মুভি রিভিউ- 100 Days with Mr. Arrogant
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

100_Days_With_Mr._Arrogant_R3_CUSTOM-[front]-[www.FreeCovers.net]

২০০৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত রোম্যান্টিক কমেডি ঘরনার ছবিটির নাম 100 Days with Mr. Arrogant। সাউথ কোরিয়ার এই ছবিটি পরিচালনা করেছে শিন ডং ইয়োপ। ৯৫ মিনিট ব্যাপ্তি ছবিটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছে সাউথ কোরিয়ার দুই সুপার স্টার কিম জাওন এবং হাজি ওন।

ছবির কাহিনী আবর্তিত হয় কাং (হাজি ওন)-কে ঘিরে, যাকে তার বয়ফ্রেন্ড সম্পর্কের ১০০ দিনের মাথায় ব্রেকআপ করে ছেড়ে যায়। আর ব্রেকআপের পর পরই অদ্ভুত ভাবে পরিচয় হয় হাং-জুনের (কিম জাওন) সাথে। ব্রেকআপের কথা মনে করে রাগের মাথায় রাস্তায় পড়ে থাকা কোল্ড ড্রিংকসের ক্যানে কাং লাথি মারলে তা দুর্ভাগ্যক্রমে গাড়ি চালিয়ে চলতে থাকা হাং-জুনের মাথায় লাগে এবং ভারসাম্য রাখতে না পেরে গাড়ি এক্সিডেন্ট হয়, পরিণামে কিছুটা ক্ষতিগ্রস্থ হয় গাড়ি। পরবর্তীতে হাং-জুন কাং-এর কাছে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৩০০০ ডলার চায় কিন্তু সাধারণ পরিবারের সাধারণ ছাত্রী হিসেবে কাং-এর পক্ষে টাকা পরিশোধ করা সম্ভব হয় না। হাং-জুনও নাছোড়বান্দা। ক্ষতিপূরণ হিসেবে হাং একটি চুক্তিপত্রে সই করিয়ে নেয় কাং-এর কাছ থেকে যেখানে বলা হয় ১০০ দিন হাং-এর বাসায় ঘরের যাবতীয় কাজ করে দিতে হবে, তবেই যথাযথ ক্ষতিপূরণ হবে। চুক্তিপত্র অনুযায়ী কাং প্রতিদিন স্কুলের পর হাং-এর বাসায় কাজ করতে থাকে। কিন্তু একদিন সে কোন ভাবে জেনে যায় যে হাং-এর গাড়িতে যে ক্ষতি হয়েছে তা ঠিক করতে মাত্র ১০ ডলার লেগেছে। পরবর্তীতে কাং হাং-এর বাসায় কাজ করতে অস্বীকার জানায়। কিন্তু তবুও পিছু ছাড়েনা হাং। কাং-এর নতুন গৃহশিক্ষক হিসেবে আবর্তিত হয় সে। আর এভাবেই এক সময় একজন আরেকজনের প্রেমে পড়ে যায়। কিন্তু একদিন চুম্বনরত অবস্থায় ওদের দেখে ফেলে কাং-এর মা। হাং-কে কাং-এর কাছ থেকে সরে যেতে বলে তার মা। কিন্তু হাং যে সত্যি ভালোবেসে ফেলেছে কাং-কে। কাং-এর মা তাই হাং-কে শর্ত জুড়ে দেয়। কি সেই শর্ত? দু’জনের মিল কি ঠিকঠাক ভাবেই হয়? এই সব কিছু জানতে দেখতে হবে 100 Days with Mr. Arrogant ছবিটির শেষ অব্দি।

ছবির প্রতিটি অভিনেতা-অভিনেত্রির অভিনয়ও চোখে পড়ার মত। তবে কেন্দ্রীয় নারী চরিত্র কাং-এর ভূমিকায় অভিনয় করা হাজী ওনের ভেতর কিছু কিছু দৃশ্যে অতি অভিনয় লক্ষ্য করা গেছে। তবে ছবির প্রথম ভাগে চটপটে চরিত্রে থাকার পর হাং-এর কাছ থেকে ছেঁকা খাওয়ার পর পরবর্তীতে কাং-এর শান্ত শিষ্ট চরিত্রটা ভালো লেগেছে। এছাড়াও হাং-এর চরিত্রে অভিনয় করা কিম জাওনও যথেষ্ট ভালো করেছে। ছবির গল্প ও পরিচালনাও বেশ গোছানো মনে হয়েছে।

হাস্য রসাত্মক ছবিটির পুরোটাই মজায় ভরপুর। এতে শিক্ষনীয় কিছু হয়ত নেই তবে ১০০ ভাগ পরিপূর্ণ বিনোদন পাবেন দর্শক।

এই পোস্টটিতে ১৫ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Pabon Sarker says:

    ভাই, লিঙ্ক ওপেন করলে এই রকম আসে কেন ?

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন