Deepwater Horizon: মানুষের তৈরি বিপর্যয়
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

২০১০ সালের ২০ এপ্রিল গালফ অব মেক্সিকোতে ইউএস হিস্টোরির সবচেয়ে বড় অয়েল স্পিলের ঘটনা ঘটে, ‘ডিপওয়াটার হরাইজন’ অয়েল রিগে, যেটি কিনা তার আগের বছরই সবচেয়ে বেশি গভীরতায় খননের রেকর্ড গড়ে।

 

সত্য ঘটনা আর মানুষের তৈরি এই ডিজাস্টার নিয়ে ২০১৬ সালে নির্মিত হয় ‘ডিপওয়াটার হরাইজন’ নামের চলচ্চিত্র, যা পরিচালনা করেন পিটার বার্গ আর কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন মার্ক ওয়েলবার্গ।

 

এর আগেই একই বছরে এই পরিচালক-অভিনেতা মিলে তৈরি করেছিলেন ‘প্যাট্রিয়টস ডে’ আর  আগের বছরই ‘লোনে সারভাইবর’। দুইটি মুভিই ক্রিটিক্যালি এবং দর্শক সমাদৃত হয়েছিল। তাই ‘ডিপওয়াটার হরাইজন’ নিয়ে আগ্রহটাও ছিল সকলের অনেক বেশি।

 

ডিজাস্টার আর বায়োপিক স্টাইলে পিটার বার্গের কাজ ছিল দারুণ। ক্ষণে ক্ষণে কাহিনীর সাথে অ্যাড্রেনালিন রাশের জন্যে আন্ডারওয়াটার সিনে মেশিনারির কাজ, ড্রিলিং এর কাজ আর ডিজাস্টার শুরু লক্ষণগুলো দেখানো আর পানির উপরে অয়েল রিগে কোম্পানির সাথে শ্রমিকদের মতভেদের দৃশ্যতো আছেই।

 

57f512e6ee132.image

 

অয়েল রিগটা ধ্বংসের কারণ ছিল কিছু ভুল সিদ্ধান্ত। ট্রান্সওসেনের আন্ডারে পরিচালিত ‘ডিপওয়াটার হরাইজন’ অয়েল রিগ লিজ নেয় ‘ব্রিটিশ পেট্রোলিয়াম’ বা ‘বিপি’ কোম্পানি। তাদের তাড়াহুড়ো করে তেল উত্তোলনের সিদ্ধান্তে, কোনো প্রোপার প্রি-টেস্ট ছাড়াই কাজ শুরু করায় ড্রিলিং মেশিনে সমস্যা দেখা দেয়। অতঃপর ড্রিলিং পাইপে উপরে উঠে আসে প্রচুর পরিমাণে কাঁদা, যা একটা অয়েল রিগ নষ্ট ও ধ্বংসের জন্যে যথেষ্ট ছিল।

 

মার্ক ওয়েলবার্গকে দেখা যায় রিগের চিফ ইঞ্জিনিয়ার মাইক উইলিয়ামস এর চরিত্রে। যিনি কিনা রিগ ধ্বংসের সময়  অনেক সহকর্মীকে উদ্ধার করেন এবং রিগ বাঁচানোর শেষ চেষ্টা করেন। পরবর্তীতে তিনি রিগ ধ্বংসের শো-কজ কেসে প্রয়োজনীয় সাক্ষ্য দেন।

 

MV5BMTY2ODk4MjA4MV5BMl5BanBnXkFtZTgwNjUyNzEwOTE@._V1_SY1000_CR0,0,1499,1000_AL_

 

 

মার্ক ওয়েলবার্গের সাথে ছিলেন কার্ট রাসেল, জন মালকোভিচ, ডিলান ও’ব্রায়ান, রিগের ন্যাভিগেশন অফিসার আন্দ্রেয় ফ্লেটাস হিসেবে ছিলেন জিনা রদ্রিগেজ আর মাইক উইলিয়ামসের স্ত্রীর চরিত্রে কেট হাডসন।

 

রিগের সুপারভাইজার জিমি হ্যারেলের চরিত্রে। এলাকার সবকিছু হাতের তালুর মতো পরিচিত; থ্রিলার মুভির এমন চরিত্রের জন্য কাল্পনিক চরিত্রের প্রয়োজন হয় নি। বাস্তবের জিমি হ্যারেলের মতো দাঁড়ির স্টাইলের মাধ্যমে কার্ট রাসেল এই ধরণের চরিত্র ভালোই করেছেন।

 

রিগের ধ্বংসের কারণ হিসেবে দায়ী করা হয় ‘বিপি’ কোম্পানিকে। তাই সেখানকার প্রতিনিধি হিসেবে কোম্পানি ম্যান ডোনাল্ড ভার্ডিন চরিত্রে আনা হয় জন মালকভিচকে। এই ডোনাল্ড ভার্ডিনের নামে ম্যানস্লটারের অভিযোগে মামলা করা হয় পরবর্তীতে, রিগ ধ্বংসের সময় ১১ জন মারা যাবার কারনে। তবে সেই মামলা পরে টেকেনি।

 

মুভির সবচেয়ে পজিটিভ দিক ছিল থ্রিলিংভাবে কাহিনী প্রেজেন্টেশন, যে কারনে ব্যবহার করা হয়েছে প্রচুর ভিজ্যুয়াল এফেক্ট আর শব্দের ব্যবহার। ভিজ্যুয়াল এফেক্ট আর সাউন্ড এডিটিং দুই ক্ষেত্রেই তাই অস্কার নমিনেশন পেয়েছে ‘ডিপওয়াটার হরাইজন’। তবে সাউন্ড এডিটিং এ এই মুভির অস্কার পাবার সম্ভাবনাই সবচেয়ে বেশি।

 

থ্রিলিং করা হলেও মুভির সবচেয়ে দূর্বল দিক সম্ভবত কাহিনীটা সরাসরি শুধুমাত্র মূল আর সত্য় কাহিনীর প্রেজেন্টেশন এর কারনে অনেকটা ডকুমেন্টারি ধরণের অনুভূতী তৈরি হয়। স্টোরি ছিল দারুণ, সেক্ষেত্রে কিছুটা এরকম হওয়ায় শেষ পর্যন্ত ব্যবসাসফল হতে পারেনি বেশ বড় বাজেটের এই মুভি। তবে সমাদৃত হয়েছে ক্রিটিকদের কাছে ঠিকই।

 

 

Deepwater Horizon
Year: 2016

Directed by: Peter Berg
Cast: Mark Wahlberg, Kurt Russell, John Malkovich, Gina Rodriguez,  Dylan O’Brien, Kate Hudson
Genre: Disaster, Biopic, Thriller

 

 

IMDb Rating: 7.2/10
My Rating: 7.5/10
Rotten Tomatoes: 83% Fresh
Box office: $118.8 million/$120 million

 

 

Accolades:
1. 89 Academy Awards: Nomination for Best Sound Editing & Best Visual Effects
2. . 70th BAFTA Awards (Pending): Nomination for Best Sound

Deepwater Horizon (2016)
Deepwater Horizon poster Rating: 7.3/10 (42,354 votes)
Director: Peter Berg
Writer: Matthew Michael Carnahan (screenplay), Matthew Sand (screenplay), Matthew Sand (screen story), David Rohde (article), Stephanie Saul (article)
Stars: Mark Wahlberg, Kurt Russell, Douglas M. Griffin, James DuMont
Runtime: 107 min
Rated: PG-13
Genre: Drama, Thriller
Released: 30 Sep 2016
Plot: A dramatization of the April 2010 disaster when the offshore drilling rig, Deepwater Horizon, exploded and created the worst oil spill in U.S. history.

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন