খ্যাতির বিড়ম্বনাঃ The Misery

লেখকের চিন্তার প্রতিফলন, ভাষার মাধুর্যে তার সুমিষ্ট উপস্থাপন এবং পাঠকের কল্পপ্নার স্বাধীনতার সম্মেলনই একটি বই পাঠক প্রিয় হয়ে উঠে। আর সেটি যদি পরিচালকের মুন্সিয়ানায় পর্দায় সুন্দরভাবে ফুটে উঠে, তবে পাঠক হৃদ্যয় থেকে দর্শকের মনে দাগ কাটতেও সেটির খুব একটা বেগ পেতে হয়না। হুমায়ূন স্যার, চেতন ভাগত, মারিও পুজো, মারগ্যারেট মিশেল, জে কে রাওলিং এবং স্টিফেন কিঙয়ের মত স্বনামধন্য লেখকগণ স্বয়ং এর উদাহরণ হয়ে আছেন। তবে হরর-সাস্পেন্স এবং ড্রামা জন্রার এর জন্যে এদের মধ্যে Stephen King এর নামটিই সবার আগে উচ্চারিত হবে। Shawshank Redemption, The Green Mile, Shinning, Secret Window এর মত কালজয়ী সিনেমাকে সেলুলয়েডের পর্দায় উপস্থাপনের প্রথম ট্রিবিউট তিনিই পাবেন। তার এমন মন্ত্রমুগ্ধ লেখনীর সমাদৃত উপ্ন্যাস ‘Misery’ এর গল্প অবলম্বনে নির্মিত হয় আরো একটি রুদ্ধশ্বাস সিনেমা Misery.
.
Misery (1990)
Genre : Psychological Thriller
Story : Stephen King
Director : Rob Reiner
Starring : Kathy Bates, James Caan
Rotten Tomatoes : 89% fresh
Roger Ebert : 3/4
.
সিনেমাটি শুরু হয় জনপ্রিয় নভেলিস্ট পল শেল্ডন (James Caan ) কে দিয়ে। প্রচন্ড তুষারপাতের মধ্যে দিয়ে তিনি গাড়ি চালিয়ে যাচ্চিলেন। পথিমধ্যে এক দুর্ঘটনায় গাড়িটি খাদে পড়ে যাওয়ায় মারাত্মক আহত হয়ে পড়েন তিনি। জনমানব শুন্য এমন পরস্থিতিতে তাকে উদ্ধার করে বাসায় নিয়ে আসেন প্রাক্তন নার্স Annie Wikes (Kathy Bates). নার্সের সেবায় তিনি কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠলেও উদ্ভুত আচরনে ব্যাপক মুষড়ে পড়তে শুরু করেন। মানসিক অসুস্থ সেই নার্স নিজেকে তার সেরা একজন ভক্ত হিসেবে দাবি করেন। আর সেই দাবির প্রেক্ষিতে তাকে নতুন উপন্যাসটির গল্পে পরিবর্তন আনার জন্যে চাপ প্রয়োগ করতে শুরু করেন। এমন উদ্ভুত পরিস্থিতিতে লেখকের বন্দী দশার অভিজ্ঞতা নিয়েই এগিয়ে যায় সিনেমার কাহিনি।
.

বইয়ের পাতা থেকে তুলে নেওয়া গল্পের উপস্থাপনে যথেষ্ট আবেদন এবং উত্তেজনা ধরে রাখার জন্যে প্রথমেই পরিচালক রব রেইনার প্রশংসা পাবেন। পুরো সিনেমাতেই মেন্টালি ডিস্টারভাভড নার্সের খাম খেয়ালি কর্মকাণ্ডের একটি সাস্পেন্সফুল উপস্থাপন করতে সক্ষম হন তিনি। ভক্তের উদ্ধত আচরনের বিপরীতে নিজকে মুক্ত করার প্রত্যেকটি কৌশল গুলোর সিনেম্যাটিক উপস্থাপন যেন রক্তচাপ নামিয়ে দিচ্ছিল। মানসিক ভারসাম্যহীন একনিষ্ঠ ভক্তের কোমল কিন্তু কর্কশ চরিত্রের মঞ্চায়নে ক্যাথি বেটসও কোন অংশেই নরম্যান বেটসের চেয়ে কম ভয়ঙ্কর ছিলেন না। ভক্তের আচরনে তিনি যতটুকু অনুগত ছিলেন ঠিক ততটুকু রুড় ছিলেন তার একগুয়েমিতে। পুরো সিনেমা জুড়ে তার এমন অভিনয় দিয়েই জিতে নেন অস্কারও। সিনেমায় পল শেল্ডনের ক্যাপটিভিটি, আর ইনজুরিকে অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে আপন করে নিয়েছেন James Caan নিজেও।
.

স্টিফেন কিং এর রহস্য, রব রেইনারের উপস্থাপন এবং ক্যাথি বেটসের অপ্রতিরোধ্য একঘুয়েমি আচরণে নিজেকে মিলিয়ে নেওয়ার অভিনয় দক্ষতার জন্যে সিনেমাটি সাস্পেন্স, থ্রিলার প্রেমীদের জন্যে মাস্ট ওয়াচ।
হ্যাপি ওয়াচিং 🙂

 

 

Error: No API key provided.

(Visited 253 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ২ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. আগে অনেক ভালো ভালো মুভি রিভিউ দিতেন। এখন দেখি না কেন?

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন