‘Moana’ (2016) ‘ডিজনী’র অ্যানিমেশন জগতে এ যাবৎকালের শ্রেষ্ঠ মাস্টারপিস… !!!
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

moana-poster

 

 

 

অ্যানিমেশন মুভির জগতে ‘ডিজনী’ হচ্ছে একটি মুকুটহীন সম্রাটের নাম। সেই ১৯৩৭ সালে ‘স্নো হোয়াইট এন্ড দ্য সেভেন ডোয়ার্ফ’ মুভি দিয়ে ডিজনীর অ্যানিমেশন মুভির পথচলা শুরু তার যাত্রা এখনো সফলতার সাথে অব্যাহত রয়েছে। ‘ডিজনী’র সব থেকে বড় স্পেশ্যালিটি হচ্ছে তারা নারী প্রধান চরিত্র নিয়ে অ্যানিমেশন জগতে কাজ করেছে সব থেকে বেশী ও এমন অনেক নারী চরিত্রকে সারা বিশ্বের কাছে বিখ্যাত করে তুলেছে যাদেরকে বলা হয় ‘ডিজনী প্রিন্সেস’ নামে। ‘ডিজনী’র নারী প্রধান অ্যানিমেশন মুভি গুলো হলো ‘স্নো হোয়াইট এন্ড দ্য সেভেন ডোয়ার্ফ’, ‘সিনডারেলা’, ‘অ্যালিস ইন ওয়ান্ডারল্যান্ড’, ‘স্লিপিং বিউটি’, ‘দ্য লিটিল মারমেইড’, ‘বিউটি এন্ড দ্য বিস্ট’, ‘দ্য প্রিন্সেস এন্ড দ্য ফ্রগ’, ‘ট্যাংলেড’, ‘ফ্রোজেন’ ও সর্ব শেষ ‘মোয়ানা’। ‘ডিজনী’র আরো একটি বিশেষ স্পেশ্যালিটি হচ্ছে তারা রূপকথা নিয়ে কাজ করতে পছন্দ করে বেশী। বইয়ের পাতা থেকে তারা রূপকথাকে রূপালী পর্দায় অ্যানিমেশন ও লাইভ অ্যাকশন রূপে উপস্থাপন করে বাচ্চা থেকে শুরু করে বুড়ো সবারই মন জয় করতে যথেষ্ঠ পারদর্শী।

 

 

 

Maui-Snaring-the-Sun-C1-e1431995535618

 

 

 

‘ডিজনী’ অ্যানিমেশন সিরিজের ৫৬ তম মুভি ‘মোয়ানা’। বরাবরের মতই এ মুভিটিও তৈরী হয়েছে রূপকথা থেকে তবে সেটি অন্যান্য বারের মত কোন বিখ্যাত আমেরিকান রাইটারের রূপকথার বই নয় বরং অখ্যাত পলিনেশিয়ান মিথলজী থেকে। মুভিটি মূলত পলিনেশিয়ান ডেমিগড ‘মাউই’কে নিয়ে নির্মিত। ‘মাউই’ শুধুমাত্র পলিনেশিয়ান মিথলজীই নয় তার বর্ণনা আছে ‘হাউয়াইয়ান মিথলজী’, ‘মাওরি মিথলজী’, ‘টোংগান মিথলজী’, ‘তাহিতিয়ান মিথলজী’, ‘মাংগারিভান মিথলজী’ ও ‘সামোয়ান মিথলজী’তেও। পলিনেশিয়ান মিথলজী অনুযায়ী ‘মাউই’কে একজন গ্রেট কালচার হিরো হিসেবে ধরা হয়। তার কীর্তিকলাপের গল্প প্রায় প্রতিটি পলিনেশিয়ান ভূমীতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। বেশীর ভাগ জায়গাতেই তাকে একজন স্বর্গীয় ডেমিগড হিসেবে ধরা হয় আবার কিছু কিছু জায়গায় তাকে শুধু মাত্র একজন মানুষ হিসেবে গণ্য করা হয়। বিভিন্ন মিথলজীতে ‘মাউই’ এর নানান রকম জন্মপরিচয় ও শক্তির কথা বর্ণনা করা হয়েছে যার কিছু নমুনা মুভিতেও দেখানো হয়েছে। মুভিতে ‘মাউই’ এর প্রধাণ শক্তি হিসেবে দেখানো হয়েছে দেবতাদের কাছ থেকে পাওয়া একটি বিশাল দন্ড যার শক্তির বলে সে যেকোন প্রাণীর রূপ ধরতে পারে ও যেকোন অসাধ্য সাধন করতে পারে। মুভিটি ‘মাউই’কে নিয়ে নির্মিত হলেও মুভিটির প্রধাণ গল্প আবর্তিত হয়েছে ‘মোয়ানা’ নামক একটি মেয়েকে ঘিরে যে কিনা এক ভয়ংকর সমুদ্র যাত্রায় বেরিয়ে পড়ে ডেমিগড ‘মাউই’কে খুঁজে বের করতে যেন সে ‘মাউই’ এর সাহায্যে তার দ্বীপ ও সম্প্রদায়কে অশুভ শক্তির হাত থেকে রক্ষা করতে পারে।

 

 

 

MoanaPortrait.0

 

 

 

MauiMoana

 

 

 

‘মোয়ানা’ এমনই এক চরিত্র যে কিনা তার গোত্রের একজন নেতার মেয়ে ও উত্তরাধীকার সুত্রে সেই হবে তার গোত্রের নেতা কিন্তু তার মন পড়ে থাকে সমুদ্রে। সমুদ্র তাকে হাতছানি দিয়ে ডাকে সব সময়। একদিকে বাবার আশা, একদিকে গোত্রের ভবিষ্যত, একদিকে আসন্ন বিপদ থেকে নিজের গোত্রকে বাঁচানো ও অন্যদিকে নিজের সমুদ্র যাত্রার অভিযানের দুর্বার স্বপ্ন এমনই এক সময়ে ‘মোয়ানা’কে বেছে নিতে হয় জীবনের সব থেকে কঠিন সিদ্ধান্ত। ‘মোয়ানা’ যেন আমাদেরই দৈনন্দিন জীবনের একটি প্রতিচ্ছবি যেখানে আমাদের মনের ভিতর আমরাও কিছু স্বপ্ন লালন করে থাকি কিন্তু সমাজ ও পরিবারের চাপে একসময় সেগুলো আমারা বিসর্জন দিতে বাধ্য হই সঠিক সিদ্ধান্ত ও সাহসের অভাবে। বরাবরের মতই ‘মোয়ানা’ মুভিটি মূলত নারী শক্তিকে উজ্জীবিত করার একটি সফল প্রচেষ্টা ছিল তবে এ ক্ষেত্রে এ মুভিটি ‘ডিজনী’র অন্যান্য নারী প্রধাণ মুভি গুলোর থেকে একটু বেশীই সফল কারণটি হচ্ছে স্বয়ং ‘মোয়ানা’ চরিত্রটি। ‘ডিজনী’র অন্যান্য প্রিন্সেসগণ প্রায় সবাই মুভির নায়কের কিছু না কিছু ছায়ার তলে পড়েছে কিন্তু এ মুভিটি ‘মোয়ানা’ একাই টেনে নিয়ে গেছে ও ‘মাউই’কেই মূলত গোটা মুভিতে ‘মোয়ানা’র ছায়া সঙ্গী হিসেবে কাজ করতে হয়েছে। যদিও ‘মাউই’ হচ্ছে দ্য গ্রেট ডেমিগড কিন্তু এ মুভিতে তাকে দেখানো হয়েছে একজন স্বার্থপর, অহংকারী, সুযোগ সন্ধানী, লোভী, ভিতু ও ভুলে ভরা একজন দেবতা হিসেবে। ‘মোয়ানা’ই তাকে শেখায় কিভাবে সব ভয়, অহংকার, লোভ জয় করে মানুষের জন্য নিঃস্বার্থ ভাবে প্রাণ দিয়ে মানুষের কাছে একজন প্রকৃত দেবতা হয়ে উঠতে পারা যায়। পাশাপাশি এ মুভির সব থেকে বড় মেসেজটিই ছিল প্রকৃতির প্রতি ভালবাসা। যদি তুমি প্রকৃতিকে ভালবাসো, তবে প্রতিদানে প্রকৃতিও তোমাকে ভালবাসবে আর তুমি যত রূঢ় হবে প্রকৃতির প্রতি, প্রকৃতিও তার দ্বিগুণ রূঢ়তা ফিরিয়ে দিবে তোমায়।

 

 

 

carvalho-with-the-rock

 

 

 

157114313-001

 

 

 

‘মোয়ানা’ চরিত্রে অসাধারণ কন্ঠ দিয়ে অভিনয় করেছে নবাগতা ১৬ বছর বয়সী হাওয়াইয়ান নায়িকা ও গায়িকা ‘Auli’i Cravalho’। এ মুভিতে তার কন্ঠে গাওয়া গান গুলো ছিল অত্যান্ত মনকাঁড়া আর মুভিতে তার অ্যানিমেশনে ‘মোয়ানা’র কার্লি চুলের যে অভাবনীয় বাস্তবসম্মত চেহারা বানানো হয়েছে, আমার মতে ‘ডিজনী’র ইতিহাসে ‘মোয়ানা’ হচ্ছে সব থেকে সুন্দরী ও মায়াবী চেহারার প্রিন্সেস এবং মুভিটি দেখার পর তার ক্রাশ খাবে না এমন কেউ নেই। এ ছাড়াও ‘মোয়ানা’র ছোট্ট বেলার লুকটাও ছিল চরম মাপের কিউট। সব মিলিয়ে ‘মোয়ানা’র সাহসীকতা ও সৌন্দর্য্যের কাছে ‘ফ্রোজেন’ এর ‘আনা’ ও ‘এলসা’ এবং ‘ট্যাংলেড’ এর ‘রুপানজেল’ও কিছুই না। আর অবশেষে যার কথা না বললেই নয় সে হচ্ছে ওয়ান এন্ড অনলি ‘ডোয়াইন দ্য রক জনসন’। এই অভিনেতাটি যে খেল দেখিয়েছে ‘মাউই’ চরিত্রে এক কথায় তার কোন জবাব হবে না। ‘রক’ এর সেই বিশাল ট্যাটু আকানো শরীরটাই অ্যানিমেশনের মাধ্যমে দেয়া হয়েছে ‘মাউই’কে। অসাধারণ সেন্স অফ হিউমার ও অহংকারে ভরপুর ‘মাউই’ চরিত্রে ‘রক’ একদম মিশে গিয়েছে। ‘রক’ এর প্রতিটি দৃশ্যই কমেডি হোক আর অ্যাকশন সব গুলোই ছিল সমান উপভোগ্য যা দর্শককে সব দিক থেকে সমান ভাবে আনন্দ দিবে। পাশাপাশি দ্বিতীয় বারের মত (প্রথম বার ‘জার্নি টু দ্য মিস্টিরিয়াস আইল্যান্ড) ‘রক’ এর গলায় গাওয়া পুর্ণাংগ গান দর্শকের সামনে ‘রক’ এর আরো একটি অসাধারণ প্রতিভার উন্মেচন করবে। কেউ যদি শুধু মাত্র ‘রক’ এর পারফর্মেন্সের জন্য মুভিটি দেখতে যায় তবে তার পুরাই পয়সা উসুল সাথে বোনাস হিসেবে সে পাবে সুন্দরী ‘মোয়ানা’কে। হলিউডে এখন ‘রক’ই একমাত্র অভিনেতা যে কিনা লাগাতার ভাবে বাচ্চাদের জন্য কমেডি, ফ্যান্টাসী থেকে শুরু করে অ্যাকশন লাভারসদের জন্য হার্ডকোর অ্যাকশন হিট মুভি উপহার দিয়ে যাচ্ছে এবং সেই একমাত্র নায়ক যে কিনা বাচ্চা থেকে বুড়ো সবার কাছেই সমান জনপ্রিয় এবং এ বছর ২০১৭ তে তার মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ‘ফেট অফ দ্য ফিউরিয়াস’, ‘বেওয়াচ’ ও বাচ্চা থেকে বুড়ো সবার জন্য বহুল আকাংক্ষিত ‘জুমাঞ্জি’ তার এই জনপ্রিয়তা আরো এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে।

 

 

 

MOANA (Pictured) Te Kā. ©2016 Disney. All Rights Reserved.

 

 

 

Moana-escape-from-Kakamora

‘মোয়ানা’ এমনই এক মুভি যা ডিজনী’র এ যাবৎকালের ৫৫টি মুভির থেকে সম্পুর্ণ আলাদা। মুভির গল্পটি আহামরি কিছু না হলেও মুভির মেকিং ও গল্পের প্রেজেন্টেশন এক কথা অতুলনীয় যা দর্শককে মোহিত করে আসনে বসিয়ে রাখতে বাধ্য করবে। এ মুভির অর্ধেকের বেশীই হচ্ছে সমুদ্র যাত্রা ও সবুজে ঘেরা দ্বীপের দৃশ্য যার ফলে অভাবনীয় চোখ ধাঁধানো অ্যানিমেশনের ছোঁয়া দর্শককে করবে মুগ্ধ, বিশেষ করে মুভির শেষ অ্যাকশন দৃশ্যের নজরকাড়া অ্যানিমেশন হার মানিয়ে দিবে ‘ডিজনী’র এ যাবৎকালের সকল অ্যানিমেশন মুভিকে। মূলত প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য ও সমুদ্রের আবহে তৈরী গ্রাফিক্স ও অ্যানিমেশনই হচ্ছে এ মুভির সব থেকে বড় পাওয়া। ‘ডিজনী’র সব থেকে বেস্ট অ্যানিমেশন দেয়া হয়েছে এই মুভিতে। ‘মোয়ানা’ হচ্ছে ‘ফ্রোজেন’ এর মতই এক মিউজিক্যাল মুভি। এ মুভির পরতে পরতে আছে মুভির গল্পের সাথে সম্পর্কিত শ্রুতিমধুর সব গান আর পাশাপাশি পলিনেশিয়ান সংস্কৃতির আবহে তৈরী ব্যাকগ্রাইন্ড মিউজিক ও কিছু পলিনেশিয়ান গান যা দর্শককে দিবে এক অন্য লেভেলের স্বাদ যা সে আগে কখনো কোন অ্যানিমেশন মুভি থেকে পায়নি। মুভির এমনই কিছু গান ও মিউজিক মুভির ট্রেলারেও দেয়া আছে যা দর্শকের মন কাঁড়তে সক্ষম হবে। মুভিতে ‘মোয়ানা’র সমুদ্র যাত্রার সঙ্গী হিসেবে একটি মুরগী তার প্রতিটি কাজ কর্মে দর্শককে চরম হাসাবে এছাড়াও আছে ‘কাকামোরা’ নামক একদল পাগলা নারিকেল জলদস্যু যাদের সাথে ‘মোয়ানা’ ও ‘মাউই’ এর যে অ্যাকশন তা দর্শকদের পুরাই সমুদ্রের পানিতে ‘ম্যাড ম্যাক্স-ফিউরি রোড’ এর স্বাদ এনে দিবে আর ‘টামাটোয়া’ নামক একটি বিশাল মনস্টার ভিলেন কাঁকড়া তার নাচ-গান ও অ্যাকশন দিয়ে দর্শককে করবে ১০০% বিনোদিত এবং মুভির শেষে অসাধারণ গ্রাফিক্সে তৈরী লাভা মনস্টার ‘টি কা’ যেমন করবে দর্শকদের আতংকিত তেমনি দেবী ‘টি ফিটি’র অসাধারণ সৌন্দর্য্য দর্শককে করবে পুরাই বিমোহিত।

 

 

 

moana-1680x1050-disney-animation-hd-8k-3781

 

 

 

 

মুক্তির পরপরই ‘মোয়ানা’ সমালোচকদের মন জয় করে নিয়েছে। মুভিটি ‘পঁচা টমেটো’ থেকে পেয়েছে ৯৫% ফ্রেশ রেটিং এবং ‘IMDb’ থেকে রেটিং ৮। ১৫০ মিলিয়ন বাজেটের ‘মোয়ানা’ উত্তর আমেরিকায় (ডমেস্টিক বক্স অফিস) এখন পর্যন্ত আয় করেছে ২০৩ মিলিয়ন ও সারা বিশ্বে ৩৫৫ মিলিয়ন। মুভিটি বহিঃবিশ্বে এত কম আয় করছে কেন সেটা আমার নিজেরই বোঝার বাহিরে যেখানে ‘ডিজনী’র প্রায় প্রতিটি মুভিই তুমুল আয় করে এবং সর্বশেষ নারী প্রধান মুভি ‘ফ্রোজেন’ ও এ বছরের ‘জুটোপিয়া’ বিলিয়ন ডলার ব্যবসা করেছে। যদিও আমার কাছে ‘ফ্রোজেন’ ও ‘জুটোপিয়া’ একটু বেশীই ওভাররেটেড লেগেছে তার তুলনায় ‘মোয়ানা’ বক্স অফিস, আলোচনা ও জনপ্রিয়তার দিক থেকে আন্ডাররেটেড হয়ে আছে। যাই হোক, ‘মোয়ানা’ এমনই এক মুভি যার প্রকৃত অ্যানিমেশন ও স্পেশ্যাল ইফেক্টের স্বাদ ঘরে বসে ব্লু-রে প্রিন্টে পাওয়াও সম্ভব নয়। এটি ‘ফ্রোজেন’ও নয়, ‘জুটোপিয়া’ও নয় তাই এই মুভির স্বাদ ১০০% নেয়া সম্ভব একমাত্র হলে বসে বিশাল পর্দায় থ্রিডিতে দেখে, অন্যথায় মুভিটি হয়তো আপনার ভাল লাগবে কিন্তু মুগ্ধ করতে পারবে না ও মুভিটি শেষে হাত তালি দিয়ে মুখে একটি তৃপ্তির হাসি নিয়ে হল থেকে বের হবার যে ফিলিং সেটি থেকে আপনি পুরোপুরিই বঞ্চিত হয়ে যাবেন… !!!

 

 

 

Disney-Moana-Movie-Wallpaper-HD

 

Moana (2016)
Moana poster Rating: 8.1/10 (22,873 votes)
Director: Ron Clements, Don Hall, John Musker, Chris Williams
Writer: Jared Bush (screenplay), Ron Clements (story by), John Musker (story by), Chris Williams (story by), Don Hall (story by), Pamela Ribon (story by), Aaron Kandell (story by), Jordan Kandell (story by)
Stars: Auli'i Cravalho, Dwayne Johnson, Rachel House, Temuera Morrison
Runtime: 107 min
Rated: PG
Genre: Animation, Adventure, Comedy
Released: 23 Nov 2016
Plot: In Ancient Polynesia, when a terrible curse incurred by Maui reaches an impetuous Chieftain's daughter's island, she answers the Ocean's call to seek out the demigod to set things right.

এই পোস্টটিতে ১টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. শান্তনু চৌধুরী শান্তনু চৌধুরী says:

    লিখটা খুব ভালো লাগলো । ভালো প্রিন্টের জন্য এখনো দেখেনি । তবে এটা পড়ার পর আরহ আরো বেড়ে গেছে 🙂

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন