Hacksaw Ridge: The Hell on Earth
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

একজন সৈনিক, যে কিনা অস্ত্র হাতে হত্যা করে যুদ্ধের ময়দানে জেতার জন্যে না, বরং একজন মানুষ হিসেবে আরেকজন মানুষকে বাঁচানোর জন্যে যুদ্ধের ময়দানে অস্ত্র ছাড়াই যুদ্ধ করতে চায়। একজন মানুষ, যার কিনা একজন আসল সৈনিকের মতো শারীরিক সামর্থ্য নেই, কিন্তু আছে পাহাড়ের সমান দৃঢ় মানসিকতা। এমন একজন সৈনিক ডেসমন্ড ডস, যিনি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ইউএস আর্মির হয়ে, একজন কম্ব্যাট মেডিক হিসেবে যুদ্ধ করেন।

 

ডেসমন্ড ডস ছিলেন একজন ‘কনসিয়েন্সেস অবজেক্টর’, যার মানে তিনি আর্মির নিয়মকানুন না মানা অধিকার নিতে পারবেন তার মুক্তচিন্তা বা ধর্মের কারণ এর জন্যে। ডেসমন্ড ডস বাইবেলের সিক্সথ কমান্ডমেন্ট ‘কাউকে হত্যা করা যাবে না’, এই নীতিতে বিশ্বাসী হওয়ায়, আর্মিতে যেতে চাইলেও, কখনো অস্ত্রধারণ বা যুদ্ধক্ষেত্রে হত্যা করতে পারবেন না, এই দাবী করেন। যে কারনে তার বিরুদ্ধে কোর্ট মার্শাল জারি হয়, উপরস্থ কর্মকর্তাদের নির্দেশ না মানার কারণে। কিন্তু  ‘কনসিয়েন্সেস অবজেক্টর’ হিসেবে পর্যাপ্ত নিয়ম থাকায়, তিনি পুনরায় কাজ করতে থাকেন। অতঃপর আসে ‘হ্যাকস রিজ।’

 

‘হ্যাকস রিজ’-এ কি হয়েছিল পরে বলসি। আগে আসি একজন ‘বিস্ট’ এর কাছে। তিনি যখন অভিনয় করেন, একজন পাক্কা খেলোয়াড়। কিন্তু ক্যামেরা পিছে দাঁড়ালেই তিনি একজন বিস্ট হয়ে ওঠেন। বলসিলাম ‘গুড অ্যাক্টর, বেটার ডিরেক্টর’ মেল গিবসনের কথা। ‘হ্যাকস রিজ’ এর মাধ্যমে দশ বছর পরে তিনি আবার পরিচালকের আসনে বসলেন। এই মুভিটি হয়তোবা তার ‘ব্রেভহার্ট’ এর মতো কিংবদোন্তীতূল্য সম্মান পাবে না, কিন্তু তার এবং ২০১৬ সালের অসামান্য একটি কাজ, সেটা অবশ্যই ভুল নয়। তিনি সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন ‘হেল অন আর্থ’ হ্যাকস রিজের সবচেয়ে ভয়াবহতম দিক তুলে ধরতে, মনুষ্যত্ব তুলে ধরতে, জীবনের আসল উদ্দেশ্য বের করতে। আর তিনি এছাড়াও সফল হয়েছেন, একজন অভিনেতাকে টেনে বের করতে।

 

Andrew Garfiled in 'Hacksaw Ridge'

 

অ্যান্ড্রু গারফিল্ড যে একজন ভালো অভিনেতা সেটা প্রায় ভুলে যেতে বসার সময়েই গিবসন তার সেরাটা বের করে আনলেন। একজন ছেলে, একজন স্বামী, একজন সৈনিক; সবার উপরে একজন মানুষ হিসেবে ডেসমন্ড ডসের সম্পূর্ণ ধারনাটা মেল গিবসন তুলে ধরার চেষ্টা করেছিলেন। আর তার সাফল্যকে সফল করতে নিজেও অভিনেতা হিসেবে কঠোর কাজ করলেন অ্যান্ড্রু। ডেসমন্ড ডসের সহজ-সারল্য, উচ্চারণ, আর যুদ্ধের ময়দানে ডেসমন্ড ডসের বর্ণনার মতোই অভিনয়। এটি অবশ্যই মনে রাখার মতো এবং অ্যান্ড্রুর সেরা কাজ।

 

মেল গিবসনের পরিচালনায় ঘি ঢালতে ক্যামেরার দুর্দান্ত কাজ দেখালেন সাইমন ডুগ্যান। শুধুমাত্র পাহাড়ের তলা থেকে হ্যাকস রিজ পর্যন্ত দেখানোর সময়টার জন্যই তার আলাদা একটা টুপিখোলা সম্মান প্রাপ্য। আর এই চমৎকার ক্যামেরার কাজের সাথে আছে রুপার্ট গ্রেগসন উইলিয়ামসের অনবদ্য ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক। যুদ্ধক্ষেত্র চোখ দেখিয়েছেন মেল গিবসন। আর সেটা একদম মাথায় আঘাত করেছে এই ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক।

 

পুরো মুভিই ডেসমন্ড ডস তথা গারফিল্ডকে ঘিরে হলে সাপোর্টিং কাস্টে হুগো ওয়েভিং, স্যাম অর্থিংটন, ভিন্স ভন বা রিচার্ড রোক্সবার্গের মতো অভিনেতারা ছিলেন। ডেসমন্ড ডসের স্ত্রী ডরোথি হিসেবে টেরেসা পালমার ভালো অভিনয় করেছেন। তবে সব মিলিয়ে যুদ্ধক্ষেত্রে প্রতিটি অভিনেতারা দারুণ সাপোর্ট দিয়ে গেছেন কাহিনী এবং অ্যান্ড্রুকে।

 

Hacksaw Ridge

 

‘ব্যাটল অব ওকিনাওয়া’-এর সময়ে ‘মায়েদা’ নামক পাহাড়ের খাড়া ঢাল বেয়ে উপরে উঠে ডেসমন্ড ডসের বাহিনীকে যুদ্ধ করতে হয়। আর তারা এই ঢালের নাম দেন ‘হ্যাকস রিজ।’ ডেসমন্ড ডস যুদ্ধ থেকে ফিরে কখনোই বই লিখা বা মুভি তৈরির প্রতি আগ্রহ দেখাননি। অনেকে তাকে রাজি করার ব্যর্থ চেষ্টার পরে ২০০১ সালে তাকে রাজি করান বিল ক্রসবি এর নাতি চিত্রনাট্যকার গ্রেগরি ক্রসবি। ডকুমেন্টারির চিন্তা এর পরে অবশেষে লাইভ-অ্যাকশন মুভি তৈরির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। অ্যান্ড্রু নাইট ও রবার্ট শেনক্যানের চিত্রনাট্যে পরিচালনায় আসেন মেল গিবসন।

 

এখন আসি, কেন ডেসমন্ড ডস বিখ্যাত্‌ কেনইবা তিনি একটি মুভি পাবার যোগ্যতা রাখেন। তিনি ছিলেন ‘কনসিয়েন্সেস অবজেক্টর’ হিসেবে ইউএস আর্মির সর্বোচ্চ সম্মাননা ‘মেডেল অব অনার’ পাওয়া প্রথম সৈনিক। আর তিনি এই সম্মাননা পান, ‘ব্যাটল অব ওকিনাওয়া’-তে হ্যাকস রিজে ৭৫ জন সৈন্যকে মেডিক্যাল সহায়তা দিয়ে। কোনো অস্ত্র ছাড়াই তিনি যুদ্ধক্ষেত্র থেকে ৭৫ জনকে উদ্ধার করে ক্যাম্পে ফেরত পাঠান। এবং আর কারো সাহায্য ছাড়া, সম্পূর্ণ একা। মুভিটি দেখার পরে আরো ভালোভাবে বুঝতে পারবেন অনেক কিছু। বদলে যেতে পারে আপনার চিন্তা।

 

মুভির অনেক অংশই মনে রাখার মতো। তবে একটি অংশ কখনোই ভুলব। স্পয়লার হলেও বলেই ফেলি এতোকিছু যখন বলেছিই, আর যা বলেছি, সবই মূলত জানা ঘটনাই, কারণ এইটি একটি হিস্টোরিক্যাল-বায়োগ্রাফি মুভি। যাই হোক, অংশটি ছিল, একজন জাপানী আহত যোদ্ধা ঠিক ডেসমন্ড ডসের পাশে। আমরা হলে কী করতাম? তাকে মেরে ফেলতাম, যেন তার কারণে নিজের গোপনীয়তা প্রকাশ না পায় অপরপক্ষের কাছে। কিন্তু ডেসমন্ড ডস তা করেন নি। তিনি তার নীতিতে বিশ্বাসী ছিলেন। হ্যাঁ, তিনি ভয়ার্ত ছিলেন পুরো সময়টা। কিন্তু সাহস হারান নি।

 

অসাধারণভাবে একজন সাধারণ মানুষের গল্প তুলে ধরার এই মুভি গোল্ডেন গ্লোবে পেয়েছে সেরা মুভি, সেরা অভিনেতা ও সেরা পরিচালকের নমিনেশন। অস্কারেও যে এসবগুলোতেই নমিনেশন পাবে তা এখনই বলে দেয়া যায়।

 

মেল গিবসন হয়তোবা আরেকটা মাস্টারপিস বানাতে পারেননি। কিন্তু তিনি একটি মাস্টারপিস ধারণাকে তুলে ধরতে পেরেছেন খুব ভালোভাবেই।

 

 

Hacksaw Ridge
Year: 2016

Cast: Andrew Garfield, Sam Worthington, Vince Vaughn, Teresa Palmer, Hugo Weaving, Rachel Griffiths, Luke Bracey,

Directed by: Mel Gibson
Written by: Andrew Knight & Robert Schenkkan

Genre: Biography, Historical War, Drama

 

 

IMDb Rating: 8.5/10
My Rating: 9/10
Rotten Tomatoes: 84% Fresh
Box office : 157.9 million/40 Million (in US Dollar)

 

 

Accolades:
1. 74th Golden Globes: Nominated for Best Picture, Best Actor (Motion Picture – Drama), Best Director
2. 70th BAFTA Award (Pending): Nominated for Best Actor, Best Adapted Screenplay, Best Editing, Best Sound, Best Makeup and Hair

 

 

Hacksaw Ridge (2016)
Hacksaw Ridge poster Rating: 8.5/10 (42,067 votes)
Director: Mel Gibson
Writer: Robert Schenkkan (screenplay), Andrew Knight (screenplay)
Stars: Andrew Garfield, Richard Pyros, Jacob Warner, Milo Gibson
Runtime: 139 min
Rated: R
Genre: Drama, History, War
Released: 04 Nov 2016
Plot: WWII American Army Medic Desmond T. Doss, who served during the Battle of Okinawa, refuses to kill people, and becomes the first man in American history to receive the Medal of Honor without firing a shot.

এই পোস্টটিতে ১টি মন্তব্য করা হয়েছে

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন