Hannibal (TV Series) – Feel Your Blood Boiling
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

Season 1

He gets afraid, because FEAR IS THE PRICE OF IMAGINATION.

তার ক্ষমতা আছে কল্পনা করার, ক্রাইমসিনে দাঁড়িয়ে কি ভাবছিলো ক্রিমিন্যাল – সেটা পুংখানুপুঙ্খভাবে অনুমান করার, কিন্তু সেই ক্ষমতা তার মানসিক ভারসাম্যের ওপর শোধ তোলে। তাই দুর্দান্ত বিশ্লেষণধর্মী ক্ষমতা থাকা স্বত্ত্বেও, সাইকোলজিক্যালি আনফিট হওয়ার কারণে FBI এর ফিল্ডওয়ার্ক এ যেতে পারেনা Will Graham.

যেতে অবশ্য সে চায়ওনা, ক্লাসরুমে নতুন এজেন্টদেরকে ট্রেনিং দিয়েই সে সন্তুষ্ট। কিন্তু যখন এক বছরেরও কম সময়ের মধ্যে আটটা সমবয়সী মেয়ে অপহৃত হয়, তখন আর কোন উপায় থাকে না। তখন Behavioral science unit এর প্রধান জ্যাক ক্রফোর্ড আসেন উইল গ্রাহামের কল্পনাশক্তির ধার নিতে। তার mental stability ঠিক রাখার জন্য জ্যাক ক্রফোর্ড নিয়োগ দেন একজন সাইকিয়াট্রিস্ট-কে, who is none other than, HANNIBAL LECTER – even more dangerous serial killer.

hannibal-tv-show-poster

সিরিয়াল কিলিং সাহিত্যের সবচেয়ে জনপ্রিয় নামগুলোর মধ্যে “হ্যানিবল” নিঃসন্দেহে একটি। টমাস হ্যারিস জীবনে বই লিখেছেন মাত্র ৫টা, তার মধ্যে ৪টাই হ্যানিবল সিরিজের। বইগুলো পড়া এবং মুভিগুলো দেখা থাকার পরেও নতুন এই সিরিজটা এতো ভালো লাগবে, সেটা ভাবিনি। নতুন বের হওয়া সিরিয়ালগুলোর মধ্যে আমার কাছে এটাই বেস্ট……

হ্যানিবলের চরিত্রে অভিনয় করছেন The Hunt এর জন্য কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সেরা অভিনেতার পুরষ্কার পাওয়া Mads Mikkelsen. উইল গ্রাহামের ভূমিকায় আছেন Adam সিনেমার নাম ভূমিকার অভিনেতা Hugh Dancy. Psychological evaluation এর জন্য যখন এরা দুজন বসে কথা বলে, সেই সিনগুলোর intensity ব্লাড প্রেশার বাড়িয়ে দেয়।

Hugh Dancy as Will Graham (above), Madds Mikkelsen as Hannibal (below)

 

 

Hugh Dancy as Will Graham (above), Madds Mikkelsen as Hannibal (below)

জ্যাক ক্রফোর্ডের চরিত্রে যে আছে, তাকে স্ক্রীনে দেখেই মাথা নষ্ট হয়ে যায়, Matrix Trilogy এর মর্ফিয়াস চরিত্রের রুপদানকারী Lawrence Fishburne. তার চরিত্র এখানেও খুবই শক্তিশালী, and Laurence is totally devoted to his character.

Lawrence Fishburne as Agent Jack Crawford

 

 

Lawrence Fishburne as Agent Jack Crawford

কাহিনীতে আরো কিছু সিরিয়াল কিলার থাকলেও এই সিরিজের মুখ্য বিষয় হচ্ছে Hannibal এবং Will Graham এর মধ্যেকার সম্পর্ক। সমসাময়িক ঘটনাগুলো নিয়ে গ্রাহাম আলোচনা করে তার সাইকিয়াট্রিস্ট হ্যানিবলের সাথে। The most exciting part is, সেই ঘটনাগুলোর কয়েকটার কারণ হ্যানিবল নিজেই, just Will doesn’t know about it. আর হ্যানিবল জানে পুরোটাই, not only the facts, but also the feelings of Will Graham. He is always way ahead than Will. Those conversation moments were most intense. ধীরে ধীরে সম্পর্ক ঘোলাটে হয়ে উঠতে থাকে, প্রত্যেকে এগিয়ে যেতে থাকে তার প্রতিপক্ষের দিকে……

প্রত্যেকটা এপিসোডের নাম দেয়া হয়েছে কোন না কোন ফ্রেঞ্চ খাবারের নামে। এটার মধ্যে লুকায়িত একটা মেসেজ আছে, যেটা দর্শকদের বেশ সহজেই ধরতে পারা উচিৎ। কিছু অঙ্গ হত্যা করার আগে জীবিত অবস্থাতেই, আবার কিছু অঙ্গ হত্যা করার পর সংগ্রহ করে হ্যানিবল। এবং সেগুলো যত্ন সহকারে রান্না করে সে। Eating and cooking scenes are one of the major attractions of this series. বিখ্যাত স্প্যানিশ শেফ হোসে আন্দ্রে’কে এই প্রজেক্টের সাথে স্পেশালি যুক্ত করা হয়েছে শুধুমাত্র এই বিষয়ে (Hannibal এর Cannibalism ফুটিয়ে তোলার জন্য) পরামর্শ দেয়ার উদ্দেশ্যে !!

 

A gourmet person, Hannibal-The Cannibal

 

 

A gourmet person, Hannibal-The Cannibal

 

Background music and sounds পুরোপুরি ভিন্ন একটা মাত্রা এনে দিয়েছে এই সিরিজটাতে। একেবারে অন্ধকার একটা প্রেক্ষাপট তৈরি করতে সর্বোচ্চ সহায়তা করেছে এটার dark and grim music. কম কালার টেম্পারেচার এর স্ক্রীনে unsaturated background তৈরি করা হয়েছে, যেটা দর্শকদের চিন্তাকে আরো শীতল করে দেয়। Editing and Cinematography এর কম্বিনেশন করে চরম মুন্সীয়ানা দেখানো হয়েছে, specially উইল গ্রাহাম crime scene-এ পৌঁছানোর পর যেমন করে ক্রাইমগুলো visualize করে- nothing like it.

প্রথম সিজনের সাত পর্ব বের হয়েছে এখন পর্যন্ত। প্রথম এপিসোড থেকেই দ্রুতগতিতে কাহিনী এগিয়ে যেতে থাকে, তবে তৃতীয় এপিসোডে যেতে যেতে মাথার সব কয়টা তার ছিঁড়ে দেয় এই সিরিজটা !!

.

.

SEASON 2

THE FIRST EPISODE WAS A BLAST. মুগ্ধ হয়ে প্রথম সীজন শেষ করেছিলাম, উত্তেজনার শেষ পর্যায়ে চলে গিয়েছিলাম শেষ এপিসোডগুলোতে। মনে করেছিলাম, সেকেন্ড সিজনের প্রথম দিকে গতি কিছুটা কমে আসতে পারে। কীসের কী! উত্তেজনা বেড়েই চলেছে। হ্যানিবল সিরিজের বৈশিষ্ট্যই হচ্ছে প্রথমেই টাইম বোমাটা দেখিয়ে দেয়া, এবং সবাইকে অপেক্ষা করানো কখন সেটা বিস্ফোরিত হবে। সেভাবেই আবারো শুরু হলো। এরপর চলে গেলো দমবন্ধ করা চল্লিশটা মিনিট…… আবারো শুরু হলো মারদাঙ্গা সিনেমাটোগ্রাফী আর ভিজুয়্যাল এডিটিং এর খেলা, মিউজিক দিয়ে মস্তিষ্কের ওপর চাপ তৈরি করার খেলা, স্ক্রীনপ্লে দিয়ে রক্তের গতি বাড়িয়ে দেয়ার খেলা। কী যে কাহিনী হচ্ছিলো হ্যানিবলের মধ্যে !!! নিচের ছবিটা Season 2, Episode 2 এর সবচেয়ে বেস্ট দৃশ্যগুলোর একটা।

1779186_10202710488636518_1291924824_n

উইল কিছু একটা প্ল্যান করেছে, আস্তে আস্তে সেটাও আনফোল্ড করা হবে। And Hannibal, you really bad egg. এমনে রান্না করে কেউ, হারামজাদা? মাঝে মাঝে মনে হয়, এই শো এর কিছু কিছু দৃশ্যের মাধ্যমে যে সৃষ্ট লালসাটা অনুভূত হচ্ছে, সেটা তৈরি করা কি ঠিক হচ্ছে? But then I feel okay because of the fact that the thought is bothering me. জিলিয়ানকে এই প্রোগ্রামের চেয়ে বেশি সুন্দরী কোনোদিনই লাগেনি। এলানা ব্লুমকেও বেশি আপন টাইপের সুন্দরী মনে হয়, ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা লাগে ওকে দেখলে। ইফেক্ট, স্ক্রীনপ্লে, আর যাপিত দর্শন এর সেইরকম সমন্বয় করেছে এই এপিসোডটাতে। যারা হ্যানিবল দেখেনা, তাদের জন্য শুধুই আফসোস আর আফসোস। তাদের সুমতি হোক……

ভোর ৫টার দিকে ঘুম ঘুম চোখ নিয়ে দেখতে বসেছিলাম হ্যানিবল সীজন ২ এর এপিসোড ৪… শুরুর ৫ মিনিটের মধ্যেই ঘুম হাওয়া। কী যে দেখলাম ৪০টা মিনিট !! সিনেমাটোগ্রাফি এর কথা বলার অপেক্ষা রাখেনা। তবে স্ক্রীনপ্লে এর চূড়ান্ত করেছিলো এই পর্বটার মধ্যে। পুরো জিনিসটা মাথার মধ্যে এতো সুন্দর করে কো-অর্ডিনেট করতে পারে কীভাবে এরা? এই পর্বের মধ্যে ঐ পর্ব ঢুকিয়ে, এতো উত্তেজনা মেইনটেইন করে মিলায় কীভাবে? আর আজকে ইমোশন নিয়েও খেলা করেছে এরা, চোখ কচকচ করে উঠেছে এক জায়গায়। অন্য রকম ডাইমেনশন তৈরি করেছে হ্যালুসিনেশন এর এখানে। নিজের প্যরালাল এক্সিসটেন্স আগের চেয়ে অনেক বেশি টের পাচ্ছে উইল গ্রাহাম। আর এমন জায়গায় শেষ করসে হারামজাদা রা, নেক্সট শুক্রবার আসতে আসতে যে কয়দিন লাগবে, প্রত্যেকটা দিন চুল ছিঁড়বো শুধু !!

৫ নাম্বার এপিসোড দেখে মনে হলো যেন দুইজন স্নাইপার দুই জায়গায় বসে দুইজনের ওপর তাক করে আছে। সামান্য নড়াচড়া করলেই দেবে খুলি উড়িয়ে। ৬ নাম্বার এপিসোডে মেরুদণ্ড থেকে যখন শিং আর শেকড়ের হ্যালুসিনেশনটার সময় আমার নিজের মেরুদণ্ডের মধ্যে পাতলা একটা স্রোত বয়ে গিয়েছিলো। এতো ভালো ভিজ্যুয়াল এরা করে কীভাবে? যেটা দেখে সবচেয়ে আশ্চর্য হচ্ছি, সেটা হচ্ছে এরা ভিজ্যুয়াল লিটারেসি নিয়ে প্রত্যেক পর্বেই অনেক অনেক এক্সপেরিমেন্ট করছে, এবং কোনোটাই ফেলে দেয়ার মত হচ্ছেনা। Consistently, they are providing us with good imagery.

মীড সিজনে এসে ক্লাইম্যাক্সের মত উত্তেজনা দিয়েছিলো শ্লার পুতগুলি। যা বুঝতে পারছি, এভাবেই চলতে থাকবে বাকী সবগুলো পর্ব, an extended LONG unnerving climax. ভালোই হচ্ছে, এক বসাতে দেখছিনা। স্নায়ুর ওপর এতো চাপ নিতে পারতাম কিনা, কে জানে? বই পড়া থাকার কারণে কিছু কিছু ঘটনা জানি, তারপরেও কেন যে ধাক্কা খাইলাম আবার নতুন করে!! শুধু এই হারামজাদাগুলার প্রেজেন্টেশনের জন্য। জানি, সামনে জ্যাক আর হ্যানিবলের কী হবে, তারপরেও প্রত্যেক শুক্রবারের দিকে তাকায়ে থাকবো।

মাঝখানে একটা সামান্য ঠাণ্ডা এপিসোড যাওয়ার পর আবার ঝড় এনেছিলো হ্যানিবল। ১১ নাম্বার পর্ব দেখে শুধু একটা মন থেকে বের হয়ে এসেছে, What a beauty… বিশেষ করে নিচের এই ডায়লগটা মনে থাকবে অনেকদিন !!

10246760_10203144368763250_8824416638887164210_n

 শুধু দুইটা ইমেজ রিপ্লেস করে কী জটিল একটা inside realization বুঝিয়ে দিলো। এই পর্বটা যদি দেখে থেকেন, তাহলে বুঝবেন – this is something I wanted to see about portraying the thought processes. Hannibal, kills me and revivifies me every week. I am so glad that this one got renewed for a third season. Only two episodes to go for the season finale of the second one…………..

১২ নাম্বার এপিসোডে একটা ডায়লগ ছিলো, What moment are we in now? 

10253996_10203196880316006_8401398980732769071_n

খুব খারাপ মোমেন্ট, বাছাধন! খুব খারাপ মোমেন্ট। আর মাত্র এক এপিসোড বাকি রে, মোমিন! সীজন ২ এর এই ১২ নাম্বার এপিসোডে জ্যাক যখন এই প্রশ্নখানি জিগাইলো, তখন মুখ থেইক্যা বাইর হয়া গেলো, মোমেন্ট অফ ট্রুথ, মসিয়েঁ…… দৃষ্টিশক্তির বারোটা বাজায়ে দিসে আজকে। ক্যামেরাম্যান নির্ঘাৎ ম্যাট্রিক্সের মোটরসাইকেল সীনের দায়িত্বে ছিলো। ঐ যে, যেখানে ট্রিনিটি ট্রাকের পাশে দিয়া যায়, আর ক্যামেরাম্যান যায় ট্রাকের তলা দিয়া !! ঐ ক্যামেরাম্যান…… ছোটো ছোটো ছেলেমেয়েরা, অথবা ছোট ছোটো হার্টওয়ালা ছেলেমেয়েরা আজকের এপিসোড না দেখলেই ভালো করবে। যতবার মনে হয়, এর চেয়ে নিষ্ঠুর কোনো সীন দেখানো সম্ভব না, ততবার হ্যানিবলে কোত্থেকে জানি আরো বেশি নিষ্ঠুর সীন নিয়ে আসে। কোন শালার পুতের মাথায় এই ধরনের সীনগুলা আসে? আমরা ভাই বহুত ভালা মানুষ !

 

13th Episode, Season 2 Finale, no spoilers

10391396_10203257662595525_8031684369174590542_n

******** Climax:
স্পষ্টতই দুই ধরনের রিয়েকশন দেখা যাচ্ছে, হ্যানিবলের ফিনালে ক্লাইম্যাক্স নিয়ে। একদল বলছে, তার মায়েরে বাপ রকম ভালো হয়েছে। আরেকদল বলছে, ধুর, এইটা কী বা* দেখাইলো? আমি প্রথম দলে। আমার মতে, এর চেয়ে ভালো এন্ডিং হতে পারতোনা। It had an ending, without an ending. বাই দ্যা ওয়ে, আপনাদের মধ্যে কেউ ক্রেডিটের পরের সীনটা মিস করেননি তো?
.
******** Screenplay:
বোমা দেখিয়ে দেয়া স্ক্রীনপ্লে নিয়ে আগেও একবার বলেছিলাম। সেই বোমা ফিনালে-তে ফুটলো। জাল গুটিয়ে আনা হচ্ছিলো বেশ কয়েকদিন ধরেই। আমি বেশ কয়েকবার ভাবতে বসেছিলাম, সীজন ২ এভাবে শুরু করে এরা ভুল করেনি তো? But, throughout the whole season, প্রত্যেক সীনের স্ক্রীনপ্লে-তে বারবার এরা প্রমাণ করেছে, it was worth it. ব্যাপারটা অনেকটা এমন, সামনে যে একটা খাদ আছে, সেটা শুধু আপনি জানেন, and there is nothing you can do to stop it. আর শেষে যে শুধু খাদে পড়লো, তাই নয়। It was something more.
.
******** Dialogues:
ডায়লগ মনে রাখতে পারেন আগের এপিসোডগুলো থেকে? তাহলে নির্ঘাৎ, অনেক বেশি মজা পেয়েছেন ফিনালে থেকে। বিশেষ করে tea cup shattering এর ডায়লগটা আবার আসবে, এটা বুঝতে পেরেছিলাম। Basic human virtue গুলো নিয়ে এতো সুন্দর ব্যাখ্যা দেয়া হয়েছে, যেটা হয়তো শুধু রক্ত দেখতে আসা পাবলিকের সহ্য হবে না।
.
********* Photography:
হ্যানিবলের ফটোগ্রাফী নিয়ে মনে হয় নতুন কিছু বলার নাই। প্রত্যেক পর্বেই মাথা ঘোরানো ক্যামেরার কাজ দেখাচ্ছে। অন্ধকার গ্রাস করে নিচ্ছে এলানা ব্লুমকে, অশ্রু পরিণত হচ্ছে রক্তে, এগুলো বর্ণনায় পড়েই শান্ত থাকতে হতো এতোদিন। এগুলোকে যে এতো সুন্দর করে ভিজ্যুয়ালাইজ করা যায়, আমার ধারণায় ছিলোনা। থাকবে কোত্থেকে? এরকম করে আগে কেউ দেখাইসে নাকি?
.
********* যদি কোনো প্রশ্ন থাকেঃ
সব প্রশ্নেরই ব্যাখ্যা দেয়া যায়। কিছু প্রশ্ন হয়তো সীজন ৩ এর জন্য রেখে দেয়াই উত্তম। তবে শেষটা এমন যে, এখানেই একটা ফুলফিলিং এক্সপেরিয়েন্স আছে। শেষ করে এই ইন্টারভিউ টা পড়ে দেখতে পারেন…………
সীজন ২ ফিনালে নিয়ে show-runner ফুলার এর ইন্টারভিউ –http://www.ign.com/articles/2014/05/24/hannibal-bryan-fuller-on-season-2s-shocking-end-and-big-changes-in-season-3 

 

Moral : If you are not watching it, you are missing the experience of your blood boiling.

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন