বই থেকেও ভালো মুভি করা সম্ভব, লর্ড অফ দ্যা রিংস তো করেছে, তাই না? এটাও করা যেতো। মুভিটা শর্ট করেছে, আরো আধা ঘণ্টা যোগ করে আরো কাহিনী দেখানো যেতো।

  3. আইম্যান আইম্যান says:

    ইয়েস ! আমার আশা বেশ ভালভাবেই পূরণ হবে বলে মনে হচ্ছে। রিভিউ পইড়া ব্যাপক শান্তি পাইলাম। ধইন্যা মাসুম ভাই 😀

  4. শাহরিয়ার লিমু শাহরিয়ার লিমু says:

    একটা Meme থেকে কথাটা পেয়েছিলাম, মনে পরে গেলো।
    If you compare the book and the movie with each other, you’re gonna have a bad time. মুভি ভালো, কিন্তু একটা মুভি যতই ভালো করে বানানো হোক না কেনো সেটা তার বইকে কখনোই অতিক্রম করতে পারেনা। বই তার পাঠককে এভাবে ঘটনাটা ভিজ্যুলাইজ করাতে পারে, মুভি তা পারে না।

    আর এই মুভিটা কি শিশুতোষ মুভি? মানে স্পাই কিডস লেভেলের? একশন মুভিতে চাইল্ড প্রটাগনিস্ট থাকলে তো তেমন একশন আশা করতে পারছি না। 🙁

    • gr8masum says:

      না, শিশুতোষ মুভি না আসলে। The book was more thought provoking. The movie didn’t do a bad job too.

      There are many movies that did fantastic adapting from a book. Think about Martin Scorsese, and his adaptations. Damn, Shutter Island, Hugo were adaptations.

  5. অ্যান্থনি এডওয়ার্ড স্টার্ক says:

    এবং মাসুম ভাইয়ের আরেকটা ছক্কা :p

  6. বই আর মুভি মিলাই না কখনই। ২ টার স্বাদ কম্পেয়ার করলেই ঝামেলা। 😛 রিভিউ পজিটিভ লাগলো। এটা দেখতে হবেই।

    • gr8masum says:

      তবুও যতটুকু করা যেতো, সেটা করলে ভালো লাগতো। হুট করে শেষ করে দিয়েছে মনে হচ্ছে। আরেকটু রসানো যেতো।

  7. তানিয়া says:

    আমার কাছে সব সময় বই বেশি ভালো লাগে মুভি কাহিনী থেকে। রিভিউ ভালো হইছে।

  8. পথের পাঁচালি পথের পাঁচালি says:

    সাই ফাই ভালো লাগেনা। আপনি কিভাবে এই ধরনের মুভি নিয়ে রিভিউ লিখেন বুঝে পাইনা। সুন্দর করেই লিখেছেন।

    • gr8masum says:

      কোনো একটা ক্যাটাগরিকে সম্পূর্ণরুপে খারিজ করে দেয়া মনে হয় উচিৎ নয়। বইটা বেশি ভালো লেগেছিলো তো, তাই এটা নিয়ে লিখে ফেললাম।

    • পথের পাঁচালি পথের পাঁচালি says:

      সম্পূর্ণ্রুপে যে খারিজ তা নয়। অনেক সময় অনেক মুভি দেখার ট্রাই করি। তবে মনে হয় সাই ফাই দেখার জন্য বেশ মনযোগের প্রয়োজন আমার ক্ষেত্রে।

    • gr8masum says:

      ম্যাট্রিক্স দেখেছিলে?

  9. James Bond says:

    গল্পটা ভালোই লাগলো পড়ে। মুভিটা দেখে নেবো তাহলে।।

  10. অনিক চৌধুরী says:

    কত ভালো মুভি যে এমনি এমনি ডিলিট করে দিছে রিভিউ পড়ে বুঝলাম। খোঁজ দা সার্চ লাগাইতে হবে।

  11. মাইকেল ফ্রান্সিস করলিয়নে says:

    দেখুম মুভিটা …শেয়ারের লাইগা অশেষ ধইন্না, আফা… :beer: :thumbup: :rose: :rose: :rose:

  12. দারুন। অনেক ভালো লাগল। সথ্যি অসাধারন।
    Live games

  13. দারুন। অনেক ভালো লাগল। সথ্যি অসাধারন।
    লাইভ খেলার স্কোর/টিভি

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন