Halloween কি?
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0

What is  actually?

– এতদিন এটা নিয়ে খুব একটা মাতামাতি ছিলো না, যা ছিলো ঐ গল্পের বই আর মুভি তেই ।আমিও গল্প আর মুভি তেই এই Halloween কে দেখে এসেছি । কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে আমাদের দেশ সহ আসেপাশের দেশ সমূহ এই Halloween নিয়ে বেশ মেতে উঠেছে এবং North America এর এই Celebration কে আমরাও বেশ মজার সাথেই celebrate করছি। না, আমার পোস্ট টি কোনো ধর্ম নিয়ে নয় বা Halloween পালন করা যাবে বা যাবে না নিয়ে ব্লা ব্লা ব্লা টাইপও নয়। আমি Actually বেশ Interseted হয়ে উঠি আসলে এই Halloween টা কি? এর ইতিহাস কি? এর উৎপত্তি কোথায় বা যারা আজ এটা Celebrate করছে, কেন করছে? শুধু মজার বসে? আচ্ছা মজার বসে করতেই পারে গোটা কয়েক মানুষ কিন্তু এর অবশ্যই একটা নির্দিষ্ট ইতিহাস বা অন্তত Mythical Story তো আছে? কিছুক্ষন google, YouTube ঘেটেঘুটে যা উত্তর পেলাম তা হচ্ছেঃ

Snap-Apple_Night_globalphilosophy

অক্টোবার এর পর থেকে শীত এর আগমন ঘটে, এবং রাত ধীরে ধীরে বড় হতে থাকে সময়ের মাপকাঠি তে।
যেহেতু 17th Century এর সময় টা ছিলো বেশ চাষাবাদ সম্পন্ন এবং সে সময় মনে করা হতো শীত এর সময় টা তে যেহেতু রাতের পরিধি বড় তাই এ সময় টা তে Evil Spirit দের এ দুনিয়াতে আসা-যাওয়ার রাস্তা খুব সহজতর হয়ে পড়ে। যার এক বিরুপ প্রতিক্রিয়া ফসলের উপর পড়ে। ফসল শুকিয়ে যায়, গাছের পাতা শুকিয়ে যায় এবং প্রকৃতি এক মৃত্যু সাজে পরিণত হয়।Pagan Folk কে অনুসরণ করে Catholic Christianity দের এক বিশ্বাস ছিলো যে অপারের মানে যারা মৃত্যু বরন করেছে তাদের খারাপ আত্মা সময় সময়ে আমাদের পৃথিবীতে নেমে আসে এবং অনেক ক্ষতি সাধন করে। এই ক্ষতি হতে রক্ষা পাবার জন্য তাদের কে ভোগ দিতে হয়। অর্থাৎ তাদের কে বিভিন্ন কিছু উৎসর্গ করতে হয়। প্রথম ক্ষেত্রে Pagan রা Saint Day পালন করতো May 13th এ যেখানে আত্মাদের Cake এর আমন্ত্রন দেয়া হতো। পরবর্তী তে এই Saint Day কে Christian রা 1st Novenmber এ নিয়ে যায়, যা October 31st এর রাত। এর একটা বিশেষ কারন আছে, কারন Samhain (pronounced “sah-win”) এই তারিখেই পতিত হয়েছিলো। 1st Nov কে All Hallows Day হিসেব করে তার আগের দিনের বিকাল কে All Hallows Evening হিসেবে পালন করা শুরু করা হলো। Hallows Evening কে সংক্ষেপে Halloween বলা হয়। এর কারন Church বা Christian Community অশুভ শক্তি থেকে রক্ষা পাবার জন্য এই celebration চালু করে এবং Church আরো নিরাপত্তার জন্য Nov 2nd কে Holiday এবং All Souls Day হিসেবে ঘোষণা দেয়। Church এমন টা করেছিলো যারা মৃত্যু বরন করেছে ইতিপূর্বে তাদের সম্মানার্থে কারন এতে করে Supernatural দের সাথে সকল মৃত Halloween দের বোঝাপড়া টা সুবিধের হবে কিন্তু Church আরেকটি প্রথা চালু করে দেয় সাথে আর তা হচ্ছে Trick-or-Treating. এই প্রথা খানা চালু হয়েছিলো Middle Age এর সময়ে যখন All Souls Day তে Priest রা Christian দের কে বলতো Trapped Soul দের জন্য দোয়া করতে। হ্যাঁ, Trapped Soul মানে বন্ধি আত্মা, যারা স্বর্গ বা নরক কোথাও নেই বরং এমন একটি জায়গায় আটক আছে যার নাম Purgatory. এই Purgatory কোনো শান্তির জায়গা নয় । পুরোটাই আগুন দ্বারা বেষ্টিত কিন্তু ভাগ্যবশত এইখানে আটক আত্মাদের জন্য আপনি দোয়া করতে পারবেন। যদি যথেষ্ট দোয়া কোনো আত্মা পায় তবে সে এই Purgatory থেকে বের হয়ে আসতে পারবে এবং স্বর্গে উপতিত হবে। আর এই দোয়া করার পদ্ধতি টা হচ্ছে, বাচ্চারা আপনার ঘরের দরজায় আসবে এবং তারা Soul Cake (আগেই বলেছি Cake Offer করা হতো) চাইবে এবং আপনাকে সে Cake তাদের দিতে হবে এবং সে Cake তারা খাবে Purgatory দের মুক্তির উৎসর্গ করে। এবং এই Spirit গুলো তখন সাহায্য করে Supernatural Evil Spirit এর মন্দ হতে রক্ষা করার জন্য।

 

images

 

না, শুধু এতোটুকুই নয়। Halloween এর অনেক গুলো Character আছে এবং সে character গুলোর পিছনে অনেক গল্প, Symbol, Myth জড়িয়ে আছে। যেমন 16th century Witchcarft এর Concept দিয়ে গিয়েছে, এরা হচ্ছে পেত্নি যাদের কাজ এপাশ থেকে ওপাশের আত্মাদের সাথে যোগাযোগ করা।

America তে প্রথাগত ভাবে Halloween Party অনেকদিন ধরে পালন করা হলেও এর যৌক্তিক পালন শুরু করা হয় Cevil War এর পর থেকে যা শেষ হয়েছিলো ১৮৬৫ সালে এবং যেখানে ৫০ লাখ এর মতো সৈনিক মারা গিয়েছিলো। এই যুদ্ধের পর প্রথম Halloween Ghost Story ছিলো এমন যে সে সৈনিক রা ঘরে ফিরতে শুরু করেছে!

Halloween celebration এর কিছু রকম ও ধাপ ছিলো, যেমন beggar রা Party-Alchohol-Stripper দের নিয়ে মুখোশ দাড়া নিজেদের পরিচয় লুকিয়ে এটি পালন করতো, আর সাধারণ মানুষ আগুনের চারপাশে বসে কোনো ভুতের গল্প বলে এটি পালন করতো, আবার এক গোত্রের মানুষ বিভিন্ন পরিচ্ছদের পোশাক পড়ে, নেচে এটি পালন করতো। সেসব ভুতের গল্প থেকে বিভিন্ন চরিত্রও বের হয়ে আসতো । যেমনঃ Bogey Man যার কাজ রাতে ছোট ছেলে-মেয়েদের ঘরের দরজার পেছনে, খাটের নিচে বা জানালার পাশে লুকিয়ে থাকা।

সবচেয়ে Icon Character হচ্ছে jack-o’-lantern যার প্রতীকী হিসেবে pumkin এর বিশেষ অবয়ব বানানো হয়। এই Jack কোনো সাধারণ চরিত্রও না। সে নিজেকে নরকে পতিত করতো এবং সেখান থেকে আবার ফিরে আসতো। তো তার এহেন কর্ম দেখে Devil রা তাকে নরক থেকে অ্যাম্বার দিয়ে বিদায় করে এবং এই অ্যাম্বার Jack নিয়ে এসে এক Halloween Turtle এ ফেলে দেয় এবং সেটা Jackel এর নিজের স্তরে পরিণত হয়। এবং এই স্তরের বিশেষ কেই Modern American রা Punmkin এর অবয়ব দিয়ে hollaween এর Trademark বানিয়ে দেয়।

oldhallow

আচ্ছা, আর Complication এ না যাই। একটু সহজ ভাবে নিয়ে আসি। Halloween এর Origin ছিলো Samhain নামক একজন ব্যাকতির দ্বারা যিনি মন্দ আত্মার বিরুদ্ধে Halloween রাতে প্রার্থনা করতো , তারপর Middle Age এ এসে তা Christian Holiday হলো, 16th Century তে এসে তা উচ্ছৃঙ্খল ভিক্ষুক এবং শিশুদের celebration এ রুপান্তর হলো, তারপর 20th Century তে এসে তা সকল Scary Character এর গল্পে রুপান্তর হলো। তারপর শুরু হলো এসব Character এর Coustume পড়ে এবং গল্পের Context সাজিয়ে Prank করা। এই যেমন শিশুরা খুব Distracted Way তে ডিম ছুরে মারা শুরু করলো, রাস্তা ঘাটে আগুন জ্বালিয়ে, গাড়ি পুড়িয়ে, তারপর গেট খুলে দিয়ে ফার্ম এর পশু-পাখি ছেড়ে দিয়ে Halloween পালন করা শুরু করলো। এটা কে তারা TRICKS হিসেবে ধরলো । “Trick or treat” এর কথা নিশ্চয়ই মনে আছে? কিন্তু এতে করে TRICK এর বদলে Trouble শুরু হয়ে গেলো । তো এটার Solution আনার জন্য American Civic Community একাধারে অনেক Halloween Based বই বাজারে ছাড়তে শুরু করলো। যা Hollaween এর এই Prank Night কে Party Night এ Convert করতে সাহায্য করলো। এবং এতে করে একটা লাভজনক ব্যাবসাও চালু হলো। এই সকল Coustumes, Party, Dresses, Musks,Paper Cuts,Chocholates, Cakes, etc Halloween কে ঘিরে বেশ লাভজনক ব্যাবসা হয়ে দাঁড়ালো।

Halloween-History_zps8eaac5b3

 

ধীরে ধীরে পুরো Concept টা একটা শিশুদের মজার ব্যাপার হয়ে দাঁড়ালো কারন এই দিন আসলেই শিশুরা কেক, চকলেট, ভুতের গল্প, ভুতের ড্রেস, পার্টি সহ মজা করার সুজোগ পায় । এই কনসেপ্ট কে এতোটা মজার করে তোলার পিছনে রয়েছে Halloween নিয়ে লেখা অনেক অনেক বই এবং Cartoons. তবে হ্যাঁ, শিশুদের কাছে ব্যাপারটি মজার হলেও adult দের জন্য ব্যাপারখানা বরাবরই একটি রহস্য হয়েই থেকে গেলো । যেমনঃ ১৯৭৮ সালে Halloween নিয়ে প্রথম চলচিত্র বানানো হয়েছিলো John Carpenter এর ডিরেকশনে। মুভি টি দেখলে বুঝবেন কেন এভাবে বলছি।

Ducking for apples on Halloween

Finishline: In 21st Century Halloween just becomes a Holiday to enjoy like the children.
But the thing is, Don’t be surprised if a smiling jack-o’-lantern wishing you “Happy Halloween” 🙂

Aboyob Siddiquie Medi

 

 

12063735_1667472750162587_870752977556769735_n

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন