সত্যজিৎ রায়—দ্য মায়েস্ত্রো

বলা হয় যে, ক্যান–এ পথের পাঁচালী’র প্রদর্শনী চলাকালে ফ্রাঁসোয়া ত্রুফো মন্তব্য করেন—

 

“I don’t want to see a movie of peasants eating with their hands.”

 

ত্রুফো তখন চলচ্চিত্র সাময়িকী কাইয়ে দ্যু সিনেমা’র জাঁদরেল ক্রিটিক, পরবর্তিতে ফ্রেঞ্চ নিউ ওয়েভ মুভমেন্টের বৈপ্লবিক ফিল্মমেকার। তার ডেব্যু সিনেমা দ্য ৪০০ ব্লোজ–এর কেন্দ্রীয় চরিত্র যদিও এমন আহামরি কোন সামাজিক মর্যাদা সম্পন্ন ছিলনা! ত্রুফো অবশ্য পরে তার মন্তব্য প্রত্যাহার করে পথের পাঁচালী’র গুণমুগ্ধ প্রশংসা করেছেন বলেও জানা যায়।

 

মার্টিন স্করসেজি সত্যজিৎ–কে চারজন মায়েস্ত্রোর একজন হিসেবে গণ্য করেন। চলচ্চিত্র শিল্পে সত্যজিৎ–এর অবদান অনস্বীকার্য।

 

যাইহোক, পথের পাঁচালী’র ঐ অবহেলিত, দলিত শ্রেণী–কে সাম্প্রতিককালের অনেক সিনেমা ফোকাস করেছে। সিন নম্ব্রে থেকে সিটি অফ গড—সবখানেই এই দারিদ্র্যের ভগ্নদশাকে চিত্রায়িত করা হয়েছে অন্তর্নিহিত দুঃখ–দুর্দশাকে কোনোরকম অযৌক্তিক চাটুকারিতা ছাড়ায়, যা প্রশংসাযোগ্য।

(Visited 290 time, 1 visit today)

এই পোস্টটিতে ১টি মন্তব্য করা হয়েছে

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন