Mad Max: Fury Road (পর্ব ২ঃ What an insane movie!!!!)

ইনটেন্স কিছু দেখবেন?? রক্ত গরম করে দেয়ার মত কোন কিছু?? তাহলে ম্যাড ম্যাক্স দেখুন।

What a movie !! What an insane movie!!!!

আগের পর্বে কেন এই সিরিজের মুভি দেখবেন?, তা নিয়ে লিখেছিলাম। এই পর্বটায় এই মাস্টারপিস মুভিটা নিয়ে কথা বলব। কেন মুভিটা মাস্টারপিস? বা আসলেই মাস্টারপিস কিনা?

আজকালকার অ্যাকশান মুভিগুলো মানুষের কাছে তেমন আবেদন সৃষ্টি করতে পারছে না। দর্শক সমালোচকরা আসলে এই ব্যাপারে চিন্তিত। কিন্তু অ্যাকশান মুভির এই দুর্দিনে কিভাবে একটি মুভি দর্শক আর সমালোচকদের কাছে সমান ভাবে জনপ্রিয়তা পায়?
8.7/10·IMDb

98%·Rotten Tomatoes

89%·Metacritic

4/4-Roger Ebert

 

  • যেই অ্যাকশান মুভিতে এমন কেউ নাই যার সাথে দর্শক লিঙ্ক আপ করতে পারে, নিঃসন্দেহে ওইটা একটা জঘন্য মুভি। সাধারনত এই লিঙ্ক আপের ব্যাপারটা আমরা হিরোর সাথেই করতে চাই।যখন সেই ব্যক্তি বিপদের মধ্যে পড়ে আমরা সিট আকড়ে ধরে বসি তার কি হবে সেটা দেখার জন্য, অবশ্যই মুভি কখন শেষ হবে এই কথা ভেবে ওই টাইমে ঘড়ি চেক করি না। সেক্ষেত্রে লিঙ্ক আপটা তখনই হয় যখন,তামিল হিরোদের মত কিংবা বলিউডের হিরোদের মত ব্যাড অ্যাস না হয়ে হিরো আমাদের মতই সাধারন কেউ হয়। আমাদের হিরো ম্যাড ম্যাক্স ঠিক সেইরকমই । হিরোকে ডিরেক্টর মুভির প্রথমেই ভালনারেবল বানিয়ে দিয়েছেন কয়েকটা ডায়ালগের মাধ্যমে। কথাগুলো ভালমত খেয়াল করলেই বুঝবেন–
    I told myself… they cannot touch me. They are all dead. I am the one who runs from both the living and the dead. Hunted by scavengers. Haunted by those I could not protect. So I exist in this Wasteland. A man reduced to a single instinct: survive.
    এর পরের কয়েকটা দৃশ্যে এই কথার আরো ভালো প্রমাণ পাওয়া যায়।ম্যাক্স এর হ্যালুসিনেশন কিংবা ভিলেনদের কাছ থেকে পালানোর ব্যর্থ চেষ্টা থেকে।
    মুভির মাঝে এরকম শত শত উদাহরন আছে যা ম্যাক্স কে একজন মানুষ হিসেবে ফুটিয়ে তুলেছে সুপারহিউম্যান না।

    Mad to run from both the living and the dead

 

  • অ্যাকশান মুভির গল্প জমে ওঠে অসাধারন ভিলেনদের জন্য। ভিলেন পুরোপুরি হিরোর বিপরীত তারপরেও হিরোর সাথে তার এক জায়গায় মিল থেকে যায়। এক্ষেত্রে ইম্মোর্টান জো অসাধারণ। কারণ সে আর ম্যাক্স দুজনেই পাগলাটে এবং নাছোড়বান্দা। আরেকটা ব্যাপার ভিলেনের মোটিভেশন। এই মুভিতে ভিলেন কোন অর্থ সম্পদ কিংবা ক্ষমতার জন্য দৌড়াচ্ছে না। সে শুধু তার স্ত্রীদের ফেরত চায়। ভালোভাবে বলতে গেলে বলতে হয় তার স্ত্রীদের গর্ভে যে বাচ্চা আছে তাদের ফেরত নিতে সে নাছোড়বান্দা। এক্ষেত্রে, ডিরেক্টর শুধু নায়ক না ভিলেনের দুর্বলতাও ফুটিয়ে তুলেছেন।ভিলেনদের প্রত্যেকেই শারিরীক সমস্যা নিয়ে বেচে আছে।
  • এবার আসা যাক স্টান্টের কথায়। স্টান্ট মানে শুধুই স্টান্ট, ক্যামেরার কারসাজি না। এই মুভিতে অ্যাকশানগুলো আসলেই আকশান এবং সেই অ্যাকশানগুল কোন ক্যামেরার ঝাকাঝাকি কাপাকাপি দিয়ে লুকানো না। মুভির শুরুর দিকের একটি হ্যান্ড কমব্যাট আছে। আমার মতে এটি যেকোন অ্যাকশান মুভি ম্যাকারদের জন্য একটি ফলো করার মত সিন।

এই মুভিতে যে সকল গাড়ি ওড়াউড়ি দেখানো হয়েছে তা আসলেই গাড়ি ওড়াউড়ি কোন ভিজুয়াল ইফেক্ট না। এক্ষেত্রে জর্জ মিলার তার চিরায়ত রিয়েলস্টিক ব্যাপারটা ধরে রেখেছেন।

একটা দৃশ্যের কথা না বললেই নয়। যারা Indiana Jones and the Raiders of the Lost Ark দেখেছেন তাদের ওই দৃশ্যে চোখ আটকে থাকবে। জীপ চেস এর ওই দৃশ্যটা নিসন্দেহে স্টান্ট এর একটা ভালো উদাহরণ। টম হার্ডিকেও আমরা ওই রকম কিছু করতে দেখব।

  • এই মুভির দূর্বলতা বলতে এর কাহিনী (এখন কাহিনী বললে তো আবার স্পয়লার হয়ে যাবে )। কাহিনী কোন আহামরি কিছু নয়। কোন আহামরি টুইস্ট নেই। কিন্তু ম্যাড ম্যাক্স এর আগের ছবি গুলো দেখলে বুঝবেন সিরিজটাই অনেকটা এরকম। হয়তো জর্জ মিলারের ম্যাক্স এর গল্প বলা আরও বাকি।(Mad Max: Wasteland সেই ইঙ্গিতই দেয়।)।

তবে আপনি এর ফুলপ্যাক অ্যাকশান দেখে এতটাই মুগ্ধ হবেন যে দম ফেলার কথাই মনে থাকবে না। কাহিনী নিয়ে ভাবা তো পরের কথা। এক নিঃশ্বাসে কত অ্যাকশান আপনি দেখতে পারবেন? একটা অ্যাকশান সিকুয়েন্স আধাঘন্টার চেয়েও বেশি!!!!

  • মুভির ক্যারেক্টার বিল্ড আপ খুব ভালো।হিরো ভিলেনের কথা তো আগেই বললাম।
    এই মুভির অন্যতম ক্যারেক্টার ফিউরিওসা। মজার ব্যাপার শার্লিজ থেরন এর এই চরিত্রটিকেই ছবির মুল চরিত্র মনে হবে। ছবিতে সেই সবচেয়ে ব্যাড অ্যাস চরিত্র।ফিউরিওসার অতীত এর কাহিনীর মাধ্যমে ক্যারেক্টারটি পুর্ণতা পেয়েছে।

    Furious Furiosa

  • এই মুভির সবচেয়ে ইন্টারেস্টিং ক্যারেক্টার নিকোলোস হল্ট এর করা নাক্স চরিত্রটি। নাক্স এর একটা ডায়লগ আপনি মাথা থেকে বের করতে পারবেন না–

    What a day! What a lovely day !!!

  • এছাড়া ভিলেনের স্ত্রীর চরিত্রে প্রত্যেক অভিনেত্রীই ভালো অভিনয় করেছেন।

    অন্যান্য ছোটখাট ক্যারেক্টার, তাদের পোষাক, মেকাপ, তাদের ডায়লগ সবকিছুই যেন খাপে খাপ মিলে গেছে।
  • আরেকটা চরিত্র আছে যে পুরোটা সময় একটা ট্রাকের মাথায় চড়ে ইলেক্ট্রিক গিটার বাজায়, যে গিটারের মাথা থেকে আবার আগুনও বের হয়ে আসে। This is what I call insane . মজার ব্যাপার এই গিটারের মিউজিকটাই অ্যাকশানএর সময় ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক হিসেবে ব্যাবহার হয়েছে।সঙ্গে অবশ্য অনেক ড্রামবাদকও আছে। (অনেকটা Birdman(2014) মুভির মত এতে রাস্তার পাশে একজন ড্রাম বাজায় যা পুরো মুভিতে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে। দুখের বিষয় অনেকেই এই চমৎকার জিনিসগুলো খেয়াল করে না।)

    Insane !!!!

  • এই মুভিতে জর্জ মিলার যা করেছেন জেনে বুঝে করেছেন। মুভি জুড়ে শুধুই ধ্বংস যজ্ঞ আর পাগলামি। এরকম ধ্বংস যজ্ঞ আর পাগলামি অন্য মুভিতেও আছে। কিন্তু অন্য মুভির সাথে এর পার্থক্য এখানেই যে, আপনি আসলে জানবেন “কেন এই পাগলামী হচ্ছে?”

এরকম আরো বহু খুটিনাটি বিষয় মিলে মুভিটাকে মাস্টারপিস অ্যাকশান মুভিতে পরিণত করেছে।

কিছু অ্যাকশান মুভি আছে যেগুলো অন্য মুভিকে ইনফ্লুয়েন্স করে আসছে, অনুপ্রেরণা দিয়ে আসছে। যেগুলো এখনো মাইলফলক হিসেবে অন্য ডিরেক্টররা ফলো করেন। যেমনঃ Indiana Jones and the Raiders of the Lost Ark(1981), Die Hard(1988), Terminator 2: Judgment Day (1991), The Matrix(1999), The Dark Knight ( 2008). নিঃসন্দেহে  Mad Max: Fury Road এই কাতারে যোগ হচ্ছে।

 

আপাতত এর অসাধারণ থিমটা শুনতে থাকুন ।

 

 

শেষের কথাঃ এই সিনেমার সত্যিকারের মজা পাবেন  হলে গিয়ে থ্রিডিতে দেখলে। আমি হলে গিয়ে একটু হতাশ হয়ে গেছি। হলের বেশির ভাগই ফাকা। এখনো এক সপ্তাহ হয় নাই তাতেই এই হাল। তবে সামনের সিটে এক ষাটোর্ধ আংকেলকে দেখলাম। উনি পুরা মুভি বেশ উপভোগ করেছেন। কয়েকটা সিনে তার হাসির শব্দই তার প্রমাণ। কে জানে জর্জ মিলারে ফ্যান বোধহয়।

 

 

Mad Max: Fury Road (2015)
Mad Max: Fury Road poster Rating: N/A/10 (N/A votes)
Director: George Miller
Writer: George Miller, Brendan McCarthy, Nick Lathouris
Stars: Tom Hardy, Charlize Theron, Nicholas Hoult, Rosie Huntington-Whiteley
Runtime: 120 min
Rated: R
Genre: Action, Adventure, Thriller
Released: 15 May 2015
Plot: In a stark desert landscape where humanity is broken, two rebels just might be able to restore order: Max, a man of action and of few words, and Furiosa, a woman of action who is looking to make it back to her childhood homeland.

(Visited 176 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ৯ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Shihab says:

    movier direct download link ta dite parben keo? dle vlo hoto

  2. I saw this movie last Friday
    Just insane ekta movie

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন