Infernal Affairs(2002) গত দশকের শ্রেষ্ঠ এশিয়ান ক্রাইম থ্রিলার

infernal affairs poster

নামে বিভ্রান্ত হবেন না দয়া করে,নাম নিয়ে পরিচালক এন্ড্রু লাও একটি খেলা খেলতে চেয়েছিলেন,পুলিশ বিভাগের ইন্টারনাল এফেয়ারস বিভাগের সাথে ইনফারনাল(নরক) শব্দটি যুক্ত করে তৈরি করা হয় মুভির নামটি,এন্ড্রু লাওয়ের ডেইজি মুভিটি দেখার পরেই এই মুভিটি দেখার আগ্রহ জন্মে আমার,কোন রিভিউ না পড়েই দেখা শুরু করি আইএমডিবি রেটিং এর উপর ভর করে,কিরকম লেগেছে সে ব্যাপারে পরে আসছি… আগে কিছু তথ্য জানিয়ে রাখি

*২০০৩ সালে ওয়ারনার ব্রাদার্স,ব্র্যাড পিট এবং ব্র্যাড গ্রে মিলে মুভিটির রিমেকের সত্ত্ব কিনে নেন

*২০০২ সালে যাত্রা শুরু করা বেসিক পিকচারস নামক প্রোডাকশন কোম্পানিটির প্রথম ছবি ছিল এটি,এবং এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বিখ্যাত ছবিটিও বটে

*২০০৬ সালে মুভিটির হলিউডে একটি রিমেক হয়,পরিচালনা করেন মারটিন স্করশিজ,সে মুভিটি ৪ টি শাখায় অস্কার পুরস্কার লাভ করে এবং বেস্ট সাপোরটিং এক্টর ক্যাটাগরিতে নমিনেশন পান মার্ক ওয়ালবারগ,ভাবছেন মুভিটির নাম কি? সে ব্যাপারে আরেকটু পরে বলি 😀

*পুরো ছবিতে মার্শাল আর্ট এর ছিটেফোটাও নেই

*এটা ইনফারনাল এফেয়ারস ট্রায়ালোজির প্রথম ছবি,বাকিগুলো নিয়ে অন্য আরেকদিন বলবো

কাহিনী সংক্ষেপঃ
স্যাম চায়নার কুখ্যাত গ্যাংস্টার,যদিও তার বিরুদ্ধে কখনোই সরাসরি প্রমাণ বের করা সম্ভব হয়না বিধায় পুলিশ তার টিকিটিও ছুঁতে পারেনা,তাকে সাহাজ্য করার জন্য পুলিশ বাহিনীতে রয়েছে লাও কিন মিং নামক এক ছদ্মবেশি পুলিশ,যে গোপনে সব ধরনের তথ্য দিয়ে সাহাজ্য করে স্যামকে,অপরদিকে আন্ডারকভারে থাকা পুলিশ ইয়াং ছদ্মবেশে ঢুকে যায় স্যামের গ্রুপে,চলে স্যামকে ধরার এক প্রাণপন প্রচেষ্টা,বেশ কয়েকবার মিং এর সাহাজ্যে পুলিশী হয়রানি থেকে বাচলেও ইয়াং এর বদান্যতায় বিশাল ক্ষতির মুখে পড়ে স্যাম,দু পক্ষই তখন বুঝতে পারে ডাবল এজেন্ট আছে তাদের ভেতরে,ডাবল এজেন্ট ধরার প্রচেষ্টা শুরু করে দু পক্ষই,এদিকে ইয়াং এর পুলিশ পরিচয়টি জানে শুধু পুলিশ সুপার ওয়াং,যিনি পুলিশ বাহিনীতে ডাবল এজেন্ট খুঁজে বের করার জন্য ও শিয়ালের কাছে মুরগি বর্গা বাগধারাটি প্রমানে দায়িত্ব দেন স্যামের এজেন্ট লাও কিন মিং কে,শুরু হয় চোর পুলিশ খেলা…

কাহিনী পরিচিত লাগছে? জ্বি ঠিক ধরেছেন,দা ডিপারটেড সিনেমার মতই কাহিনী কারন দা ডিপারটেড এই ছবিটির ই রিমেক,আপনার মনে হতে পারে দা ডিপারটেড তো দেখেই ফেলেছি এই জিনিস না দেখলেও হবে,তাদের জন্য বলছি ছবিটির ৬০% অংশ দা ডিপারটেডে কপি বা রিমেক করা হয়েছে,কিন্তু যেই বাকি ৪০% আপনি দেখেননি সেটাই যথেষ্ট এই ছবিটিকে দেখার জন্য,একটা সময় পর্যন্ত ছবিদুটো প্রায় সমান্তরালে এগোলেও হঠাত করে দুটোর কাহিনী দুদিকে মোড় নেয়,আমার কাছে মনে হয়েছে এটার রিমেকটাও এটাকে ছাড়িয়ে যেতে পারেনি,রিমেকের চেয়ে এটার দৈর্ঘ্য অনেক ছোট,মাত্র ১০১ মিনিট,ইনফারনাল এফেয়ারস সম্পর্কে বলতে হলে আমি বলবো গত দশকের শ্রেষ্ঠ এশিয়ান ক্রাইম থ্রিলার হবার যোগ্য এই মুভিটি।।

অভিনেতা হিসেবে এন্ডি লাও এবং টনি লিউং এর কথা নতুন করে বলার কিছু নেই,দুজনেই এই ছবির জন্য একাধিক পুরস্কার লাভ করেন, বিশেষ করে টনি লিউং এর অভিনয়ের কথা বলতেই হয়,সিনেমাটোগ্রাফি অসাধারন ছিল,ভিলেন হিসেবে স্যাম চরিত্রে এরিকের অভিনয় বেশ ভালো ছিল,আমাকে যেটা সবচেয়ে মুগ্ধ করেছে সেটা কাহিনীর গতিশিলতা,এক মুহূর্তের জন্যেও লাগাম না ছেড়ে কাহিনী এগিয়ে গেছে পুরো ১০১ মিনিট জুড়ে।।

এক নজরে INFERNAL AFFAIRS:

পরিচালক – এন্ড্রু লাও

চিত্রনাট্য – এলান মক এবং ফেলিক্স চং

অভিনয়ে – এন্ডি লাও,টনি লিউং,কেলি চান,এরিক স্যাং এবং অন্যান্য

আইএমডিবি রেটিং – ৮.১

রোটেন টমেটো রেটিং ৯৫%

মেটাক্রিটিক রেটিং ৭৫%

টরেন্ট ডাউনলোড লিঙ্ক(তিন পর্ব একসাথে)- http://extratorrent.cc/download/2768123/Infernal+Affairs+Trilogy_%282002-2003%29_BRRip_720p_KrazyKarvs_TMRG.torrent

ডিরেক্ট ডাউনলোড লিঙ্কঃ
পার্ট ১ (700 MB): http://bit.ly/1f3eZzm
পার্ট ২ (743 MB): http://davvas.com/wec7r6hvdmlc
পার্ট ৩ (738 MB): http://davvas.com/yhkefcb1dai1

(Visited 166 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ১৭ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. নো এইমস says:

    অনেক ভালো লিখছেন। +++

  2. দিয়া দত্ত says:

    অপূর্ব লিখেছেন। মুভিটা দেখতেই হবে। 😉

  3. দিয়া দত্ত says:

    torrent টায় তিনটে পার্ট আছে, বাকি দুটো কি ভাল তাহলে d/l করব।

    • Electrophile says:

      সবগুলাই করুন, তবে দেখা শুরু করবেন ২য় পর্ব থেকে, এরপর ১ম পরব,সবার শেষে তৃতীয়, কাহিনী এভাবেই এগিয়েছে…

  4. James Bond says:

    ভালো লিখেছেন। লেখায় +++ 🙂 🙂

  5. প্রফেসর মরিয়ার্টি প্রফেসর মরিয়ার্টি says:

    আমি ডিপার্টেড দেখেছি। এই মুভি দেখা হয়ে উঠেনি কেন জানি। বাকি দুই রিভিউ দিয়ে দেন। একসাথে দেখে ফেলি।

  6. sajalhasan says:

    The Departed যে রিমেক জানা ছিলো না ।

  7. মেগামাইন্ড says:

    এত্ত রেটিং !!!!!!! দেখা লাগে তহ

  8. এই ফিল্ম এর আন্ডারকপ চরিত্র টা আমার সবচেয়ে প্রিয় চরিত্র 😀 ডান বাই টনি লিউং চিউ ওয়াই <3

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন