Bullhead – বেলজিয়ান ক্রাইম মাস্টারপিস [ছেলেদের জন্য সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ !!!]

 

 

Bullhead আমার দেখা প্রথম ডাচ মুভি। এর গল্প পশু কৃষক Jacky Vanmarsenille (Matthias Schoenaerts)  কে ঘিরে। সে ও তার বিজনেস পার্টনার গবাদি পশুদের গুনগত মান বাড়ানোর জন্য নানা রকম শক্তশালি স্টেরয়েড এবং হরমোন এর আশ্রয় নেয়। কিন্তু  Jacky নিজেই তার ব্যাক্তিগত অতিতে এমন একটা মারাত্মক দুর্ঘটনার শিকার, যে তার নিজেকেই প্রতিনিয়ত অনেক বেশি স্টেরয়েড ও ওষুধের উপর বেচে  থাকতে হয়। কাহিনী শুরু হয় যখন jacky কে কুখ্যাত এক মাংশ বিক্রেতার সাথে ডিলে যেতে হয়, একি সময় শহরে এক ফেডারেল পুলিশ খুন হয়, যেটার তদন্তে নানা ঘটনার প্রবাহে Jacky এর অতীত হঠাৎ আবার সামনে চলে আসে Jacky এর। মুভি তখন থেকে একি সাথে প্রতিশোধ এবং মার্ডার তদন্ত থ্রিলার লাইনে চলে যায়।

অসাধারণ সুন্দর সিনেমাতগ্রাফির মধ্য দিয়ে বেলজিয়াম কে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে দারুন আর্টিসটিক এই ক্রাইম ড্রামায়। রোদেলা আকাশ এবং মেঘের সমন্বয়ে শস্যক্ষেতের দৃশ্য গুলা মনোমুগ্ধকর।
আউট অফ ফ্রেম মানুষগুলা যেভাবে আস্তে আস্তে আউট অফ ফোকাস কিংবা ব্লার হয়ে যায় ক্যামেরার সূক্ষ্ম কারসাজি তে, জব্বর লাগে দেখতে। এই লেভেলের কাজ মনে হয় হলিউডের বাইরে ইউরোপের সব দেশের মুভি তেই বিদ্যমান। আমি একেবারে নতুন বলে এত ভাল্লাগছে। প্যাঁচানো সিঁড়িঘরের পাজলিং শট গুলা কিংবা এলিভেটরের ভেতর অ্যাকশান সিন টা Drive , Bronson মুভি গুলার কথা মনে করাবে।

মুভি টা ব্যাসিকালি ক্লাউডি একটা টোনে করা পুরাটাই। তাই ফিল গুড ফিলিং টা খুবই ক্ষণিকের। বাকিটা হার্ড কোর ক্রাইম ড্রামা। গল্প বলিয়ে টাও এমন যে খুব ইন্টারেস্টিং তা নয়। অনেকটাই কিছু গুচ্ছ গুচ্ছ ঘটনার একটা চেইনের মত। মাঝে মাঝেই চরিত্র এবং সিকুএন্সে গুলার নিজেদের মধ্যকার পারশপরিক সম্পর্ক খুঁজে পেতে বেগ হয়। কিন্তু চিত্রনাট্য সেদিক দিয়ে এক কথায় টপনচ! আমি মনে হয় অনেকদিন এত ভাল চিত্রনাট্য দেখিনাই।

এবার আসি পারফরমেন্সে। Bullhead সম্পূর্ণই মূল চরিত্র এ অভিনয় করা Matthias Schoenaerts এর মাস্টারফুল অ্যাক্ট। এর বাইরে তার বাল্যকালের বন্ধুর চরিত্র এ Jeroen Parceval ভাল কাজের স্বাক্ষর রেখেছেন। তবে Schoenaerts এখানে এতটাই শক্তিশালী একটা চরিত্র করেছেন, যেটা দেখার সময় প্রায়ই মনে হবে সে যে কোন সময় বিস্ফোরণ করবে, তবু সব সময় তার প্রতি ভিউয়ার হিসেবে সহানুভূতি হয়। এতটাই অনন্য সাধারণ একটা কাজ। ৫৯ কেজি মাসল গেইন করেছে Schoenaerts এই চরিত্রের জন্য, Bronson মুভি তে Tom Hardy করেছিলেন ৪২ কেজি।

আগেই বলে রাখছি জ্যাকির অতীতের সেই সিন টা এমন ভাবে নাড়া দিবে, যেটা বাকি মুভি টায় টেনে নেয়ার জন্য যথেষ্ট। আমি অন্তত আগে কখনও এরকম ভয়াবহ বাস্তবতা দেখিনাই। যেভাবে শুট করা হয়েছে সেই ভায়লেনট সিন টা,  মুভি শেষ হলেও ভুলে যাওয়া কঠিন হবে ওটা। তবে মুভি টায় কোন অতি মাত্রায় ভায়লেন্স নাই, হলিউডের মুভি দেখে দেখে আমরা হয়ত অনেকেই বিনোদন হিসেবে ভায়লেন্স দেখতে পছন্দ করি বেশি বেশি, তারা এটা দেখে একটু হতাশ হব। রিয়েলিস্তিক হলেই যে ভায়লেনট হতে হবে কথায় কথায়, এমন কোন কথা নেই, সেটাই আবার এই বিদেশী ভাষার মুভি টা প্রমান করে। এসব মুভি যতো দেখছি, হলিউডের মুভি গুলা কে তত ছেলেমানুষি মনে হচ্ছে।

 

 

Bullhead নিয়তি, নিলীন সরলতা, বন্ধুত্ব, অপরাধ, শাস্তি , বিরুদ্ধ অভিলাষ এবং অপরিবর্তনীয় অদৃষ্টের একটা রোমাঞ্চকর ট্র্যাজেডি, যেটার মর্ম তারাই উপলব্ধি করতে পারবে, যারা art এবং রেয়ালিস্তিক ক্রাইম ড্রামায় বিশ্বাসী।

Schoenaerts  এমনইএকটা ভয়ঙ্কর পাওয়ারহাউস, যার অভিনয় যে কাউকে চাবিয়ে অগ্নিগোলার মত ঝড়ের মাঝে ছুড়ে ফেলার জন্য যথেষ্ট।

imdb link: http://www.imdb.com/title/tt1821593/

download link: http://www.torrenthound.com/hash/c833ac530f56a44384f07d606a711a2bbbf1fa36/torrent-info/Bullhead-Rundskop–2011-BRRip-XviD–CODY

 

 

 

(Visited 69 time, 1 visit today)

মন্তব্য করুনঃ

You must be Logged in to post comment.

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন