Triangle (2009)…………………[মুভি Explanation]……..[Spoiler Alert]

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

যারা মুভিটা দেখেছে একমাত্র তারাই এই লেখা পড়বেন ধরে নিয়েই আমি পোস্টটি লিখছি । তাছাড়া Spoiler Alert দিয়েই লেখা শুরু করলাম ।

 

এই Triangle মুভিটা নিয়ে নানান মানুষের নানান ব্যাখ্যা আছে । আমি অনেক মানুষের অনেক রকম ব্যাখ্যা একসাথে করে, একটা ব্যাখা উপস্থাপন করছি । Triangle মুভি পুরাটা দেখার পর মাস্ট শরীরে একটা উত্তেজনা সৃষ্টি হবেই হবে । আশা করি এই ব্যাখ্যা আপনার শরীরের উত্তেজনা কমাতে পারবে ।

 

 

 

মুভিটা বোঝার জন্য কয়েকটি দিক মাথায় রাখতে হবেঃ

১. অতৃপ্ত বাসনা

২. অপরাধবোধ

৩. নিয়ন্ত্রনহীন রাগ 

 

 

 

 

একটা গুজব প্রচলিত আছে যে, মানুষ যদি কোন অতৃপ্ত আকাঙ্ক্ষা নিয়ে মারা যায় তাহলে তার আত্মা আশা পুরনের জন্য দুনিয়াতে ঘোরাঘোরি করে  । এইরকমই একটা থিম নিয়ে মুভিটা ভাবলে অনেকটা মিলে যাবে ।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মুভি বোঝার জন্য সবচেয়ে বড় হিন্টস হলো মুভিতে দেখানো জাহাজের নাম ।

প্রথমে বলি জাহাজের প্রসঙ্গেঃ যে জাহাজে সবাই বারবার ওঠে সেটির নাম AEOLUS. মিথলজি অনুযায়ী AEOLUS হলো Sisyphus এর পিতা।

এই মুভির একটা ইম্পর্টেন্ট বিষয় হলো “সিসিফাস এর মিথ” । এই “সিসিফাস এর মিথ” মুভির ভিতরেও আলোচনা করতে দেখা যায় যখন তারা জাহাজে থাকে । “সিসিফাস এর মিথ” এর কাহিনি হলো এই সিসিফাস, প্রাচীন গ্রীক ডেথ দেবতার সাথে বেঈমানি করে। এই ডেথ দেবতাকে আজরাইল টাইপ ভাবতে পারেন । ডেথ দেবতা সিসিফাসকে মৃত্যুর জন্য ডাকার পরে সিসিফাস ডেথ দেবতাকে বলে যে, সে একটু পর চলে আসবে কিন্তু সে আর আসে না, সে ডেথ দেবতার সাথে ওয়াদা ভঙ্গ করে । সেজন্য দেবতারা তাকে শাস্তি হিসেবে World Of Triangle এ লুপের মধ্যে ফেলে দেয় যেখানে সে একটা বড় পাথর কে ট্রাইয়েঙ্গেল আকারের পাহাড়ে গড়িয়ে গরিয়ে উপরে নিতে থাকে এবং চূড়ায় পৌছানোর পর পাথরটি আবার পরে যায়। এভাবে লুপ চলতেই থাকে অনন্ত সময় পর্যন্ত ।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মুভির শেষে একজন ট্যাক্সি চালককে দেখা যায়। যে কিনা জেস মারা যাবার পর, জেসের আত্মাকে নিতে আসে। সে সিসিফাসের সেই মৃত্যুর প্রতিনিধি (যাকে আজরাইল ভাবতে পারেন) । ঐ ট্যাক্সিচালক তাকে বলে যে, যতক্ষণ সে না আসবে; ততক্ষণ সে মিটার অন রাখবে। কিন্তু জেস সেটা ভঙ্গ করে গাড়ি থেকে নেমে যায়। ঠিক একই রকম ভাবে মৃত্যুকে ফাকি দেবার চেষ্টা করেছিলো Sisyphus । আর এর ফলেই Sisyphus এর মতই জেসকেও অনন্তকাল টাইম লুপে ফেলে শাস্তি দেয়া হয় । ফলে জেস এর জীবনে একই ঘটনা ঘটে অনন্ত বার….সে পরে যায় টাইম লুপে । তার মানে, টাইম লুপটা জেসের একটা শাস্তি

 

 

 

মূল চরিত্র জেস্ কেন বারবার তার প্রতিরূপ সৃষ্টি করেছে? এর পিছনের কারণ সে বারবার ফিরে এসে তার ছেলেকে বাঁচাতে চাচ্ছে । কিন্তু একবারও তার ছেলেকে বাচাতে পারে না। ফলে সে একই রকম একটা লুপে পরে যায় । ফলে একই ঘটনা বারবার ঘটতে থাকে । এখন এই লুপ থেকে বাচার পথ হিসেবে জাহাজে থাকা মুখোশ পরা জেস্ তার অন্য জেসকে বলে, সে যেন সবাইকে মেরে ফেলে । কারন তার অনুমান হয় যে, হয়তো অন্য সবাইকে মেরে ফেললে লুপ বন্ধ হয়ে যাবে ।

আর সে নিজেই তার টাইম লুপকে জটিল করে তার অতৃপ্ত বাসনার লোভে । নিজেই নিজের লুপকে বাড়বার শুরু ও শেষ করে……আবার পুনরায় শুরু করে । আর বাড়বার একই ভুল করার এই অযৌক্তিক বাসনার প্রেরনা সৃষ্টি হয় তার অতৃপ্ত বাসনা থেকে ।

প্রতিটি লুপ শুরু হয় তাদের ট্রায়েঙ্গেল জাহাজ থেকে! শাস্তিটা যেহুতু জেস এর সেহুতে জেস ই লুপ টা সম্পর্কে বুঝতে পারে এবং আবার সেটা ভাঙ্গা স্বপ্নের মত ভুলেও যায়। সে মুভিতে একবার ঘুমিয়ে পরে । এই ঘুমের মাঝেই সে সব ভুলে যায়, কিন্তু ভাষা ভাষা মনে থাকে ।

 

 

মুল চরিত্র জেসের অতৃপ্ত বাসনাটি হলোঃ  তার ছেলেকে বাচিয়ে রাখা, তার ছেলের মৃত্যুর জন্য সে নিজেকে দায়ী ভাবে । আর এই অপরাধবোধ থেকে মুক্তি পাওয়াই তার প্রধান কাজ । সে কখনই তার অপরাধবোধ থেকে মুক্তি লাভ করতে পারে না………..এভাবেই চলতে থাকে অনন্তকাল ।

 

 

আসলে মুভির অন্য সকল চরিত্রও মারা গিয়েছে কিন্তু তাদের কোন স্মৃতি নেই । আর জেস এর স্মৃতি কিন্তু ফুল ক্লিয়ার মনে নেই । অন্যেরা মারা গিয়েছে যখন ১১.৩০ সকালে । আর জেস মারা ৮.২০ সকালে । ঝড়টা শুরু হয় ১১.৩০ সকালে । যার ফলে বোঝা যায় অন্যেরাও মারা গেছে এবং অন্যেরাও লুপে আছে কিন্তু অন্যেরা কষ্টে নেই । কারন তাদের পুরাতন স্মৃতি নেই । জেসের পুরাতন স্মৃতি থাকায় সে বুঝতে পারছে সে ঝামেলায় আছে । অন্যেরা ঝামেলা ফিল করছে না । শাস্তি তাদের কারো জন্য নয় । শাস্তি শুধু জেসের জন্য ।

 

মুভিতে দেখবেন যে, জেস গাড়ি এক্সিডেন্ট করার আগেই অন্য আরেকজন জেস কিন্তু পূর্বের জেসকে মেরে ফেলে । মুভির শুরুতেই জেসের রুমে ঢুকে এক জেস অন্য জেসকে মেরে ফেলে । কোন জেস কাকে মেরেছে । এইটা একটা লুপ । এই লুপ তৈরি হচ্ছে তার স্মৃতি ভাষা ভাষা মনে থাকার কারনে সে নিজেই জানে না সে কোন স্তরে কার দ্বারা কখন মারা গিয়েছে । তবে ইয়টের মাঝে ঘুম থেকে উঠে যে জেস , সেইখান থেকে মুভির শুরু ধরে নিলে অনেকটা সহজে মুভি মিলে যাবে ।

 

 

 

 

 

মুভিটাকে সিকোয়েন্স অনুযায়ী সাজালে এমন হয়

 

 

 

মুভির প্রথম জেসকে শেষের জেস হাতুরি দিয়ে খুন করে । কারন হলো , সে আগের ভার্সনের চেয়ে নিজেকে বেটার ভাবে । আগের ভার্সনকে তাই সে মেরে ফেলে । বেটার ভার্ষন হওয়ার চেষ্টা করতে করতেই তাকে শাস্তি পেতে হবে ।
জেস তার এই শাস্তির কারনই হলো তার নিয়ন্ত্রনহীন রাগ । তার রাগের কারনেই সে তার ছেলেকে মারধর করে, ধমক-টমক দেয় । সে এই রাগের কারনকেই , তার ছেলের মৃত্যুর কারন হিসাবে ভাবে । এটাই তার অপরাধবোধ । যার ফলে সে জানালা দিয়ে যখন আগের ভার্সনের রাগী জেসকে দেখে তখন সে , আগের ভার্সনের জেসকে মেরে ফেলে, এবং ভাবে যে, সে এখন রাগ কন্ট্রোল করতে পারা ভার্সনের একজন জেস । সে নিজেকে শুদ্ধ ও ভদ্র টাইপের জেস হিসাবে ভেবে নেয় । সে নিজেকে আগের ভার্সনের চেয়ে বেটার ভাবে । ফলে অগের ভার্সনকে মেরে সে তার স্থান দখল করে নেয় । সে ভাবে এখন থেকে সে ভাল মা হিসাবে থাকবে । সে তার সন্তানকে ভালবাসবে । এভাবেই সে তার অপরাধবোধ থেকে মুক্তি পেতে চায় । সে তার সন্তানকে বর্তমান বাসা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যেতে চায় কারন এই বাসায় আগের ভার্সনের রক্তাক্ত লাশ দেখে সন্তান ভয় পেয়েছে । কিন্তু গাড়ীতে করে অন্য জায়গায় যাওয়ার সময় তার রেগের কন্ট্রোল আবার হাড়িয়ে ফেলে, এক্সিডেন্ট হয় । এক্সিডেন্ট হওয়ার পর সে মারা যায় এবং বুঝতে পারে যে, আসলে তার রাগের কারনেই সে এই এক্সিডেন্ট করলো । আবার তার মনে অপরাধবোধ তৈরি হলো । সে মৃত্যুকে ফাকি দিয়ে তার সন্তানকে বাচানোর জন্য লুপে প্রবেশ করার সিদ্বান্ত নেয় । কিন্তু লুপে প্রবেশ করার পর সে একবার ছোট জাহাজের ভিতর ঘুমিয়ে পরে, ঘুম থেকে ওঠার পর সে তার আগের অনেক স্মৃতি ভুলে যায়, কিন্তু কিছু কিছু স্মৃতি মনে থাকে । ঝড়ে পরে সবাই মরে যায়, কিন্তু জেস ছাড়া সবাই সবার মৃত্যুর স্মৃতি ভুলে যায় । জেসের সম্পুর্ন স্মৃতি মনে থাকে না কিছু স্মৃতি ভুলে যায় আর কিছু স্মৃতি মনে থাকায়, সে কষ্ট পেতে থাকে, যেখানে অন্যেরা মৃত্যুবরণ করার পরো কষ্ট পায় না । কারন অন্যরা মারা যাবার পর মৃত্যুর স্মৃতি ভুলে যায়, ফলে তারা বুঝতেই পারে না যে, এটা একটা শাস্তি । এভাবে লুপ থেকে একবার জেস বের হয়, অপরাধবোধ থেকে আবার লুপে প্রবেশ করে, আবার প্রতিজ্ঞা করে, আবার প্রতিজ্ঞা ভাংগে, অর্থাৎ নিজের সাথে নিজে ওয়াদা ভঙ্গ করে । এভাবে অনন্তকাল লুপ চলতেই থাকে ।

 

 

 

………………..এই মুভির আরো ভিন্ন ধরনের কিছু ব্যাখ্যা আছে, যেগুলো অন্য কোন দিন হয়তো পোস্ট করা হতে পারে ।

সকলকে ধন্যবাদ ।

মুভিটা আবার দেখুন…………………………..

Error: No API key provided.

(Visited 543 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ২ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Best one i watched ever 🤔 still thinking about it

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন