ন্যাটালি পোর্টম্যান : এক এ্যাডুকেটেড অভিনেত্রীর জন্মদিন।

ন্যাটালি পোর্টম্যান নাম টা শুনলেই আপনার চোখে ভেসে উঠবে উজ্বল বুদ্ধিদীপ্ত বাদামি একজোড়া, সোনালি বাদামী মিশ্রিত চুল আর মায়াময় লালচে ফর্সা এক মুখ। আমিও ব্যাতিক্রম না তবে অধিকাংশ সময়ে আমার ভেসে ওঠে সদ্য জেল থেকে ছাড়া পাওয়া একটি মেয়ের মুখ যে অরাজনৈতিক চক্রান্তে পড়ে নিজের চুল হারিয়ে ন্যাড়া হয়ে জেলের জীবনযাপন করছিল, এবং ছাড়া পেয়ে একটুকরো বাতাসের মধ্যে বৃষ্টির পানির ফোটায় সে আকুলি বিকুলি করছে। মেয়েটি ন্যাটালি নয় হতেই পারে না। ভি এর মতে সে ই’ভি।

13412861_515863875267340_1302863219360871260_n
আপনি প্রত্যেক সময়ে দেখবেন যে কোন ফেস্টিভ্যালে পুরুষ থেকে নারীসংখ্যা কম থাকে। কম নারীরা সবাই সবকিছু দিয়ে পারফেক্ট হয় না, কেউ কেউ প্রবল সুন্দরী হয় তবে তার অভিনয় গুন একেবারে যাচ্ছেতাই।আবার কারও অভিনয় সুন্দর কিন্ত সুশ্রী না সুন্দর না সহজ ভাষা সেক্সি না। আবার এই দুইগুন সম্মত অভিনেত্রী হলে তাদের চরিত্রেরর ব্যপ্তি অনেক কম থাকে, তাদের নিজেদের তুলে ধরার কোন মাধ্যম থাকে না। তবে ন্যাটালি পোর্টম্যান এমন একজন নারী অভিনেত্রী যিনি সবসময় সুন্দর,নিজের ভেতর ধারন দুর্দান্ত অভিনয়গুন এবং সকল মুভিতেই তার চরিত্র বেশ গুরুত্ববহন করে। তাই ন্যাটালি পোর্টম্যান কে কোন দিদ্ধা ছাড়াই একজন ন্যাচারাল অভিনেত্রী বলা যায়।


ন্যাটালি পোর্টম্যান ইসরায়েল এর জেরুজালেম শহরে ন্যাটালি হার্শল্যাগ এ ১৯৮১ সালের ৯ ই জুন জন্মগ্রহন করেন। বাবা মায়ের একমাত্র সন্তান তিনি।ইসরায়েল এ জন্ম নেবার কারনে তিনি একজন ইসরায়েলী-মার্কিন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। সমসাময়িক অভিনেত্রীদের মধ্যে তাকে অন্যতম শ্রেষ্ঠ প্রতিভাবান বলে ধরা হয়,কারন অল্প বয়সেই তিনি অস্কার নামক রহস্য ধরে ফেলেছেন। ন্যাটালি পোর্টম্যান মাত্র ৪ বছর বয়সেই নাচ শেখা শুরু করেন। ছোটবেলা থেকেই তার অভিনয়ের প্রতি প্রবল আগ্রহ ছিল। একদিন এক মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব তাকে শিশু মডেল শিল্পী হিসেবে তার সাথে কাজ করতে বললে তিনি তা না করে দেন কারন তিনি স্বপ্ন দেখতেন একজন বড় অভিনেত্রী হতে।। তিনি তার সংকল্প ধরে রেখেছেন এবং সিনেমার পর্দায় প্রথম আসেন ১৯৯৪ সালে লিওনঃ দ্যা প্রফেশনাল সিনেমার মাধ্যমে। এরপর পিছে ফিরে তাকে তাকাতে হয় নি এগিয়ে গেছেন তার সংকল্পের টানে এবং নিজের প্রতিভার সাহায্যে।


পুরষ্কার এর ঝুলি তার বেশ বড় এই বয়সেই পেয়ে গেছেন অস্কার। এছাড়া দুইটা গোল্ডেন গ্লোব, একটা বাফটা সহ একান্ন টি পুরষ্কার তিনি জিতেছেন সাথে আছে ৮৭ টি পুরষ্কারের নমিনেশন।তার সেরা চলচিত্রগুলো হলো: লিওন দ্যা প্রফেশনাল, হিট,বিউটিফুল গার্লস,কোল্ড মাউটেন্ট, স্টার ওয়ার্স এপিসোড ১ ও ২, ভি ফর ভেনডেট্টা, আই এম স্টিল হিয়ার,ব্লাক সোয়ান,মাই ব্লু বেরী নাইটস।


নিজ জীবনে তিনি প্রচন্ড এডুকেডেট। তার পিতামাতা ছিল ডাক্তার এবং নিজের পরিবার বেশ প্রভাবশালী। তেমনি পোর্টম্যান নিজেও একজন সায়েন্টিস্ট। নিজের বয়সের অর্ধেক সময়ে এসেও তিনি এখনো আগের মতই সুন্দরী।


“I’m taking it day by day. Right now I like acting, but if something else sparks my interest in college, I’ll do that. It’s so limiting to say, this is it for the rest of my life. There are so many things that interest me: I love math, science, literature, languages.”


সুন্দরী এডুকেডেট অভিনেত্রীদের অন্যতম উদাহরন তিনি। হ্যাপি বার্থডে ন্যাটালি পোর্টম্যান ♥। অনেক অনেক ভাল থাকুন, ভাল সিনেমা আমাদের উপহার দিন এবং সবসময় এরকম সুন্দরী থাকুন।😉 জন্মদিনের অনেক শুভেচ্ছা।

(Visited 95 time, 1 visit today)

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন