Under Sandet: No Winner Game (Oscar Nominated Foreign Film)
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ। ডেনমার্ক থেকে জার্মান সেনারা চলে যাচ্ছে, কিন্তু রেখে যাচ্ছে ঘৃণা, যুদ্ধের বীভৎসতা। আর রেখে যাচ্ছে প্রায় বিশ লক্ষ ল্যান্ড মাইন। ডেনিশ সেনাবাহিনী সিদ্ধান্ত নেয় যুদ্ধে বন্দী হওয়া জার্মান সেনাদের মাধ্যমেই এই ল্যান্ড মাইন অপসারণ করা হবে। প্রায় দু’হাজার জার্মান সেনা এই কাজ করে, যাদের বেশিরভাগের বয়স হয়তোবা বিশও হবে না।

 

সত্য ঘটনা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ডেনিশ পরিচালক মার্টিন জ্যানভিয়েট তার মুভি ‘Under Sandet (Under Sand)’ বা আন্তর্জাতিকভাবে পরিচিত ‘Land of Mine’ এ নিজেদের ইতিহাসের এক কালো অধ্যায় তুলে ধরেন।

 

হ্যাঁ, কালো অধ্যায়ই বটে। মনে হতে পারে, যে সেনারা ধ্বংসজজ্ঞ চালালো, তাদের কাজে খাটানোতে আর কী-ই বা আসে যায়! কিন্তু সত্যি বলতে এই যুদ্ধে বেশিরভাগ সেনারাই ছিল একদম তরুণ, সদ্য কৈশোর পেরোনো ছেলেরা। অসুস্থ, রুগ্ন শরীরে তারা যুদ্ধে হেরেও খুশি, শুধুমাত্র বাড়ি আর মার কাছে ফেরত যেতে পারবে বলে। আর তাদের দিয়ে ল্যান্ড মাইন অপসারণের মতো মানসিক চাপের কাজ, তার উপর যুদ্ধবন্দী বলে কোনো ধরনের খাবার না দিয়ে, এমন অবস্থায় এই ঘটনা আসলেই কালো অধ্যায় বটে।

 

MV5BMTc1NDY5OTE3Ml5BMl5BanBnXkFtZTgwMDkxNzA2MjE@._V1_SX1777_CR0,0,1777,999_AL_

 

এই চলচ্চিত্রে আমরা অল্পের মাঝে তারই নমুনা দেখতে পাই। সার্জেন্ট কার্ল রাসমুজেন এর দায়িত্বে দেয়া হয় কয়েকজন তরুণ যুদ্ধবন্দীদের। যেই কার্ল রাসমুজেনকে চলচ্চিত্রের প্রথম দৃশ্যেই দেখতে পাই ঘৃণা আর বিতৃষ্ণা ঝাড়তে এক জার্মান সেনাকে মারতে। এই কঠিন মনের কার্ল রাসমুজেন তাই প্রথম থেকেই এই যুদ্ধবন্দীদের প্রতি অবজ্ঞা আর ঘৃণা বুঝিয়ে দেন। সেনাবাহিনী কর্তৃপক্ষ যে কারনে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, যে অপসারণে কেউ মারা গেলে নিজেদের কেউ তো যাচ্ছে না; কার্ল রাসমুজেনও একই মানসিকতায় এই যুদ্ধবন্দীদের দেখতে থাকেন। এরা জীবনবাজি রেখে সমুদ্রসৈকতের বালির নিচের ল্যান্ড মাইন অপসারনে মারা গেলে বা না খেতে দেওয়ায় মারা গেল যার কিছু আসে যায় না।

 

কিন্তু এই চলচ্চিত্র কী শুধুই এই কয়েকজন যুদ্ধবন্দীর এই মাইন অপসারণ আর তাদের আচমকা মৃত্যু দেখানোর জন্যেই বানালো? না। এই চলচ্চিত্র দেখায় যুদ্ধ পরবর্তী অবস্থার ঘৃণা আর ক্ষমার অবস্থা সম্পর্কে। পাথরও ক্ষয় হয়। আর এই কার্ল রাসমুজেনও একসময় এই বাচ্চা ছেলেদের প্রতি ঘৃণা থেকে আবেগ অনুভব করতে থাকেন। কিন্তু তিনি একাই কী সব বদলে দিতে পারবেন? তার উপোরস্থ কর্মকর্তাও আছেন। তার উপরেও নতুন নির্দেশ আসতে পারে।

 

MV5BMTgyODU5Mjk2NF5BMl5BanBnXkFtZTgwMTkxNzA2MjE@._V1_SX1777_CR0,0,1777,999_AL_

 

অভিনয়ের দিক থেকে কার্ল রাসমুজেন এর চরিত্রে রোনাল্ড মোলার এর অভিনয় ভালো লেগেছে। কাহিনীর ধারাবাহিকতার সাথে তার চরিত্রের পরিবর্তনে তার অভিনয়ও সেরকম ভাবেই পরিবর্তিত হয়েছে। এছাড়া অন্যদের অভিনয় যে খুব আহামরি লেগেছে তা না। যুদ্ধবন্দীদের দলের ‘ন্যাচারাল লিডার’ সেবাস্তিয়ান এর চরিত্রের ব্যপ্তি অন্যদের চেয়ে বেশি ছিল। এই চরিত্রে লুইজ হফম্যানের মোটামুটী ছিল। তবে যমজ ভাই আর্নেস্ট এবং ওয়ার্নার এর চরিত্রে দুই ভাই এমিল এবং অস্কার বেন্টনের অভিনয় ভালো ছিল। বিশেষ করে আর্নেস্ট এর নিজের শেষ দৃশ্যে ন্যাচারাল অভিনয় লেগেছে।

 

সিনেমাটোগ্রাফির দিক থেকে বেশ ভালো কাজ ছিল। হিস্টোরিকাল লোকেশনগুলোতেই ক্যামিলিয়া ন্যুসেন বেশ চমৎকার কাজ দেখিয়েছেন। সমুদ্রসৈকতে জীবন বাজি রাখা গল্পেও দৃশ্যগুলো দেখতে লাগছিল খুব ভালো। চমৎকার ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিকের সাথে অবজেক্ট সাউন্ড এর ব্যবহার ছিল বেশ ভালো।

 

ক্রিটিক্যালি বেশ সার্থক হলেও, ঐতিহাসিক দৃষ্টিকোন থেকে অনেকেই এই মুভিকে প্রায় ধুঁয়ে দিয়েছেন বলাই যায়। কিন্তু পরিচালক ছিলেন এই এই অন্ধকার কাহিনী তুলে ধরতে সার্থক। যে কারনে বিশ্বব্যাপী মুভিটি সুনাম কুড়িয়েছে। পেয়েছে এবারের অস্কারে সেরা বিদেশী চলচ্চিত্রের নমিনেশন। তবে সুইডিশ মুভি ‘En Man Som Heter Ove’ এর কাছে এই মুভির জেতার সম্ভাবনা শুণ্যের কোঠাতেই বলা চলে। কিন্তু সাধারণ একটা মুভি হিসেবে এটি ছিল চমৎকার এবং টাইম-ওর্থ।

 

এই কাহিনী আসলে এক ‘No winner’ গেম এর গল্প। জার্মানরা ডেনমার্কের কাছে পরাজয় স্বীকার করলো ঠিকই। কিন্তু ডেনমার্ক তাদের জয়কে কতোটা পরিষ্কার রাখতে পারলো আসলে, এতো বাজে কাহিনীর পরে? আসলেই কী এখানে প্রকৃত জয় কারো হলো? এমনই প্রশ্নটা সার্থভাবে তুলে ধরার কারণেই এই মুভিটি সার্থক।

 

 

Under Sandet (Under Sand)
Alternate Name: Land of Mine
Year: 2015

Origin: Denmark

Written & Directed by:  Martin Zandvliet
Cast: Roland Møller, Louis Hoffman

Genre: Historical War, Drama

 

IMDb Rating: 7.8/10
My Rating: 7.5/10
Rotten Tomatoes: 78% Fresh

 

Accolades:
1. 89 Academy Awards: Nomination for Best Foreign Language Film
2. 29th European Film Awards : Won for Best Cinematography, Costume Design and Make-up & Hair Style

Land of Mine (2015)
Land of Mine poster Rating: 7.8/10 (2,644 votes)
Director: Martin Zandvliet
Writer: Martin Zandvliet
Stars: Roland Møller, Mikkel Boe Følsgaard, Laura Bro, Louis Hofmann
Runtime: 100 min
Rated: R
Genre: Drama, History, War
Released: 03 Dec 2015
Plot: A young group of German POWs are made the enemy of a nation, where they are now forced to dig up 2 million land-mines with their bare hands.

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন