Unsane: মোবাইল ফোন ক্যামেরায় তৈরি ইন্ডি ফিল্ম
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

নতুন শহরে, নতুন চাকরি শুরুর কিছুদিনের মাথায় সয়্যার ভ্যালেন্টিনির কাছে মনে হতে থাকে, তার আগের শহরের স্টকার সম্ভবত এখনো তার পিছু নিয়েছে। অন্যসব আমেরিকানদের মতোই স্বাভাবিকভাবেই সে সাইকিয়ট্রিস্টের সাহায্য নেবে বলে ঠিক করে, কিন্তু এরপর থেকেই শুরু হয় অদ্ভুতুড়ে আরো সব ঘটনা।

 

স্টিফেন সোডারবার্গ পরিচালিত ‘আনসেইন’ (Unsane)চলচ্চিত্রের প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন ‘দ্য ক্রাউন’ খ্যাত এমি অ্যাওয়ার্ড জয়ী অভিনেত্রী ক্লেয়ার ফয়। সোডারবার্গ ইন্ডি ফিল্মের একজন পাইওনিয়ার। হ্যাঁ, তার ক্যারিয়ারে ব্লকবাস্টার সিনেমা আছে অনেক। তার পরিচালিত ‘ওশেন্স ট্রিলোজি’ আমার অন্যতম প্রিয় চলচ্চিত্র সিরিজ, এবং অবশ্যই অন্যতম সেরা হেইস্ট-ক্রাইম সিনেমা সিরিজ। কিন্তু সোডারবার্গের ক্যারিয়ারে আছে ক্রাইম, মিউজিক্যাল, ড্রামা, সবধরণেরই চলচ্চিত্র। এরমাঝে ‘আনসেইন’ অবশ্যই আলাদা হয়ে থাকবে। বলছি কেন।

 

সিনেমার গল্পের বিভিন্ন দিকের চাইতে বরঞ্চ সোডারবার্গের পরিচালনাটাই অনেক বেশি আলাদাভাবে আলোচনা করার মতোন। সিনেমাটা দেখা শুরুর সাথে সাথেই মনে হয়েছিল, কিছু একটা অন্যরকম, সাধারণ নয়। ক্যামেরা মুভমেন্ট দেখে অনেকটাই মনে হচ্ছিল যেন কারো পয়েন্ট অব ভিউ (POV) থেকে দেখানোর একটা চেষ্টা চলছে। লং শটে শেকি ক্যামেরা মুভমেন্ট আর POV শটের কারণে স্টকার এর কথা গল্পে উঠে আসার আগেই মনে হচ্ছিল, কেউ কি ফলো করছে, তার পয়েন্ট অব ভিউ থেকে দেখানো হচ্ছে? এই দৃশ্যগুলো দিয়ে সরাসরিভাবে ফলো না করলেও বুঝানো হয় যে সয়্যারকে কেউ ফলো করছে, তার কোন স্টকার আছে। । এর বাইরেও আরো অনেক কারণেই ক্যামেরাওয়ার্ক আনকনভেনশনাল মনে হয়। এবং এর পিছনের কারণ হচ্ছে, এই পুরো সিনেমা আইফোন সেভেন প্লাসে শ্যুট করা।

 

 

সোডারবার্গ তার ক্যারিয়ারের শুরুতে, এমনকি পরে নামকরা পরিচালক হবার পরেও ফিল্ম নিয়ে অনেক এক্সপেরিমেন্ট করেছেন। শুরুর দিকে কমদামী অনেক ক্যামেরা দিয়েই সিনেমা তৈরি করেছেন কম বাজেটের কারণ। পরবর্তীতেও এমন কাজ বিভিন্ন সময় করেছেন, শুধুমাত্র নিজের খেয়ালে, এক্সপেরিমেন্টের উদ্দেশ্যে।  সমালোচকরা তার এইসব এক্সপেরিমেন্টকে তরুণ পরিচালকদের জন্যে একটা ভালো শিক্ষার দিক বলে মনে করেন। এই সিনেমাটিও তরুণ পরিচালকদের জন্যে ভালো একটা শেখার জায়গা হতে পারে, যে কিভাবে কতো কম খরচের মাঝেও কতো দারুণ একটা সিনেমা বানানো যায়। পুরো সিনেমার বাজেট মাত্র ১.৫মিলিয়ন। সিনেমার সিনেমাটোগ্রাফারও সোডারবার্গ নিজেই। ছদ্মনাম পিটার অ্যান্ড্রুস নামে এর আগেও তিনি এভাবে কাজ করেছেন। তিনটে আইফোন সেভেন প্লাস দিয়ে পুরো একটা ফিচার লেন্থ সিনেমা তৈরি করে ফেলেছেন সোডারবার্গ। অদ্ভুত লাগতে পারে অনেকের কাছেই, কিন্তু টিপিক্যাল সোডারবার্গ স্টাইলের সাথে সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার গল্পে বেশ উপভোগ্য সিনেমা ‘আনসেইন’।

 

সিনেমার গল্পের মাঝে সোডারবার্গ মূলত কয়েকটা সামাজিক সমস্যা তুলে ধরতে চেয়েছেন, এবং সেগুলো একটা আরেকটার সাথে জড়িয়ে খুব ভালভাবেই দেখাতে পেরেছেন। স্টকিং আর সাইকোলজিক্যাল ব্রেকডাউন এর সাথে আমেরিকান মেডিক্যাল সিস্টেম এর সমস্যা বা এর সাথে জড়ানো ক্রাইমগুলো ফুটিয়ে তুলেছেন সুন্দরভাবে। এই সিনেমা দিয়ে যে এই সমস্যাগুলো নিয়ে খুব আলোচনার সৃষ্টি হবে, সেরকম কিছু না, তবে গল্পের মূল থিম এগুলোই।

 

 

‘আনসেইন’ এর সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার গল্প অন্যান্য অনেক ইন্ডি ড্রামার মতোই কিছুটা প্রেডিক্টেবল হলেও প্রেজেন্টেশনের কারণে বেশ সাস্পেন্স আর থ্রিলিং এলিমেন্ট এর জোড়ে ভালো লাগা স্বাভাবিক, যারা এই ধরণের সিনেমা পছন্দ করেন। এবং এখানে অবশ্যই প্রধান চরিত্রে ক্লেয়ার ফয়ের অভিনয়ের একটা বড় অবদান আছে। তার ব্রেকথ্রো প্রোজেক্ট ‘দ্য ক্রাউন’ এর সাথে সামান্যতম মিল নেই এখানের ক্লেয়ার ফয়ের। রানী এলিজাবেথ আর সাধারণ আমেরিকান তরুণীর মিল থাকবে না, সেটাই স্বাভাবিক, কিন্তু একজন অভিনেত্রী হিসাবে এতোটুকু মনে হচ্ছিল না, যে আসলেই এই একই মানুষ ‘দ্য ক্রাউন’ এ অভিনয় করেছিল। এমনকি ব্রিটিশ ক্লেয়ার ফয়ের আমেরিকান উচ্চারণও এতো চমৎকার, তার চরিত্রটাকে প্রথম দৃশ্য থেকে এটাই টেনে নিয়ে গেছে। খুব অল্প সময়ের জন্যে সোডারবার্গের একজন পুরাতন এবং নামকরা সহশিল্পীকেও দেখতে পারবেন একটি চরিত্রে।

 

‘আনসেইন’ সিনেমাটি ইন্ডি-ফিল্ম ফলোয়ারদের জন্যে এবং সাইকোলজিক্যাল-থ্রিলার প্রেমীদের কাছে বেশ ভালো লাগবে। আর যাদের ফিল্মমেকিং নিয়ে আগ্রহ আছে, তাদের অবশ্যই এই সিনেমাটা দেখা উচিৎ।

 

Unsane (2018)
Genre: Psychological horror, Drama
Director: Steven Soderbergh
Cast: Claire Foy, Amy Irving, Joshua Leonard, Jay Pharoah, Juno Temple

 

My Rating: 7/10
IMDb Rating: 6.4/10
Rotten Tomatoes: 6.6/10; 80% Certified Fresh

 

 

Error: No API key provided.

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন